রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ৭৫ বছরে পা রাখলেন

জন্মবার্ষিকী উদযাপন

প্রকাশ : ০২ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ গতকাল সোমবার ৭৫ বছরে পা রেখেছেন। কিশোরগঞ্জের হাওর এলাকা থেকে রাজনীতির বিভিন্ন ধাপ পেরিয়ে তিনি হয়েছেন দেশের ২০তম রাষ্ট্রপতি। অনাড়ম্বর জীবনযাপনে অভ্যস্ত আবদুল হামিদের জন্মদিনও পালন করা হয় ঘরোয়া পরিবেশে। জন্মদিনের প্রাক্কালে রাষ্ট্রপতি বলেছেন, দেশবাসীর প্রতি তিনি কৃতজ্ঞ। বঙ্গভবনে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে কেক কেটে গতকাল সোমবার ৭৪তম জন্মবার্ষিকী উদ্যাপন করেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। জন্মস্থান কিশোরগঞ্জের মিঠামইনের কামালপুর গ্রামসহ হাওরের অন্যান্য উপজেলায়ও রাষ্ট্রপতির জন্মদিন উদ্যাপনে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়।

কিশোরগঞ্জ থেকে সাতবার এমপি নির্বাচিত হন আবদুল হামিদ। তাই কিশোরগঞ্জের মানুষের প্রতি কৃতজ্ঞতার অন্ত নেই তার। জন্মদিনের প্রাক্কালে সে কথা আবারও জানালেন তিনি। রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘কিশোরগঞ্জবাসী আমাকে নেতা বানিয়েছে। তাদের কারণেই আজ আমি দেশের রাষ্ট্রপতি। জেলাবাসীসহ সমগ্র দেশবাসীকে কৃতজ্ঞতা ও শুভেচ্ছা জানাই।’ কিশোরগঞ্জ শহরে রাষ্ট্রপতির আত্মীয়স্বজন, বন্ধু-বান্ধব ও দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক সহকর্মীরা জন্মদিন পালনে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেন। রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ মেডিকেল কলেজ, ঈশা খাঁ ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানেও উদ্যাপিত হয় তার জন্মদিন।

আবদুল হামিদের জন্ম ১৯৪৪ সালের ১ জানুয়ারি। মাধ্যমিক স্কুলে পড়ার সময়েই ছাত্র রাজনীতিতে পা রাখেন তিনি। হয়ে ওঠেন তৎকালীন কিশোরগঞ্জ মহকুমার জনপ্রিয় ছাত্রনেতা। নেতৃত্বগুণ তাকে বঙ্গবন্ধুর সান্নিধ্যে নিয়ে আসে। ১৯৭০ সালের নির্বাচনে মাত্র ২৬ বছর বয়সে জাতীয় পরিষদের সদস্য (এমএনএ) নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগের মনোনয়নে। তিনি ছিলেন সর্বকনিষ্ঠ এমএনএ। তিনি মুক্তিযুদ্ধে যোগ দেন। কিশোরগঞ্জ ও সুনামগঞ্জে মুজিব বাহিনীর সাব-সেক্টর কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করেন। স্বাধীনতার পর হাওরের সবচেয়ে প্রিয় নেতায় পরিণত হন আবদুল হামিদ। ১৯৭৩ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত সাতবার এমপি নির্বাচিত হন। ১৯৮৮ ও ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারির একতরফা নির্বাচন বর্জন করেছিলেন তিনি। বাগ্মিতা আর রসবোধের জন্য খ্যাতি পাওয়া আবদুল হামিদ বিরোধীদলীয় উপনেতা, ডেপুটি স্পিকার ও স্পিকার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৩ সালের ২৪ এপ্রিল রাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। আবদুল হামিদের রাজনৈতিক ও পেশাগত বন্ধু অ্যাডভোকেট জামাল উদ্দিন খান বলেন, ‘হামিদের মতো সর্বজন গ্রহণযোগ্য রাজনীতিবিদ আর হয় না।’ সাবেক ছাত্রনেতা ও মুক্তিযুদ্ধ গবেষক ছড়াকার জাহাঙ্গীর আলম জাহান বলেন, দলীয় বিবেচনায় রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হলেও আবদুল হামিদের বিরুদ্ধে কেউ পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ করতে পারবেন না।

"