নিজেদের ফিরে পাওয়ার দিন

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট শুরুর আগে মুমিনুল হক কথা দিয়েছিলেন, অনেক দিনের ব্যর্থতা ঘুচিয়ে এবার বড় ইনিংস খেলবেন ব্যাটসম্যানরা। যে কারো ব্যাট থেকে আসতে পারে ১০০, ২০০ এমনকি ৩০০ রানের ইনিংসও! ঢাকা টেস্টের দ্বিতীয় দিনে ব্যাটিং পাওয়া বাংলাদেশ আছে সে পথেই। সেঞ্চুরির আভাস দিয়ে নাজমুল হোসেন শান্ত ফিরে গেলেও অধিনায়ক মুমিনুলের সামনে তিন অঙ্কের হাতছানি, ক্রিজে জমে গেছেন মুশফিকুর রহিমও। যেন অনেকদিন পর নিজেদের ফিরে পেলেন ব্যাটসম্যানরা, পার করলেন একটি আদর্শ দিন।

মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে কাল সকালের সেশনে টপাটপ জিম্বাবুয়ের শেষ ৪ উইকেট তুলে নেওয়ার পর ব্যাটিংয়েও দাপট দেখিয়েছে বাংলাদেশ। শান্ত আর মুমিনুল ছড়িয়েছেন দ্যুতি। তাতে সহজেই লিড নেওয়ার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। গতকাল ম্যাচের দ্বিতীয় দিন শেষে ৩ উইকেটে ২৪০ রান করেছে টাইগাররা। জিম্বাবুয়ের থেকে তারা পিছিয়ে আছেন মাত্র ২৫ রানে।

ব্যাট করার জন্য উপযোগী উইকেটে জিম্বাবুয়েকে দ্রুত গুটিয়ে দেওয়ার মিশন নিয়ে নেমেছিল বাংলাদেশ। কাল আবু জায়েদ রাহি আর তাইজুল ইসলামের সামনে কেবল ৩৭ রান যোগ করে বাকি ৪ উইকেট হারিয়েছে জিম্বাবুয়ে।

পরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে সাইফ হাসানকে হারিয়ে ফেলে দল। এরপরই বাংলাদেশকে দেখা গেছে স্বচ্ছন্দ, নির্ভার। দ্বিতীয় উইকেটেই খেলা সহজ করে দেন তামিম ও শান্ত। সাবলীল ব্যাট করে জুটি বাড়াতে থাকেন তারা। ৭৮ রানের জুটির পর ডোনাল্ড তিরিপানোর বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ৪১ রান করে ফিরে যান তামিম। তাতে অস্বস্তি বাড়েনি। তৃতীয় উইকেটেও ভালো জুটি পায় বাংলাদেশ।

শান্তর সঙ্গে মিলে মুমিনুল যোগ করেন ৭৬ রান। দারুণ খেলতে থাকা শান্ত এগোচ্ছিলেন ক্যারিয়ারের প্রথম শতকের দিকে। কিন্তু চার্লটন টুসুমার বলে বাজে শটে ছুড়ে দেন নিজের উইকেট।

এরপর আরেকটি জুটি পেয়ে গেছে রাসেল ডমিঙ্গোর শিষ্যরা। মুশফিকুর রহিমকে নিয়ে ৬৮ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে দিন শেষ করেছেন মুমিনুল। ১২০ বলে ৯টি চারে ৭৯ রান করে অপরাজিত আছেন টাইগার দলপতি। ৬৮ বলে ৬টি চারে ৩২ রান নিয়ে খেলছেন ‘মিস্টার ডিপেন্ডেবল’ মুশফিক।

 

"