সেমিফাইনালে ফেদেরার-নাদাল

প্রকাশ : ১২ জুলাই ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

সুদীর্ঘ ১১ বছর পর উইম্বলডন সেমিফাইনালে রজার ফেদেরারের মুখোমুখি হতে চলেছেন নাদাল। শেষবার তারা কোর্টে একে অপরের সঙ্গে লড়েছেন ২০০৮ সালে। গত মাসে ফরাসি ওপেন সেমিফাইনালে ফেদেরারকে হারিয়েছে আত্মবিশ্বাসী নাদাল। ডেভিড গফিনকে সরাসরি সেটে হারিয়ে উইম্বলডনের সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছেন প্রতিযোগিতার শীর্ষ বাছাই, গতবারের চ্যাম্পিয়ন নোভাক জকোভিচ।

এদিকে বুধবার রাতে স্যাম কুয়েরিকে ৭-৫, ৬-২ ও ৬-২ সেটে হারিয়ে সপ্তমবার উইম্বলডনের সেমিফাইনালে উঠেছেন বিশ্বের দুই নম্বর রাফায়েল নাদাল। অন্যদিকে, জাপানের কেই নিশিকোরিকে হারিয়ে উইম্বলডনের সেমিফাইনালে উঠেছেন আটবারের চ্যাম্পিয়ন ফেদেরার। এই নিয়ে ১৩ বার উইম্বলডনের সেমিফাইনালে উঠলেন ফেদেরার। এদিন আরো একটি নজিরও গড়েছেন কিংবদন্তি এই টেনিস তারকা। কোয়ার্টার ফাইনালে নিশিকোরিকে হারিয়ে, উইম্বলডনের ১০০তম ম্যাচ জিতলেন। আর কারো এই নজির নেই। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনেও সবচেয়ে বেশি ম্যাচ (৯৭) জেতার রেকর্ড ফেদেরারের দখলে রয়েছে। এই নিয়ে ৯ বার উইম্বলডন সেমিফাইনালে খেলেতে চলেছেন জোকোভিচ। সেমিফাইনালে উঠার পথে তিনি সময় নেন ১ ঘণ্টা ৫৭ মিনিট। বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে ২৩ নম্বরে থাকা গফিনের বিরুদ্ধে তার স্কোরলাইন ৬-৪, ৬-০, ৬-২। শেষ চার নিশ্চিত করলেও সেরেনা উইলিয়ামকে কোর্টের ক্ষতি করার জন্য গুনতে হয়েছে ১০ হাজার ডলার জরিমানা। অল ইংল্যান্ড ক্লাবে টুর্নামেন্ট শুরুর আগে র‌্যাকেট দিয়ে কোর্টে ঠোকার জন্য এই জরিমানা। সেরেনা অ্যালিসন রিস্কেকে ৬-৪, ৪-৬, ৬-৩ লড়াই করে হারিয়েছেন। অন্য ম্যাচে চীনের জ্যাং সুয়াইকে ৭-৬ (৭-৪) ও ৬-১ হারিয়ে শেষ চারে পৌঁছান সিমোনা হালেপ। রোমানিয়ার সাবেক বিশ্বের এক নম্বর হালেপ শেষবার এস ডব্লিউ নাইন্টিনের শেষ চারে পৌঁছেছিলেন ২০১৪ সালে। শেষ চার নিম্ছিত হওয়ার পর হালেপ বলেছেন, ‘প্রথম সেটে আমি মারাত্মক লড়াই করি। সে সময় আমি ১-৪ পিছিয়ে ছিলাম। আমি জানতাম, সে মারাত্মক শক্তিশালীভাবে শট মারছে। আমি নিজেও বেশ জোরের সঙ্গে রিটার্ন করেছি। তবে আমি কোর্টে ঢোকামাত্রই আত্মবিশ্বাসী ছিলাম। ঘাসের কোর্টে এটাই আমার সেরা টেনিস।’

 

"