সেঞ্চুরির পর ৫ উইকেট মেহেদীর

প্রকাশ : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

এখন পর্যন্ত একবারই ব্যাট করার সুযোগ পেয়েছেন মেহেদী হাসান। তাতে টি-টোয়েন্টি স্টাইলে সেঞ্চুরি করেছিলেন দক্ষিণাঞ্চলের অলরাউন্ডার। বল হাতেও কম গেলেন না, একাই ফেরালেন পূর্বাঞ্চলের ৫ ব্যাটসম্যানকে। মেহেদীর অলরাউন্ড নৈপুণ্যের ম্যাচে ঝলক দেখিয়েছেন ওপেনার পিনাক ঘোষও।

কক্সবাজারে দক্ষিণাঞ্চলের ৪৮২ রানের জবাবে প্রথম ইনিংসে ৩০৬ রানে অলআউট হয়ে ফলোঅনে পড়েছিল পূর্বাঞ্চল। সেই ইনিংসে ৮০ রান করেছিলেন পিনাক। ফলোঅনে পড়ে দ্বিতীয়বার ব্যাটিংয়ে নেমে আরো উজ্জ্বল বাঁ-হাতি ওপেনার, এবার ১২১ রানের ঝলমলে ইনিংস এসেছে তার উইলো থেকে। দ্বিতীয় ইনিংসে ৫ উইকেটে ৩২৩ রানে তৃতীয় দিন শেষ করে ১৪৭ রানে এগিয়ে তার দল।

গতকাল ৫ উইকেটে ২৭০ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করা পূর্বাঞ্চল তাদের প্রথম ইনিংসে অলআউট হয়েছে মধ্যাহ্নভোজ বিরতির আগেই। লেজের তিন ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে একই ম্যাচে সেঞ্চুরি ও ৫ উইকেটের দারুণ কীর্তি গড়েছেন মেহেদী। এই ৫ উইকেট নিতে তাকে রান খরচ করতে হয়েছে ১০২ রান। ১০৭ রানে ৩ উইকেট নিয়েছেন দক্ষিণাঞ্চলের অধিনায়ক আব্দুর রাজ্জাক।

১৭৬ রানে পিছিয়ে থাকা প্রতিপক্ষকে ফলোঅন করানোর সিদ্ধান্ত নেন তিনি। বিশাল ব্যবধানে পিছিয়ে থাকা দলটাকে টেনে তোলেন পিনাক ঘোষ। ৪টি ছক্কা ও ১৪টি চারে ১৩৯ বলে ১২১ রান করে রানআউট হয়ে ফিরতে হয়েছে তাকে। শুরুটা ভালো হয়েছিল প্রথম ইনিংসে ৭১ করা মোহাম্মদ আশরাফুলেরও। দ্বিতীয় ইনিংসে ২৭ বলে ২৮ করার পর তিনিও কাটা পড়েছেন রানআউটে।

হাতে ৫ উইকেটে রেখে ৩২৩ রানে আজ শেষ দিন শুরু হবে পূর্বাঞ্চলের। দলকে পথ দেখাচ্ছেন সেঞ্চুরির সুবাস পাওয়া আফিফ হোসেন ধ্রুব। ৯৩ রানে শেষ দিনে খেলতে নামবেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

এদিকে সিলেটে জমে ওঠার অপেক্ষায় মধ্যাঞ্চল বনাম উত্তরাঞ্চলের ম্যাচ। অধিনায়ক শুভাগত হোমের ১২২ রানে মধ্যাঞ্চলের দ্বিতীয় ইনিংস থামে ৩২৫ রানে। তাতে উত্তরাঞ্চলের সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ৩৩০ রান। ব্যাট করতে নেমে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৫৬ রানে দিন শেষ হয়েছে উত্তরের। শেষ দিনে ম্যাচ জিততে হলে আরো ১৭৪ করতে হবে নাঈম ইসলামের দলকে। ৫৪ রান নিয়ে উইকেটে টিকে আছেন লেগস্পিনিং অলরাউন্ডার তানভীর হায়দার।

 

 

"