উৎকণ্ঠার সিরিজ শুরু আজ

প্রকাশ : ২৪ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

অনেক জল্পনা-কল্পনার অবসান হয়েছে। জল অনেক দূর গড়ানোর পর বাংলাদেশ গেল পাকিস্তান সফরে। পরশু রাতে টাইগাররা পা রেখেছে লাহোর বিমানবন্দরে। নিñিদ্র নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে বিমানবন্দর থেকে টিম হোটেল। সেখান থেকে কাল সকালে ২০ ওভারের সিরিজ মিশনে নেমে পড়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ অ্যান্ড কোং।

আজ শুরু হচ্ছে বহুল আলোচিত বাংলাদেশ-পাকিস্তান টি-টোয়েন্টি সিরিজ। টাইগাররা শুধু এই সিরিজটাই পাকিস্তানের মাটিতে খেলতে চেয়েছিল। টেস্ট সিরিজ চেয়েছিল নিরপেক্ষ ভেন্যুতে; হয়তো মরুর বুকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে। কিন্তু পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) কাছে কূটনৈতিক লড়াইয়ে হেরে গেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

দুবাইয়ে আইসিসি সভাপতি আইসিসি সভাপতি শশাঙ্কা মনোহর দুই দেশের বিবাদটা মিটিয়ে দিয়েছে। তাতে খালি চোখে আলোচনার টেবিলে হেরেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। দলকে সাহস জোগাতে আজ লাহোর স্টেডিয়ামে থাকার কথা তারও। বোর্ডের কয়েকজন পরিচালকও দলের সঙ্গে পাকিস্তানে গিয়েছেন। তাদের উপস্থিতি মাহমুদউল্লাদের অনুপ্রাণিত করতে পারবে তো?

কারণ শঙ্কা আর ভয়টা যে পাকিস্তানের নিরাপত্তা ব্যবস্থা। পাকিস্তানের সর্বোচ্চ স্তরের নিরাপত্তা যেমন বাংলাদেশ দলকে নির্ভার করছে তেমনি কিছুটা আতঙ্কেও রাখছে। টাইগার দলপতি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ অবশ্য এসব কিছু মাথা থেকে ঝেরে ফেলেছেন। তার ভাবনায় এখন শুধুই আজ থেকে শুরু হওয়া টি-টোয়েন্টি সিরিজ।

বাংলাদেশ অধিনায়ক পেশাদার। সংবাদ সম্মেলনে তার এমন ভাবনার প্রতিফলনটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বাস্তবতা ভিন্নÑ ২০ ওভারের সিরিজ ছাপিয়ে পাদপ্রদীপে থাকল অজানা এক আতঙ্ক। পরশু রাতে লাহোর দল পৌঁছানোর পরই খেলোয়াড়দের চোখে-মুখে দেখা গেল আতঙ্কের ছাপ।

অধিনায়ক হিসেবে মাহমুদউল্লাহ পুরো দলকে নির্ভার করার প্রয়াস চালাচ্ছেন। পরিস্থিতি বিবেচনায় সেটাই এখন শ্রেয়। কারণ এমনিতেই মাঠের খেলায় পাকিস্তানের চেয়ে যোজন যোজন পিছিয়ে। খেলা হবে প্রতিপক্ষের ডেরায়। র‌্যাংকিং, ইতিহাস, শক্তি, সামর্থ্যÑ তথা সার্বিক দিকেই এগিয়ে পাকিস্তান। তাই সিরিজ থেকে চোখ সরানোর বিকল্প নেই।

বাংলাদেশ দল আল্লামা ইকবাল বিমানবন্দরে পৌঁছানোর সঙ্গে সঙ্গেই যেন ক্রিকেট উৎসব লেগে গেছে লাহোরসহ গোটা পাকিস্তানে। এই সিরিজটা স্থানীয় দর্শকদের জন্য উৎসবের প্রেক্ষাপট তৈরি করেছে। উৎসব চলবে কয়েক দফা।

পাকিস্তানের সবচেয়ে বড় ভরসার নাম অধিনায়ক বাবর আজম। ব্যাট হাতে দারুণ ছন্দে আছেন তিনি। এই সিরিজেও তার ব্যাটের দিকে তাকিয়ে থাকবেন পাকিস্তানিরা। গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে টস করার আগে কিছুটা হলেও আবেগ ছুঁয়ে যাবে স্বাগতিক অধিনায়ক বাবরকে। কারণ লাহোরের এই মাঠেই একটা সময় বল-বয় হিসেবে তার উপস্থিতি ছিল। আজ এখানেই দেশকে নেতৃত্ব দেবেন ‘লোকাল বয়’। স্বাগতিকদের আশা দেখাচ্ছেন তরুণরাও। বিশেষ করে হারিস রউফ।

সম্প্রতি বিগ ব্যাশ লিগে নিজের জাত চিনিয়েছেন রউফ। নিয়মিতই ১৪৫ কিলোমিটার/ঘণ্টা গতিতে বোলিং করেছেন। মাত্র ৭ ম্যাচে শিকার করেছেন ১৬ উইকেট, যার মধ্যে আবার একটা হ্যাটট্রিকও ছিল। তার এই আগুন ঝরানো ফর্মকে অবমূল্যায়ন করেননি পাকিস্তানের প্রধান কোচ ও নির্বাচক মিসবাহ উল হক। টাইগারদের বিপক্ষে গতির ঝড় তুলতে ডেকে পাঠিয়েছেন দাবানলে পুড়তে থাকা দেশ অস্ট্রেলিয়া থেকে। সব ঠিক থাকলে আজই অভিষেক হতে পারে ২৬ বছর বয়সি পেসারের।

 

"