এই অভ্যাস বদলাতে সময় লাগবে

বলে থুতুর ব্যবহার নিষিদ্ধ নিয়ে আশ্বিন

প্রকাশ : ২২ মে ২০২০, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

করোনাভাইরাসের ধাক্কায় স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা বিবেচনায় নিয়ে থুতু লাগিয়ে বল উজ্জ্বল নিষিদ্ধের সুপারিশ করেছে আইসিসি ক্রিকেট কমিটি। জুনে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থার আসন্ন সভায় এটি নিষিদ্ধ হয়ে গেলে বদলাতে হবে বোলার-ফিল্ডারদের দীর্ঘ দিনের অভ্যাস। কমে যাবে একটি অস্ত্রও। এজন্য বল চকচকে করতে বিকল্পও চাওয়া শুরু করেছেন বোলাররা। অস্ট্রেলিয়ার তারকা পেসার প্যাট কামিন্স যেমন বল ঘষে চকচকে করতে মোম বা অন্য কোনো কৃত্রিম বস্তু ব্যবহারের অনুমোদন চেয়েছেন। আর ভারতীয় অফ স্পিনার রবিচন্দ্রন আশ্বিন মনে করেন, লালা লাগানো হুট করেই থামিয়ে দেওয়া হবে মুশকিল।

পরশু রাতে আইপিএলে তার নতুন দল দিল্লি ক্যাপিটালসের ইনস্টাগ্রাম লাইভে আড্ডা দেন আশ্বিন। অনুমিতভাবেই আসে থুতু বা লালা নিষিদ্ধের ইস্যু। আশ্বিনের মত, এই নিয়ম চালু হলেও বাস্তবায়ন করতে সময় লাগবে, ‘বলে থুতু লাগানোটা আমার কাছে খুব স্বাভাবিক একটা ব্যাপার। এই অভ্যাস বদলাতে সময় লাগবে। তবু বলব নিয়ম বলবৎ হলে এর সঙ্গে আমাদের মানিয়ে নিতেই হবে।’

থুতু ব্যবহারের মতো বদলে যেতে পারে ক্রিকেট মাঠের চেনা আরেক দৃশ্য। এখন উইকেট পেলেই সবাই হাই-ফাইভ করেন, জড়ো হয়ে চলে উদ্যাপন। আশ্বিন মনে করেন, এই দৃশ্য বদলে ফিরতে পারে সত্তর-আশির দশক, ‘সত্তর-আশির দশকে দেখতাম উইকেট নেওয়ার পর সকলে দূরে দূরে দাঁড়িয়ে তালি মারত। হাই-ফাইভ বা রিস্ট বাম্প (কব্জির টোকা) পরে এসেছে। এখন আমাদের হয়ত পুরোনো সময়ে ফিরতে হবে।’

এর আগে থুতু ব্যবহার নিষিদ্ধ নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানান অস্ট্রেলিয়ার প্যাট কামিন্স ও জস হ্যাজলউড। সময়ের অন্যতম সেরা ফাস্ট বোলার কামিন্সের ভাষ্য, ‘যদি থুতুর ব্যবহার সরিয়ে দেই, তাহলে আমাদের অন্য কোনো বিকল্প রাখতে হবে। এক্ষেত্রে ঘামের ব্যবহার খারাপ নয়। কিন্তু আমাদের এর চেয়েও ভালো কিছু দরকার। সেটা যাই হোক না কেন। মোম বা অন্য কোনো কিছু।’

 

"