আম্পায়ার্স কলের অবসান চান টেন্ডুলকার-লারা

প্রকাশ : ১৩ জুলাই ২০২০, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

বলের কতটুকু অংশ স্টাম্পে লেগেছে, কতটুকু লাগেনি। রিভিউ নেওয়ার পর তা হয়ে পড়ে গুরুত্বপূর্ণ। এই হিসাবের গরমিলে অনেক সময়ই রিভিউ নেওয়ার পরও মাঠের আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত বহাল থেকে যায়। শচীন টেন্ডুলকার মনে করেন, রিভিউয়ের ক্ষেত্রে পুরোপুরি প্রযুক্তির ওপরই নির্ভর করা উচিত। তার সঙ্গে একমত ব্রায়ান লারাও। ‘১০০ এমবি’ অ্যাপে কিংবদন্তি দুই ব্যাটসম্যান আলাপ করেছেন রিভিউ প্রক্রিয়া নিয়ে।

বর্তমান নিয়ম অনুযায়ী রিভিউয়ের ক্ষেত্রে ‘আম্পায়ার্স কল’ রাখে বড় ভূমিকা। ধরা যাক, কোনো এলবিডব্লিউ-এর আবেদনে যদি আম্পায়ার নট আউট দেন, সেই সিদ্ধান্ত যখন চ্যালেঞ্জ করে ফিল্ডিং দল। তখন বলের বৈধতা, আউটসাইড লেগ পিচড না হলে এবং ব্যাটে না লাগলে পরে দেখা হয় বল স্টাম্পে কতটুকু আঘাত করেছে। যদি ৫০ শতাংশের কম স্টাম্পে লাগে, তাহলে মাঠের আম্পায়ারের দেওয়া ‘নট আউট’ সিদ্ধান্তই বহাল থাকে। কিন্তু মাঠের আম্পায়ার যদি ওই সিদ্ধান্তই যদি ‘আউট’ দিতেন, তাহলে ফিল্ডিং দলের চ্যালেঞ্জ বিফল হতো। অর্থাৎ মাঠের আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত কেবল তখনই বদলাতে, যদি বল ৫০ শতাংশের বেশি স্টাম্পে আঘাত করে।

‘ব্যাটিং ঈশ্বর’ টেন্ডুলকার মনে করেন, এই নিয়ম বদলানো উচিত। রিভিউতে গেলে সবকিছুই বিচার করা উচিত প্রযুক্তি দিয়ে, ‘রিভিউতে আইসিসি যে নিয়ম চালু করেছে, এর সঙ্গে আমি একমত নই। কেউ যখন রিভিউ নেয় বুঝতে হবে মাঠের আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে সে অখুশি। এই কারণেই তো লোকে (খেলোয়াড়রা) রিভিউ নেয়। টিভি আম্পায়ারের কাছে গেলে সব প্রযুক্তির ওপর ছেড়ে দেওয়া উচিত। টেনিসের মতো দেখা উচিত। বল লাইনে একটু স্পর্শ করলেও সেটা ভেতরে, নাহলে বাইরে। মাঝামাঝি বলে কিছু নেই।’

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে একমাত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে ১০০ সেঞ্চুরির মালিক টেন্ডুলকার আরো বলেন, ‘বলের কত শতাংশ স্টাম্পে লাগল, সেটা বিষয় না। রিভিউয়ে যদি দেখা যায় বল স্টাম্পে একটু হলেও লেগেছে, আউট দেওয়া উচিত। সেক্ষেত্রে মাঠের আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত যেটাই হোক না কেন। কারণ তার সিদ্ধান্ত তো চ্যালেঞ্জই হয়েছে।’

তবে প্রযুক্তি নিখুঁত ফল দিচ্ছে কিনা, তা নিয়ে আছে বিতর্ক। টেন্ডুলকারও মানছেন সেটা। কিন্তু মানুষও যে নিখুঁত নয়! কাজেই কোনো প্রযুক্ত ব্যবহার করলে শতভাগই আস্থা রেখে করা উচিত বলে মনে করেন তিনি, ‘হ্যাঁ, অনেকে বলবেন প্রযুক্তি তো শতভাগ ঠিক না। কিন্তু মানুষও তো শতভাগ ঠিক না। কাজেই প্রযুক্তি যদি ব্যবহার করতেই হয়, পুরো আস্থা নিয়ে করা উচিত।’

টেন্ডুলকারের এই ব্যাখ্যা পুরো মনে ধরেছে ‘ক্রিকেটের বরপুত্র’ লারার। প্রতি উত্তরে তিনি বলেন, ‘বেশ যুক্তি আছে তার (টেন্ডুলকারের) কথায়। কারণ দেখা যায় একই ডেলিভারির ক্ষেত্রে আম্পায়ার আউট দিলে রিভিউয়ের ফল এক রকম, আউট না দিলে আরে করকম। রিভিউ ক্রিকেটের অংশ হয়ে গেছে। এটি রেখে দেওয়ার পক্ষে আমি। কিন্তু এটি আরো পরিশীলিত করতে হবে। যতটুকু নিখুঁত করা যায় করতে হবে।’

 

"