বায়ার্নের পথের কাঁটা লাইপজিগ

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

জার্মান বুন্দেসলিগার চলতি মৌসুমে কঠিন পরীক্ষার মুখে চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখ। নেপথ্যে মাত্র ১১ বছর আগে প্রতিষ্ঠিত হওয়া আরবি লাইপজিগ। ১৮ ম্যাচে ৪০ পয়েন্ট নিয়ে এই মুহূর্তে লিগ টেবলের শীর্ষে লাইপজিগ। লিগে এখন পর্যন্ত মাত্র দুটি ম্যাচ হেরেছে তারা। জিতেছে ১২টি, ড্র করেছে ৪টি ম্যাচে। সমসংখ্যক ম্যাচ খেলে ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে বায়ার্ন।

এই মৌসুমে রূপকথার মতোই নাটকীয় উত্থান লাইপজিগের। ২০১৬-১৭ মৌসুমেও শিরোপাধারী বার্য়ানকে তাড়া করেছিল পূর্ব জার্মানির ক্লাবটি। যদিও শেষ পর্যন্ত বাভারিয়ানদের সঙ্গে দৌড়ে পেরে ওঠেনি। তবে লিগ রানার্সআপ হয়ে ঠিকই উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে জায়গা করে নিয়েছে। ইউরোপীয় ক্লাব ফুটবলের সর্বোচ্চ প্রতিযোগিতায় লাইপজিগ এখন নিয়মিত দল। অথচ বছর আটেক আগেও তারা ছিল পঞ্চম ডিভিশনে।

লাইপজিগের এমন ঈর্ষণীয় সাফল্যের মূল কারিগর ৩২ বছর বয়সি ম্যানেজার ইউলিয়ান নাগেলসমান। তিনি এবার মুখোমুখি হবেন হোসে মরিনহোর টটেনহাম হটস্পারের। গত বছর লাইপজিগের দায়িত্ব নেওয়া নাগেলসমান পেপ গার্দিওলার কোচিংয়ের বড় ভক্ত। ম্যানচেস্টার সিটির স্প্যানিশ কোচের মতোই আকর্ষণীয় তার রণনীতি। হার না মানার দৃঢ় মানসিকতা আর শিষ্যদের সঙ্গে সুসম্পর্ক তার সাফল্যের অন্যতম রহস্য। দলের প্রাণভোমরা টিমো ভেরনারকে ধরে রাখতেও বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন তিনি। চলতি মৌসুমে ইউরোপের ফুটবলবোদ্ধারাও বিস্মিত লাইপজিগের দুর্দান্ত ফুটবল দেখে।

বুন্দেসলিগায় চলতি মৌসুমে প্রথম দেখায় বায়ার্ন মিউনিখের বিরুদ্ধে ১-১ গোলে ড্র করেছিল লাইপজিগ। অথচ ওই ম্যাচের আগে ফুটবল প-িতরা নাগেলসমানের দলকে পাত্তাই দেননি। জানিয়েছিলেন, বায়ার্নের সামনে দাঁড়াতেই পারবে না লাইপজিগ। ম্যাচ শুরু হওয়ার ৩ মিনিটের মধ্যেই রবার্ট লেভানডফস্কির গোলে এগিয়ে যায় বায়ার্ন। পিছিয়ে পড়েও হাল ছাড়েননি লাইপজিগের ফুটবলারেরা। প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার আগেই পেনাল্টি থেকে গোল করে সমতা ফেরান এমিল ফর্সবার্গ। গোল না পেলেও সেই ম্যাচে লেভানডফস্কিকে ছাপিয়ে গিয়েছিলেন টিমো ভেরনার। আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি ফিরতি ম্যাচে বায়ার্নের মুখোমুখি হবে লাইপজিগ। ম্যাচটা বায়ার্নের ঘর অ্যালিয়াঞ্জ এরিনায় হতে চলায় এবার লাইপজিগের সামনে আরো কঠিন চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে। অনেকের ধারণা, এই ম্যাচটাই বুন্দেসলিগার নতুন রাজা নির্ধারণ করে দেবে।

 

"