ছিটকে গেলেন বার্টি ও বিস্ময়কন্যা কোকো

প্রকাশ : ১০ জুলাই ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

উইম্বলডন অধ্যায় শেষ হলো বিস্ময় কিশোরী কোরি গফের। থেমেছে তার স্পন্দিত-নন্দিত-উদ্বেলিত সাবলিল দ্বৈত রথ। তাকে হারিয়েছেন সিমোনা হালেপ। ঠিক এমন দিনেই ছিটকে গেছেন বিশ্বের এক নম্বর অস্ট্রেলিয়ান অ্যাশলে বার্টি। তিনি হেরেছেন আমেরিকার অ্যালিসন রিস্কের কাছে। অন্য ম্যাচে, রাফায়েল নাদাল, সেরেনা উইলিয়ামস ও রজার ফেদেরার স্বচ্ছন্দে জিতে নিশ্চিত করেছেন পরের রাউন্ড।

উইম্বলডনের সেন্টার কোর্টে সিমোনা-কোরি ম্যাচকে ঘিরে বিপুল উত্তেজনা-আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছিল। গ্যালারি ভরে উঠেছিল কানায় কানায়। কিন্তু দুরন্ত ফর্মে থাকা মার্কিন কিশোরী কোরি গফকে এই ম্যাচে খুঁজে পেতে কষ্ট হয়েছে। প্রাক্তন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন সিমোনা হালেপ তাকে পাত্তাই দেননি। হারিয়েছেন সরাসরি সেটে। সোয়া এক ঘণ্টার লড়াইয়ে কোরির সব প্রতিরোধ বিস্ময় সার্ভকে সরিয়ে হালেপ কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছেন ৬-৩ ও ৬-৩ স্কোরলাইন নিয়ে। ১৯৯১ সালে জেনিফার ক্যাপ্রিয়াতির পর কনিষ্ঠতম খেলোয়াড় হিসেবে উইম্বলডনে মেয়েদের সিঙ্গলসে চতুর্থ রাউন্ডে উঠেছিলেন পনেরো বছরের কোকো।

ওই দিন অন্যতম অঘটন নাম্বার ওয়ান অ্যাশলে বার্টির ছিটকে যাওয়া। বিশ্বের ৫৫ নম্বর রিস্কে শুরুতে বিশ্বের এক নম্বর বার্টির কাছে এক সেটে পিছিয়ে ছিলেন (৩-৬)। কিন্তু পরে দুই সেটে ৬-২, ৬-৩ জিতে ম্যাচ অঘটন ঘটিয়ে ফেলেছেন রিস্কে। এক ঘণ্টা ৩৬ মিনিটের লড়াইয়ে এই হারের আগে পর্যন্ত ফরাসি ওপেন চ্যাম্পিয়ন বার্টি একটা সেটও খোয়াননি। কিন্তু, পরশু মধ্যরাতে একেবারে ছন্দপতন। রিস্কের সামনে পরের রাউন্ডে সেরেনা উইলিয়ামস। যিনি এ দিন ৬-২, ৬-২ হারালেন কার্লা সুয়ারেস নাভারোকে।

জয়ের পর ২৯ বছরের রিস্কে বলছেন, ‘আমি ঠিক বলে বোঝাতে পারব না, এই জয় আমার কাছে কী রকম। যেভাবে বাধা কাটিয়ে আমি এই পর্যায় পর্যন্ত এসেছি, তার জন্য আমি খুবই উত্তেজিত। আমি সত্যিই উইম্বলডনের প্রেমে পড়ে গিয়েছি।’ অন্যদিকে বার্টি বলছেন, ‘আমি শুরুটা ভালো করেছিলাম। যেভাবে খেলার কথা, সেভাবেই খেলি। দ্বিতীয় সেটে আমার সার্ভিস ঠিকমতো হয়নি। যে কারণেই ডুবলাম।’

এদিন মেয়েদের সিঙ্গলসে উল্লেখযোগ্য জয় পেলেন সিমোনা হালেপ। যিনি ৬-৩, ৬-৩ হারালেন কোকো গফকে। পরের রাউন্ডে বারবোরা স্ট্রাইকোভা, এলিনা স্বিতোলিনা। ছেলেদের সিঙ্গলসে উল্লেখযোগ্য জয় রাফায়েল নাদালের। তিনি ৬-২, ৬-২ ও ৬-২ হারিয়েছেন পর্তুগিজ জোয়াও সোওসাকে। পরের রাউন্ডে রবের্তো বউতিস্তা আগুত, ডেভিড গফিন।

পারেননি এই ধাপ থেকে উতরাতে দুবারের উইম্বলডন চ্যাম্পিয়ন কিতোভা। তাকে হারালেন (৪-৬, ৬-২ ও ৬-৪) জোহানা কোন্টা। সেই সঙ্গে বিদায় নিলেন ক্যারোলিনা প্লিসকোভা। তাকে হারিয়েছেন দেশের ক্যারোলিনা মুচোভা (৪-৬, ৭-৫ ও ১৩-১১)।

ছেলেদের সিঙ্গলসে রজার ফেদেরার মাত্র ১ ঘণ্টা ১৩ মিনিটে ৬-১, ৬-২ ও ৬-২ স্কোরলাইনে হারিয়েছেন মাতেও বেরেত্তিনিকে।

 

"