অনায়াস জয়ে সিরিজ পাকিস্তানের

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বাংলাদেশের ইনিংসের সময় মনে হচ্ছিল ব্যাটিং করা পৃথিবীর সবচেয়ে কষ্টসাধ্য কাজ। খানিক বাদে সেই একই উইকেটে পাকিস্তানের ব্যাটিং দেখে মনে হলো আরে ব্যাটিং এত সহজ!

লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে কাল বাংলাদেশের খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলার ম্যাচ পাকিস্তান জিতল অনায়াসে, ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে। তখনো বাকি ম্যাচের ২০ বল। এতে টানা দুই ম্যাচ জিতে টি-টোয়েন্টি নিজেদের করে নিল পাকিস্তান। আগামীকাল নিয়ম রক্ষার শেষ ম্যাচটায় পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়ে দেখতেই পারে স্বাগতিক টিম ম্যানেজমেন্ট।

আর বাংলাদেশ? প্রথম দুই ম্যাচে যাচ্ছেতাই ব্যাটিং-নির্বিষ বোলিং-বাজে ফিল্ডিং, এমনকি খেলোয়াড়দের শারীরিক ভাষাতেও কেমন যেন একটা ক্লান্তির ছাপ। সবকিছুতেই ভুল আর ভুল। শনিবারের প্রেক্ষাপট মোটামোটি শুক্রবারের মতোই। কেবল খানিকটা এদিক-সেদিক হলো গল্প। তামিম ইকবাল ফিফটি পেলেন। সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে দলের হয়ে সবচেয়ে বেশি রান করলেন। কিন্তু তার রান তোলার যে গতি, সেটাই সমালোচনার জন্য যথেষ্ট! একজন ওপেনার ইনিংসের ১৮ ওভার পর্যন্ত খেলে কেন ৫৩ বলে মাত্র ৬৫ রান করবেন? তার স্বার্থপর ব্যাটিংয়ে গোটা বাংলাদেশকে দেখাল আরো বিবর্ণ, আরো কাহিল, আরো এলোমেলো। পরশু ব্যাটিংয়ে মলিন থাকলেও বোলাররা দেখিয়েছিলেন লড়াইয়ের ঝাঁজ। কাল আর তাও হলো না। উল্টো বাবর আজম, মোহাম্মদ হাফিজের দুই ফিফটিতে একপেশে ম্যাচে মাহমুদউল্লাহর দল হারল দৃষ্টিকটুভাবে।

শনিবার বলার মতো কোনো জুটিই গড়তে পারেনি বাংলাদেশ। ঠিক অন্যদিকে বাংলাদেশের ১৩৬ রান তাড়া করতে নেমে বাবর আজম ও মোহাম্মদ হাফিজ দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে হার না মানা ১৩১ রান করেন। ব্যাটিংয়ের শুরুতে পাকিস্তান উইকেট হারালেও বাবর আজম ও মোহাম্মদ হাফিজের ব্যাটিংয়ের সময় কখনোই মনে হয়নি এই ম্যাচে পাকিস্তানের জয় ছাড়া অন্য কিছু হতে যাচ্ছে। আহসান ৭ বল খেলেও রানের খাতা খুলতে পারেননি। শফিউল ইসলামের বলে মাহমুদউল্লাহকে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন। এরপরের গল্পটা বাবর-হাফিজের। দুজনেই হার না মানা হাফসেঞ্চুরি হাঁকিয়ে দলকে ৯ উইকেটের সহজ জয় এনে দেন।

ভঙ্গুর এবং দিকনির্দেশনাহীন ব্যাটিংয়ের পর বাংলাদেশের বোলিংটা যা হলো তাকে এককথায় বলা যায় ছন্নছাড়া। ফিল্ডিংয়ে ক্লান্তিতে কাঁধ নুয়ে পড়া একটা দলের প্রতিচ্ছবি ছিল বাংলাদেশ। উইকেটের পেছনে বিশাল দস্তানা হাতেও লিটন দাস যে কায়দায় ক্যাচ ফেললেন, তাতে মনে হচ্ছিল যেন ভীষণ এক অনীহা নিয়ে পাকিস্তানে খেলতে গেছেন তিনি।

এক ম্যাচ হাতে রেখে পাকিস্তান টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতল। নিয়ম রক্ষার তৃতীয় ও শেষ ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে আগামীকাল। টাইগারদের যা অবস্থা, তাতে আরেকটা হোয়াইটওয়াশ নিয়ে দেশে ফেরা সময়ের ব্যাপার বলেই মনে হচ্ছে।

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বাংলাদেশ : ১৩৬/৬, ২০.০ ওভার

পাকিস্তান : ১৩৭/১, ১৬.৪ ওভার

ফল : পাকিস্তান ৯ উইকেটে জয়ী

ম্যাচসেরা : বাবর আজম (পাকিস্তান)

সিরিজ : পাকিস্তান ২-০ তে এগিয়ে

 

"