‘বাংলাদেশ গর্ব করতে পারে’

প্রকাশ : ১৭ জুন ২০১৭, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

টুর্নামেন্ট শুরুর আগেই বাংলাদেশকে ‘ডার্ক হর্স’ বলে অভিহিত করেছিলেন তিনি। সেমিতে হেরে বিদায় নেওয়ার পরও বাংলাদেশের পক্ষেই থাকলেন লঙ্কান কিংবদন্তি কুমার সাঙ্গাকারা। গত বৃহস্পতিবার ভারতের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি সেমিফাইনালে হেরে স্বপ্নভঙ্গ হয়েছে বাংলাদেশের। তবে এই হারের পরও ক্রিকেটের অনেক সাবেক কিংবদন্তিদের নিজেদের পাশে পাচ্ছেন মাশরাফি-সাকিবরা। এই যেমন শ্রীলঙ্কার সাবেক ব্যাটিং লিজেন্ড কুমার সাঙ্গাকারা বিশ্বাস করেন, মাথা উঁচু করে দেশে ফেরার মতো পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন মাশরাফিরা।

আইসিসির ওয়েবসাইটে এক কলামে বাংলাদেশের প্রশংসা করেছেন সাঙ্গাকারা, ‘এ ম্যাচে বাংলাদেশ সবদিক থেকে হেরে গেছে। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পরবর্তী সিরিজের জন্য তারা মাথা উঁচু রেখে ঢাকায় ফিরতে পারে।’

বাংলাদেশ দলের উন্নতিতে প্রত্যেকের অবদান আছে মনে করেন সাবেক ব্যাটিং গ্রেট, ‘গত কয়েক বছরে চন্ডিকা হাথুরুসিংহের চৌকস কোচিং, সহায়তাকারী ক্রিকেট বোর্ড ও সাকিব আল হাসানের মতো কয়েকজন যোগ্য সিনিয়র খেলোয়াড়রা বিশাল উন্নতিতে অবদান রেখেছে।’ সাঙ্গাকারার মতে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির অভিজ্ঞতা সামনে কাজে লাগাবে বাংলাদেশ। তার দৃঢ় বিশ্বাস আগামী বিশ্বকাপে আসল প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে ইংল্যান্ডে খেলবে মাশরাফিরা। তিনি লিখেছেন, ‘আইসিসির গত দুটি বড় ইভেন্টে বাংলাদেশ নকআউট পর্বে খেলল। ২০১৯ সালের বিশ্বকাপে সত্যিকারের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে খেলতে যাচ্ছে তারা, এ জন্য পরিকল্পনা শুরু করে দিতে পারে তারা।’

সাঙ্গা আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ তাদের শক্তির প্রমাণ দিয়েছে। বৃষ্টিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বেঁচে গেলেও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তাদের সাহসী পারফরম্যান্স আমাকে ১৯৯৬ সালের বিশ্বকাপজয়ী শ্রীলঙ্কাকে মনে করিয়ে দিয়েছিল: ছোট দলও নায়ক হয়ে যেতে পারে।’ চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স নিয়ে সাঙ্গাকারার এমন মূল্যায়ন।

শ্রীলঙ্কার সাবেক অধিনায়ক মনে করেন, চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে এ অর্জন নিয়ে বাংলাদেশ গর্ব করতে পারে। তবে বাংলাদেশের বোলিংয়ে আরো একটু মনোযোগী হওয়া দরকার বলেছেন সাঙ্গাকারা, ‘বাংলাদেশ তাদের অর্জন নিয়ে গর্ব করতে পারে। কিন্তু যখন তারা বিশ্বকাপ খেলতে ইংল্যান্ড ফিরবে, তখন তাদের বোলিংয়ে আরো বেশি বৈচিত্র্য ও একাগ্রতা আনতে হবে। দেশে ও দেশের বাইরে তাদের সামনে রোমাঞ্চকর সময় অপেক্ষা করছে।’

এ সময় কেবল বাংলাদেশেরই নয়, ফাইনালে ওঠা ভারতীয় দলের প্রশংসাও করেছেন সর্বকালের অন্যতম সেরা এই উইকেট কিপার ব্যাটসম্যান। ‘এই ম্যাচে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত কোহলিকে অনেক বেশি শান্ত এবং উজ্জ্বীবিত দেখা গেছে। সে তার বোলারদের বুদ্ধি এবং পরিপক্বতা দিয়ে ব্যবহার করেছে।’

"