অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশ সফর

ওয়ার্নারের অপেক্ষায় লেহম্যান

প্রকাশ : ১২ আগস্ট ২০১৭, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানদের সংক্ষিপ্ত তালিকায় অনায়াসে ঢুকে যাবেন ডেভিড ওয়ার্নার। তার ব্যাট যেদিন কথা বলে তা-ব বয়ে যায় সেদিন। তবে উপমহাদেশের মাটিতে আসলেই যেন কেমন ফিকে হয়ে যান অস্ট্রেলিয়ার বাঁহাতি এই ওপেনার। এখানে টেস্টে তার ব্যাটিং গড় খুব একটা ভালো না। গড়টা ৩০.৩৮! অথচ অস্ট্রেলিয়ায় টেস্টে তার ব্যাটিং গড় ৬০.১১।

উপমহাদেশের মাটিতে স্পিননির্ভর উইকেটই মূলত ওয়ার্নারের এমন পারফরম্যান্সের কারণ। সেই সঙ্গে সাম্প্রতিক সময়ে টেস্টে ব্যাট হাতে নামের প্রতি সুবিচার করতে পারছেন না ওয়ার্নার। তবে বাংলাদেশ সফরেই এই বাজে ফর্ম কাটিয়ে উঠে নিজেকে মেলে ধরতে সক্ষম হবেন তিনি; এমন বিশ্বাস প্রত্যাশাই অস্ট্রেলিয়া কোচ ড্যারেন লেহম্যানের। তিনি জানালেন, বাংলাদেশ সফরে ঘুরে দাঁড়াবেন ওয়ার্নার।

অস্ট্রেলিয়া কোচের ভাষায়, ‘আমি মনে করি, ওয়ার্নার বুঝতে পেরেছে, সে কী পারে আর কী পারে না। আমি আত্মবিশ্বাসী যে উপমহাদেশের মাটিতে ঘুরে দাঁড়াবে সে। দারুণ ফর্মেই আছে।’

‘ভারত সফরে শুরুটা ভালোই ছিল। সেই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারেনি। বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজে যদি ভালো সূচনা এনে দিতে পারে, সেটা তার ও দলের জন্যই ভালো হবে। আমি তার ব্যাট থেকে বড় রানের (ইনিংস) অপেক্ষায় রয়েছি, যেমনটা অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে করে থাকে।- যোগ করেন লেহম্যান।

তবে বাংলাদেশের মাটিতে কাজটি খুব সহজ হবে না। এখানে সর্বশেষ টেস্ট সিরিজ জিতেছিল পাকিস্তান। ২০১৫ সালের দুই টেস্টেরই প্রথম ইনিংসে পাকিস্তানের সংগ্রহটা ছিল বড়সড়, ৬২৮ ও ৫৫৭/৮ (ডিক্লে.)। তার আগে জিম্বাবুয়ে নিজেদের প্রথম ইনিংসে তিন টেস্টে করতে পেরেছিল ২৪০, ৩৬৮ ও ৩৭৪। বাংলাদেশ জিতেছিল তিন টেস্টেই। শেষ সিরিজ খেলেছে ইংল্যান্ড, দুই টেস্টে কোনো ইনিংসেই ৩০০ ছুঁতে পারেনি কোনো দলই। সিরিজ হয়েছিল ড্র।

ইংল্যান্ড সিরিজের উইকেট অবশ্য বাকি সিরিজগুলোর চেয়ে বেশ নিচু ও ধীরগতির ছিল। ছিল টার্নও। তবে বাংলাদেশের কন্ডিশনে টেস্ট জিততে প্রথম ইনিংসে বড় সংগ্রহটা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। অস্ট্রেলিয়ান কোচ ড্যারেন লেহম্যান বুঝছেন সেটাই। আর সে কারণেই বলছেন, ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নারকে পালন করতে হবে বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকাই। তবে কাজটি খুব সহজ হবে ওয়ার্নারের জন্য।

তবে সব মিলিয়ে ভারত সফর থেকে বেশ কিছু উন্নতির জায়গা আছে বলে মত লেহম্যানও, ‘ভারতে ছেলেরা কন্ডিশন ও উইকেটের সঙ্গে মেনে নিয়েছিল, সেখানে তো প্রত্যেকটা উইকেটই আলাদা ছিল। কিন্তু ওই সিরিজটা যতোই প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হোক, আমরা তো হেরেছিলাম। বাংলাদেশে গিয়ে কিছু জায়গায় তাই উন্নতি করতে হবে আমাদের।’ লেহম্যানের চাওয়া সেই উন্নতির জায়গাগুলোর অনেকটা জুড়েই নিশ্চয়ই আছেন ডেভিড ওয়ার্নার!

এশিয়ার মাটিতে ভারত, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট খেলার অভিজ্ঞতা থাকলেও বাংলাদেশের মাটিতে কখনো খেলা হয়নি ওয়ার্নারের। শুধু ওয়ার্নারই নন, অজিদের বর্তমান টেস্ট দলটার কারোই টেস্টে খেলা হয়নি টাইগারদের বিপক্ষে।

বাংলাদেশের উদ্দেশে দেশ ছাড়ার আগে অজিদের এক সপ্তাহের অনুশীলন ক্যাম্প চলছে নর্দান টেরিটরির (এনটি) শহর ডারউইনে। টাইগারদের স্পিন শক্তির কথা চিন্তা করেই ঢাকা ও চট্টগ্রামের আদলে সেখানে ছয়টি স্পিন সহায়ক পিচে প্রস্তুত করে ঘাম ঝরাচ্ছে অজিরা।

"