বাফুফের আয়ের উৎস হলুদ কার্ড!

প্রকাশ : ১০ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) ফুটবল থেকে আয়ের দারুণ এক উৎস পেয়েছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। এক ম্যাচে নির্দিষ্ট পরিমাণ হলুদ কার্ড দেখলেই জরিমানা করা হয়েছে ক্লাবগুলোকে। এ খাত থেকে সদ্য সমাপ্ত লিগ থেকে বাফুফে আয় করেছে ১ লাখ ৯০ হাজার টাকা।

বাফুফের এই উপার্জনে সবচেয়ে বেশি ‘সহযোগিতা’ করেছে টিম বিজেএমসি। সর্বোচ্চ ৭০ হাজার টাকা জরিমানা গুণেছে তারা। এর পরে ধারাবাহিকভাবে সাইফ স্পোর্টিং ৪০ হাজার, রহমতগঞ্জ ও নোফেল স্পোর্টিং ৩০ হাজার এবং মোহামেডান ও শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র দিয়েছে ১০ হাজার টাকা করে।

প্রশ্ন হলো- এই জরিমানার নিয়ম কী? কোনো দল এক ম্যাচে সর্বনি¤œ চারটি হলুদ কার্ড দেখলে ওই ম্যাচের জন্য ১০ হাজার টাকা জরিমানা গুণতে হবে। এবারের প্রিমিয়ার লিগে পয়েন্ট টেবিলে তলানিতে থেকে অবনমন হয়েছে বিজেএমসি ও নোফেলের। কিন্তু হলুদ কার্ড দেখায় সবার ওপরে তারা। লিগে সবচেয়ে বেশি ৪৯টি করে হলুদ কার্ড দেখেছে অবনমিত এই দুই দল। ফেয়ার প্লে ট্রফি জেতা শেখ রাসেলের হলুদ কার্ড ২৩টি। তাদের চেয়ে একটি কম হওয়ায় সর্ব নি¤œ কার্ড দেখেছে ব্রাদার্স ইউনিয়ন (২২)। রহমতগঞ্জের হলুদ কার্ড ৪৫টি, সাইফ স্পোর্টিং পেয়েছে ৪৪টি, মোহামেডান ৩৯টি। ঢাকা আবাহনী, চট্টগ্রাম আবাহনী ও আরামবাগ এ কীর্তিতে সমান-৩৪টি হলুদ কার্ড। এছাড়া শেখ জামালের হলুদ কার্ড ২৮টি, চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস ২৭টি এবং মুক্তিযোদ্ধা ২৫টি হলুদ কার্ড দেখেছে।।

হলুদ কার্ডে দুই অবনমিত দল বিজেএমসি ও নোফেল সবার ওপরে থাকলেও লাল কার্ডে তাদের হারিয়ে দিয়েছে সাইফ স্পোর্টিং। সবচেয়ে বেশি ৪টি লাল কার্ড দেখেছে পয়েন্ট টেবিলের চতুর্থ স্থানে থাকা দলটি। বিজেএমসি ২ টি। আবাহনী, শেখ জামাল, ব্রাদার্স, আরামবাগ, রহমতগঞ্জ, মুক্তিযোদ্ধা, শিরোপাধারী বসুন্ধরা কিংস পেয়েছে ১টি করে লাল কার্ড।

"