মাশরাফির আক্ষেপ সাকিবের জন্য

প্রকাশ : ০৭ জুলাই ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

সেমির ট্রেন মিস করা বাংলাদেশ শুরুর মতোই শেষটা রাঙাতে পাকিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল। কিন্তু ফিল্ডিং আর ব্যাটিং ব্যর্থতায় শেষ পর্যন্ত হারের স্বাদ নিয়েই এবারের বিশ্বকাপ মিশন শেষ করতে হলো টাইগারদের।

তবে বাংলাদেশ তার লক্ষ্যে পৌঁছাতে না পারলেও, বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান ছিলেন তার নিজস্ব গতিতে। তাই তো তাকে সহযোগিতা করতে না পারার আক্ষেপটা ঝেরেছেন অধিনায়ক মাশরাফিও। খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে দলের পারফরম্যান্স হতাশা প্রকাশের পাশাপাশি সাকিবের জন্য কিছু করতে না পারার আক্ষেপ প্রকাশ করলেন অধিনায়ক মাশরাফি। চলতি বিশ্বকাপ ইতিহাসের সেরা অলরাউন্ড পারফরম্যান্সে নিজেকে রাঙিয়েছেন সাকিব। ব্যাট হাতে ৬০৬ রান ও বল হাতে ১১ উইকেটের দারুণ পারফরম্যান্স তার। শুধু তাই নয়, এই রান করে বিশ্বকাপের ইতিহাসেও দুজনকে ছাড়াতে পারেনি সাকিব। ৮ ম্যাচে ৮৬ দশমিক ৮৭ গড়ে ৯৬ দশমিক ০৩ স্ট্রাইকরেটে সাকিব এই রান করেছেন। প্রথম স্থানে থাকা শচীন ১১ ম্যাচে করেছিলেন ৬৭৩ রান, অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার ম্যাথু হেইডেন ১০ ম্যাচে ৬৫৯ রান। বিশ্বকাপে সাকিবের এমন অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের পরও তার দলের সেমিফাইনালে না যাওয়াটা সত্যিই বিস্ময়ের। অধিনায়কও তাই এড়িয়ে যেতে পারলেন না বিষয়টি।

মাশরাফি বলেন, এই মুহূর্তে সাকিবের জন্য খারাপ লাগছে। বিশ্বকাপটাকে ও নিজের করে নিয়েছে। সাকিব যেভাবে খেলেছে, এরপরও আমাদের সেমিতে উঠতে না পারাটা সত্যিই হতাশাজনক।

তিনি বলেন, একটা দলের খেলোয়াড় এমন পারফরম্যান্স করলে স্বাভাবিকভাবেই তারা সেমিফাইনাল খেলবে। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত আমরা পারিনি।’ কেন পারেননি তারও ব্যাখ্যাও দিয়েছেন মাশরাফি, ‘যখন রান করার দরকার ছিল, যখন ক্যাচ ধরার দরকার ছিল, যখন ফিল্ডিংটা ভালো হওয়া জরুরি ছিলÑ তার কিছুই আমরা করতে পারিনি। সাকিবের জন্য সত্যিই খারাপ লাগছে। এমন পারফরম্যান্স করে সে এখান থেকে বাড়ি ফেরাটা ডিজার্ভ করে না।’ এর আগে ভারতের বিপক্ষে হেরে আসর থেকে ছিটকে পড়ে বাংলাদেশ। ভেস্তে যায় সেমির স্বপ্ন। সর্বশেষ ম্যাচে জয়ের প্রাপ্তি নিয়েই বাড়ি ফিরতে চেয়েছিল টাইগাররা। সে আশাও ব্যাটিং ব্যর্থতায় ভেস্তে গেছে। ফলে, শূন্য হাতে ফিরতে হচ্ছে সাকিবদের। বিশ্বকাপের চলতি আসরে মাশরাফিদের প্রাপ্তি বলতে তাই, সাকিব আল হাসানের অনবদ্য পারফরম্যান্স আর কাটার মাস্টার মুস্তাফিজের বোলিং। তবে আজ ঢাকার উদ্দেশ্যে ইংল্যান্ড ছাড়বে টাইগার বাহিনী।

 

 

"