সাকিব ভক্তের কাণ্ড

প্রকাশ : ০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

ব্যাটসম্যান প্রস্তুত, বল করবেন সাকিব আল হাসান। এরই মধ্যে দৃশ্যপটে আরেকজন। গ্যালারি থেকে মাঠে নেমে গেলেন এক দর্শক। ছুটে গেলেন ২২ গজের দিকে সাকিবের কাছে। স্যালুট দিয়ে নাটকীয়ভাবে বাড়িয়ে দিলেন হাতে থাকা ফুল। এরপর চাইলেন জড়িয়ে ধরতে।

আফগানিস্তান ইনিংসের ১০৭তম ওভার সেটি। কাল চট্টগ্রাম টেস্টের দ্বিতীয় দিনে সাকিবের প্রথম ওভার। চতুর্থ ডেলিভারির আগে ওই ঘটনা। দৌড়ে সাকিবের কাছে গিয়ে স্যালুট দিয়ে হাঁটু গেড়ে ফুল বাড়িয়ে ধরলেন ওই দর্শক। সাকিব গ্রহণ করলেন উপহার।

এরপরই বিপত্তি। ওই দর্শক এগিয়ে গিয়ে জড়িয়ে ধরতে চাইছিলেন। সাকিব স্বাভাবিকভাবেই চাইছিলেন এড়াতে। হাত দিয়ে ওই দর্শককে বিরত হতে বললেন তিনবার। তখনো দেখা নেই মাঠের কোনো নিরাপত্তাকর্মীর। একটু পর দেখা গেল একজন নিরাপত্তাকর্মীকে ছুটে আসতে। ততক্ষণে ওই দর্শকের বারংবার অনুরোধে সাকিব তাকে জড়িয়ে ধরেছেন কিছুক্ষণের জন্য। এরপর আরো দুই থেকে তিনজন নিরাপত্তাকর্মী এলেন। ওই দর্শককে টেনে নিয়ে গেলেন মাঠের বাইরে।

মাঠে ঢুকে পড়া তরুণ ভক্তের নাম-পরিচয় অবশ্য পরে জানা গেছে। ফয়সাল আহমেদ নামের ওই সাকিব ভক্তের বাসা চট্টগ্রাম নগরীর এনায়েত বাজারে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা মেজর (অব.) হোসেন ইমাম অবশ্য পরিষ্কার করে বলতে পারলেন না মাঠে কীভাবে, কোন পাশ দিয়ে ঢুকে পড়েছেন ফয়সাল, ‘আমরা তদন্ত করে দেখছি। তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। সে পাহাড়তলী থানা পুলিশের হেফাজতে আছে।’

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এমন ঘটনা অবশ্য নতুন কিছু নয়। প্রিয় খেলোয়াড়কে আলিঙ্গন করতে কিংবা তার সঙ্গে সেলফি তুলতে ভক্তদের মাঠে ছুটে আসার ঘটনা আগেও দেখা গেছে। ২০১৬ সালে আফগানিস্তানের বিপক্ষেই বাংলাদেশের ওয়ানডে ম্যাচে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে গ্র্যান্ড স্ট্যান্ড থেকে এক দর্শক ছুটে গিয়েছিলেন মাশরাফি বিন মর্তুজাকে জড়িয়ে ধরতে। ওই ঘটনায় তখন হইচই হয়েছিল অনেক। নিরাপত্তা প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছিল ব্যাপকভাবে। পুলিশে দেওয়া হয়েছিল ওই দর্শককে। গ্যালারিতে বাড়তি বেড়াও লাগানো হয়েছিল। এরপর কিছুদিন মাঠের নিরাপত্তায় একটু কড়াকড়ি ছিল। পরে আবার আলগা হয়ে পড়ে সময়ের সঙ্গে। আবার নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠে গত বছর সিলেটে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের টেস্ট সিরিজে। মুশফিকুর রহিমকে জড়িয়ে ধরতে পরপর দুই দিন মাঠে ঢুকে যায় দর্শক। এবারও যথেষ্ট শোরগোল পড়ে। বাড়ানো হয় নিরাপত্তা। যথারীতি সময়ের সঙ্গে আবারও ঢিল পড়ে যায় নিরাপত্তায়। যেটির প্রমাণ গতকালের ঘটনা। হোসেন ইমাম অবশ্য এবারও আশ্বাস দিয়েছেন, মাঠের নিরাপত্তা জোরদার করা হচ্ছে।

"