দুই দফা ফেল করেও ‘উত্তীর্ণ’ আশরাফুলরা

প্রকাশ : ০৭ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

এসএসসি কিংবা এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল বের হওয়ার পর এ প্লাস পাওয়া শিক্ষার্থীরা যেমন বিজয় চিহ্ন দেখায়, তেমন বিজয়ের একটা হাসি ফুটে উঠল মোহাম্মদ আশরাফুল, আবদুর রাজ্জাক, মোহাম্মদ শরীফ, নাসির হোসেন, ইলিয়াস সানিদের মুখে।

সিনিয়র ক্রিকেটারদের শরীরি ভাষায় স্বস্তির বহিঃপ্রকাশ স্পষ্ট। জাতীয় ক্রিকেট লিগে (এনসিএল) খেলার ছাড়পত্র তাহলে মিলল। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) বেঁধে দেওয়া বিপ টেস্টে অবশেষে দ্বিতীয়বারের চেষ্টায় এই সিনিয়র ক্রিকেটাররা উত্তীর্ণ হলেন। তবে তাদের এই পাস নিয়ে ছোট্ট একটা ‘কিন্তু’ আছে। শুরুতে বিসিবি ফিটনেস পাসের জন্য বেঞ্চমার্ক স্থির করেছিল ১১ তে। কিন্তু প্রথম দফার ফিটনেস টেস্টে এই সিনিয়র ক্রিকেটারদের কেউ সেই পাস মার্ক তুলতেই পারেননি।

ফলে পাস করার জন্য দ্বিতীয় দফা সুযোগ দেওয়া হয় তাদের। শুধু তাই নয়, পাস মার্কও কমিয়ে আনা হয় ১০ এ। কাল সকালে ছিল আশরাফুল-নাসিরদের সেই দ্বিতীয় দফা পরীক্ষা দিতে বসার সময়। বিসিবির ইনডোরে এই ফিটনেস টেস্টে এবার সব সিনিয়র ক্রিকেটারই পাস করলেন ‘জিপিএ ১০’ তুলে। সিনিয়র ক্রিকেটারদের ফিটনেসে এই মৌসুমে বিসিবি কিছুটা ছাড় দেবেÑ সেই ইঙ্গিত নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন কিছুদিন আগেই দিয়ে রেখেছিলেন। সেই সুযোগটা কাজে লাগিয়ে আশরাফুল, নাসির, রাজ্জাক, শরীফরা কাল বিসিবি থেকে ফিরছেন হাসিমুখে। হাতে তাদের ‘জিপিএ-১০’ এর সার্টিফিকেট।

তবে সিনিয়রদের এই তালিকায় সবচেয়ে চওড়া হাসিটা ওপেনার ইমরুল কায়েসের। বিপ টেস্টে ১১ স্কোর নিয়েই ফিটনেস টেস্টে জয়ী হয়েছেন তিনি। সব ঠিকঠাক থাকলে আগামী ১০ অক্টোবর থেকে শুরু হচ্ছে ৮ বিভাগের জাতীয় ক্রিকেট লিগ।

 

"