ওয়ানডে সিরিজও ভারতের

প্রকাশ : ১৬ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

বিরাট কোহলি যেন ভিন্ন ধাতুতে গড়া। চাপের মুখেও তার ব্যাট হামেশাই চওড়া হয়, আর লক্ষ্য তাড়ার ক্ষেত্রে তার জুড়ি মেলা ভার। বুধবার রাতে ক্রিকেট বিশ্ব আরেকবার দেখল চেজিং মাস্টারের ব্যাটের ধার। পোর্ট অব স্পেনে ভারতকে অত্যন্ত কঠিন লক্ষ্যমাত্রা ছুড়ে দিয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তবে টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে বিরাট কোহলি দূর করে দিয়েছেন সব শঙ্কা। টি-টোয়েন্টির পর ভারতকে ওয়ানডে সিরিজও জিতিয়েছেন বিরাট। তার অধিনায়কোচিত দৃঢ়তায় কঠিন কাজটাকে অতি সহজেই শেষ করতে পেরেছে টিম ইন্ডিয়া। বুধবার বৃষ্টিবিঘিœত দিনে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৩৫ ওভারে ৭ উইকেটের বিনিময়ে ২৪০ রান তোলে। আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে ঝড়ো হাফসেঞ্চুরি করেন ক্রিস গেইল। তাকে যোগ্য সহায়তা করেন এভিন লুইস। পরে আরেকটি ক্যামিও খেলেন নিকোলাস পুরান। খলিল আহমেদ খরুচে প্রমাণিত হলেও দলের হয়ে সর্বাধিক ৩টি উইকেট লাভ করেন। মোহাম্মদ শামি ৫০ রানে ২টি উইকেট দখল করেন। এছাড়া ১টি করে উইকেট নিয়েছেন যুজবেন্দ্র চাহাল ও রবিন্দ্র জাদেজা। উইকেট না পেলেও ৪ ওভারে মাত্র ১৩ রান দেন কেদার যাদব।

ক্যারিবিয়ান ইনিংসের মাঝপথে প্লেয়িং কন্ডিশন বদলে যাওয়ায় ডাকওয়ার্থ-লুইস-স্টার্ন নিয়মে ভারতের সামনে জয়ের লক্ষ্যমাত্রা দাঁড়ায় ২৫৫। তবে ১৫ বল বাকি থাকতেই ৪ উইকেটের বিনিময়ে ২৫৬ রান তুলে ম্যাচ ও সিরিজ জিতে যায় ভারত। হার না মানা শতরান করেন কোহলি। দলনায়ককে সঙ্গ দিয়ে অনবদ্য হাফসেঞ্চুরি করেন শ্রেয়াস আইয়ার। ফ্যাবিয়ান অ্যালেন ছাড়া নজরকাড়া বোলিং করতে পারেননি ওয়েস্ট ইন্ডিজের আর কেউই। ফলে তৃতীয় ওয়ানডে জয়ের সুবাদে ভারত তিন ম্যাচের সিরিজ ২-০ তে নিজেদের করে নেয়। গায়ানার জর্জটাউনে সিরিজের প্রথম ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছিল। অবশ্য জবাব দিতে নেমে ভারতীয় ইনিংসের শুরুটা যথাযথ হয়নি। ওপেনার রোহিত শর্মা মাত্র ১০ রান করে দুর্ভাগ্যজনক রান আউটের শিকার হন। তবে শিখর ধাওয়ানকে সঙ্গে নিয়ে কোহলি প্রাথমিক বিপর্যয় রোধ করেন। ধাওয়ান ৩৬ বলে ৩৬ রান করে আউট হন। চার নম্বরে ব্যাট করতে এসে আরেকবার ব্যর্থ হন রিষভ প্যান্ট। ‘গোল্ডেন ডাক’ মেরে নতশিরে প্যাভিলিয়নে ফেরেন এই তরুণ। তবে দ্বিতীয় ম্যাচের মতো এই ম্যাচেও শ্রেয়াস আইয়ার কোহলির দিকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন। দুজনে মিলে ১২০ রান যোগ করার পর আইয়ার ফেরেন ব্যক্তিগত ৬৫ রানে। ৪১ বলের ইনিংসে শ্রেয়াস ৩টি চার ও ৫টি ছক্কা মারেন। পরে ভারত অধিনায়কই কেদার যাদবকে সঙ্গে নিয়ে দলের জয় নিশ্চিত করেন। প্রত্যাশিতভাবেই ম্যাচসেরার পাশাপাশি সিরিজসেরার পুরস্কারও ওঠে কিং কোহলির হাতে।

দুই দলের টেস্ট সিরিজ শুরু হবে ২২ আগস্ট থেকে। দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথমটি মঞ্চস্থ হবে অ্যান্টিগার স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস স্টেডিয়ামে।

 

"