এত দিনে মুখ খুললেন রয়েস

প্রকাশ : ১৩ এপ্রিল ২০২০, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

রবার্ট লেভানডফস্কি, ম্যাটস হ্যামেলস এবং মারিও গোৎজে। তিনজনের মধ্যে দারুণ একটা মিল রয়েছে। তিনজনই বরুসিয়া ডর্টমুন্ড থেকে বায়ার্ন মিউনিখে যোগ দিয়েছেন। এই ত্রয়ীর পদাঙ্ক অনুকরণ করার সুযোগ ছিল মার্কো রয়েসের। কিন্তু সাবেক সতীর্থদের পথে হাঁটেননি জার্মান ফরওয়ার্ড।

বুন্দেসলিগায় বায়ার্ন মিউনিখের একচ্ছত্র আধিপত্য থামিয়ে দিয়েছিল বরুসিয়া ডর্টমুন্ড। লিগে ব্যাক টু ব্যাক ট্রফি জিতেছিল সিগনাল ইদুনা পার্কের দলটি। ইয়ুর্গেন ক্লপের (বর্তমানে লিভারপুল কোচ) অধীনে বদলে যায় ডর্টমুন্ড। এরপরই ডর্টমুন্ড থেকে একে একে তিনজন ফুটবলারকে ছিনিয়ে নিয়ে যায় বায়ার্ন।

আট বছর আগে রয়েসকেও দলে ভেড়াতে চেয়েছিল বাভারিয়ানরা। কিন্তু তাকে টানতে ব্যর্থ হয়েছে বায়ার্ন। তাদের ফিরিয়ে দিয়েছেন রয়েস নিজেই। কেন সুযোগ থাকা সত্ত্বেও বায়ার্ন মিউনিখে গেলেন না রয়েস? এই প্রশ্নের উত্তর বহু বছর ধরে ভক্ত-সমর্থকদের আগ্রহের কেন্দ্রে ছিল। অবশেষে এ নিয়ে মুখ খুললেন ৩০ বছর বয়সি তারকা।

সম্প্রতি জার্মান প্রচারমাধ্যম বিল্ডকে রয়েস বলেছেন, ‘অনুরোধ এসেছিল, সাধারণত অন্য ক্লাব থেকে যেভাবে আসে। আমি বায়ার্ন মিউনিখকে অনেক শ্রদ্ধা করি। কারণ গত এক দশকে তারা যা করেছে তা অবিশ্বাস্য। কিন্তু আমি সব সময়ই বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের হয়ে খেলতে চেয়েছিলাম।’

রয়েস যোগ করেন, ‘এই ক্লাব সব সময়ই আমার হৃদয়ে গেঁথে আছে। যখন আমি বরুসিয়া মনচেনগ্লাডবাকে খেলতাম তখন আমার কাছে পরিষ্কার ছিল যে, আমি যদি বুন্দেসলিগায় দলবদল করি তাহলে কেবল ডর্টমুন্ডে যাব। অন্যথায় আমি বিদেশ (জার্মানির বাইরে) চলে যাব।’

 

"