আইপিএল আয়োজন করতে চায় শ্রীলঙ্কা

প্রকাশ : ১৮ এপ্রিল ২০২০, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

করোনাভাইরাসের কারণে ক্রমেই চোরাবালিতে আটকে যাচ্ছে এবারের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপএল) ভবিষ্যৎ। ভারতে ২১ দিনের লকডাউন শেষ হওয়ার পর তা আগামী ৩ মে পর্যন্ত বর্ধিত করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। পরিস্থিতি যেদিকে গড়াচ্ছে, তাতে লকডাউনের সময়সীমা আরো বাড়তে পারে। ফলে অনির্দিষ্টকালের জন্য আইপিএল স্থগিত ঘোষণা করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)।

গত ২৯ মার্চ শুরু হওয়ার কথা ছিল আইপিএলের এবারের আসর। লকডাউনের কারণে সেটি ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত করা হয়। আশা ছিল যদি লকডাউন তুলে নেওয়া হয়, তাহলে নতুন করে সূচি নির্ধারণ করা হবে। কিন্তু তা হলোই না, উল্টো বাতিলের শঙ্কায় অর্থের ঝনঝনানির এই টুর্নামেন্ট।

ভারতে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি দিনকে দিন অবনতির দিকেই যাচ্ছে। এখন পর্যন্ত ৫০০-এর বেশি মানুষ মারা গেছেন, আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ১৪ হাজার। সেই তুলনায় শ্রীলঙ্কার পরিস্থিতি বেশ নিয়ন্ত্রণে। আক্রান্ত হয়েছেন মাত্র ২৩৮ জন, মারা গেছেন সাতজন। এই অবস্থায় ভারত যদি আইপিএল আয়োজন করতে না-ই পারে, তবে সুযোগটা নিতে চায় শ্রীলঙ্কা। ইতোমধ্যে বিসিসিআইকে সে প্রস্তাবও পাঠিয়ে দিয়েছে লঙ্কান বোর্ড (এসএলসি)।

বোর্ডের সভাপতি শাম্মি সিলভা বলেছেন, ‘যদি আইপিএল বাতিল হয়ে যায়, তবে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড এবং আইপিএলের অংশীদারদের ৫০০ মিলিয়ন ডলারের বেশি লোকসান হবে। তাই তাদের জন্য অন্য দেশে টুর্নামেন্টটি আয়োজন করতে পারলে ভালো হবে, যেমনটা হয়েছিল ২০০৯ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায়।’

২০০৯ সালে ভারতে সাধারণ নির্বাচনের কারণে আইপিএলের দ্বিতীয় আসরটি স্থানান্তর করা হয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকায়। একই কারণে ২০১৪ আসরেরও প্রথম ২০টি ম্যাচ হয়েছিল সংযুক্ত আরব আমিরাতে। এবার তেমনই প্রস্তাব শ্রীলঙ্কার। শাম্মি সিলভা যোগ করেন, ‘যদি তারা (ভারত) প্রস্তাবটিতে সম্মত হয়, তাহলে আমরা শ্রীলঙ্কার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে প্রয়োজনীয় সব সুযোগ সুবিধার ব্যবস্থা করব।’

 

"