মায়াঙ্কের ব্যাটে রান পাহাড়ের পথে

প্রকাশ : ১১ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

টেস্ট ক্রিকেটে ডাবল সেঞ্চুরি করা যেকোনো ব্যাটসম্যানেরই স্বপ্ন। আগের ম্যাচে সেই স্বপ্ন ছুঁয়ে দেখেছেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টেও শতকের নিñিদ্র পথে হাঁটলেন ভারতীয় ওপেনার। মায়াঙ্কের ‘ব্যাক টু ব্যাক’ শতকের ওপর দাঁড়িয়ে পুনে টেস্টের প্রথম ইনিংসে বড় সংগ্রহের ভিত পেয়েছে ভারত।

মহারাষ্ট্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে কাল টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে প্রথম দিনের খেলা শেষে ৩ উইকেটে ২৭৩ রান করেছে বিরাট কোহলির দল। মায়াঙ্ক ফিরেছেন সেঞ্চুরির পরপরই। চেতেশ্বর পুজারা আউট হয়েছেন অর্ধশতকের পর। হাফসেঞ্চুরি করেছেন কোহলিও। দিন শেষে অজেয় আছেন ভারতের সর্বাধিনায়ক।

১০টি চারে ৬৩ রানে অপরাজিত থাকা কোহলির ব্যাটে কার্যত রান-পর্বত গড়ার আশায় আছে স্বাগতিকরা। আজ দ্বিতীয় দিনের শুরুর জুটিতে তাকে ফের সঙ্গ দেবেন অজিঙ্কা রাহানে। কাল আদর্শ টেস্ট মেজাজে ব্যাট করেছেন তিনি। ৭০ বলে ৩টি চারে ১৮ রানে টিকে আছেন রাহানে। ৩৫ বলে ১৪ রানে সাজঘরে ফিরে গেছেন বিশাখাপত্তম টেস্টের জোড়া সেঞ্চুরিয়ান রোহিত শর্মা।

গতকাল ভারতের ২৫ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙে রোহিতের বিদায়েই। এরপর পুজারাকে নিয়ে এগোতে থাকেন মায়াঙ্ক। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে তারা যোগ করেন ১৩৮ রান। ব্যক্তিগত ৫৮ রানে পুজারা ফিরলে বিচ্ছিন্ন হয় জুটি। ১১২ বলের ইনিংসে ৯টি চার ও ১টি ছক্কা মেরেছেন তিনে নামা পুজারা। দলীয় সংগ্রহ ২০০ এর কাছাকাছি যেতে রোহিত-পুজারাদের পথ ধরেন মায়াঙ্ক। এরপরই কোহলি-রাহানে ৭৫ রানের অবিচ্ছেদ্য জুটিতে দিন পার করেন। বৃষ্টি ও আলোকস্বল্পতার কারণে কাল খেলা হয়েছে ৮৫.১ ওভার। দিনের পুরোটা সময় ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা দক্ষিণ আফ্রিকান বোলারদের সবটুকু বিষ শুষে নিয়েছেন। প্রোটিয়াদের মধ্যে সফল কেবল কাগিসো রাবাদা। ভারতের তিনজনকেই সাজঘরে পাঠিয়েছেন এই স্পিডস্টার।

অসম লড়াইয়ের দিনের অধিকাংশ সময় কেটেছে ম্যাড়মেড়েভাবে। ঘুমন্ত টেস্ট হঠাৎই জাগিয়ে তোলেন মায়াঙ্ক। ৮৭ থেকে সেঞ্চুরি করতে তিনি সময় নিয়েছেন মাত্র ৩ বল। পরপর দুই ছক্কায় ৯৯ করা ভারতীয় ওপেনার পরের বলেই মেরেছেন চার। টেস্ট ক্রিকেটে এভাবে সেঞ্চুরি করতে খুব কমই দেখা যায়। দিন শেষে উৎফুল্ল মায়াঙ্কের ভাষ্য, ‘টানা শতকের দেখা পেয়ে ভীষণ খুশি। আমি বাজে বলের জন্য অপেক্ষা করেছি, যতটা সম্ভব সোজা ব্যাটে খেলেছি। দল খুব ভালো অবস্থানে রয়েছে। ওদের চাপে ফেলতে হলে ৪৫০-৫০০ রান করতে হবে।’

"