হেভিওয়েটদের রাত

প্রকাশ : ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো কতটা ভয়ংকর হতে পারেন, সেটার আরেকটা নমুনা দেখা গেল। পরশু রাতে পর্তুগিজ যুবরাজের সেই রুদ্রমূর্তিটা দেখল লিথুয়ানিয়া। একটি নয় দুটি নয়, লিথুয়ানিয়ার জালে চার চারবার বল পাঠিয়েছেন জুভেন্টাস উইঙ্গার। তাতে রীতিমতো বিধ্বস্ত ইউরোপের খর্বশক্তির দলটি।

রোনালদোর অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্সে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাইপর্বে জয়ের ধারা অব্যাহত রাখল পর্তুগাল। এদিন ঘরের মাঠ লিসবনে ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে লিথুয়ানিয়াকে ৫-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। প্রথম দুই ম্যাচে ড্র করা পর্তুগাল এনিয়ে বাছাইপর্বে টানা দুই ম্যাচে জিতল। আট পয়েন্ট নিয়ে তারা এখন টেবিলের দুয়ে। পাঁচ ম্যাচে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে যথারীতি শীর্ষে আছে ইউক্রেন।

সাত মিনিটে পেনাল্টি থেকে শুরু হয় রোনালদোর গোলবন্যা। মাঝে একটা লম্বা বিরতি। এ সময় ম্যাচের ২৮ মিনিটে পর্তুগালের জালে বল জড়িয়ে লিথুয়ানিকে সমতায় ফেরান ভিতাতাস আন্দ্রিসকিভিচিউস। ১-১ সমতায় নিয়েই বিরতিতে যায় দুই দল। বিরতি থেকেই ফিরেই শুরু রোনালদো ‘শো’। ১৫ মিনিটের ব্যবধানে জুভেন্টাস প্রাণভোমরা করলেন তিন গোল!

৬১ মিনিটে দ্বিতীয়বার পর্তুগালকে এগিয়ে দেন রোনালদো। চার মিনিট পর করলেন জাতীয় দলের হয়ে অষ্টম হ্যাটট্রিক। ৭৬ মিনিটে স্কোর লাইন ৪-১ করেন ‘সিআর সেভেন’। দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে লিথুয়ানিয়ার কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন উইলিয়াম কারভালহো। তার আগেই রোনালদোকে মাঠ তুলে নেন পর্তুগিজ কোচ ফার্নান্দো সান্তোস।

মাঠ ছাড়ার আগে পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার করেছেন পর্তুগালের হয়ে ৯৩তম গোল।

অন্যদিকে জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। পরশু অ্যান্ডোরাকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে ফরাসিরা।

ফ্রান্সে ম্যাচের ১৮তম মিনিটে কোমানের গোলে এগিয়ে যায় গতবারের রানার্সআপ ফ্রান্স। ১০ মিনিট পর পেনাল্টি মিস করে ব্যবধান দ্বিগুণ করার সুযোগ নষ্ট করেন গ্রিজমান।

বিরতির পর ম্যাচের ৫২তম মিনিটে আর সুযোগ নষ্ট করেননি ল্যাঙ্গলেট। তার গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ফরাসিরা। যোগ করা সময়ে ইয়েদের গোল করলে ৩ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ফ্রান্স। এ জয়ে ৬ ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে তারা।

এদিকে শতভাগ জয়ের ধারা ধরে রেখেছে ইংল্যান্ড। পরশু কসোভোকে ৫-৩ গোলে হারিয়েছে গ্যারেথ সাউথগেটের দল। চার ম্যাচের চারটিই জিতে ১২ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে ইংল্যান্ড। পাঁচ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে চেক রিপাবলিক।

 

ফলাফল

লিথুয়ানিয়া ১-৫ পর্তুগাল

ফ্রান্স ৩-০ অ্যান্ডোরা

ইংল্যান্ড ৫-৩ কসোভো

 

"