ইংল্যান্ডের কাঁটা হতে পারে আফগানরা

প্রকাশ : ১৮ জুন ২০১৯, ০০:০০

আরিফ সোহেল

আজ ফের ওল্ড ট্রাফোর্ডে লড়াই। একদিকে ক্রিকেটের বড় ভাই; অন্যদিকে ছোট। বড় ভাই ক্রিকেটের জন্মভূমি স্বাগতিক ইংল্যান্ড। অন্যদিকে ছোট ভাই ক্রিকেটের নবীনতম দল, আলোচনার টেবিলের ‘তেজীঘোড়া’ আফগানিস্তান। যদিও আফগানি তেজীভাব এখনো দেখা যায়নি। তারা ল-ভ- করতে পারেনি কারো সাজানো বাগান। তবে আজ তেমন কিছু ঘটবে নাÑ এমনটা ক্রিকেটীয় পরিভাষায় নেই। ইংল্যান্ড ৪ ম্যাচে ৩ জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে রয়েছে টপ চারে। আর তলানিতে থাকা আফগানিস্তানের সমানসংখ্যক ম্যাচে শূন্য পয়েন্ট। একদিকে অন্যতম ফেভারিট ইংল্যান্ড; অন্যদিকে জয়হীন আফগানিস্তানের লড়াইয়েও কিন্তু বৃষ্টি হানা দিতে পারে। তেমন আভাস দিয়ে রেখেছেন ভূ-প্রকৃতিবিদরা। তবে ম্যাচ ভেসে যাওয়ার সম্ভাবনা নেই। শুধু চোখ রাঙানি থাকার বিষয়টি রয়েছে। ম্যাচ শুরু হবে আজ বিকেল সাড়ে ৩টায়। আয়োজক দেশ হিসেবে ইংল্যান্ড এবারের বিশ্বকাপে অন্যতম ফেভারিট। এ নিয়ে পঞ্চমবারের জন্য বিশ্বকাপ আয়োজন করছে ইংল্যান্ড। এখনো পর্যন্ত তিনবার ফাইনাল খেলেছে ইংল্যান্ড। কিন্তু একবারও বিশ্বকাপ শিরোপা ছুঁয়ে দেখতে পারেনি। এবারের বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের ব্যাটিং লাইনআপে ওপেনার হিসেবে যেমন রয়েছেন জেসন রয়-জনি বেয়ারস্টো; তেমনই মিডল-অর্ডারে রয়েছেন বাটলার, মরগান, জো রুটের মতো দক্ষ ব্যাটসম্যানরা। যদিও আজকের ম্যাচে জেসন রয়-ওয়িন মরগানের খেলা হচ্ছে না। সেই অভাব পূরণ হতে পারে জোফরা আর্চার, ক্রিস ওকস, মইন আলি ও বেন স্টোকসের মতো বিশ্বমানের অলরাউন্ডারে। ব্যাটিং শক্তির জায়গা হলেও বোলারদের ব্যাপারে আলাদা করে ভাবতে হচ্ছে ইংল্যান্ডকে।

এটা নিশ্চিত হয়ে গেছে জেসন রয় বিশ্বকাপের আগামী ২ ম্যাচ খেলতে পারবেন না। শুধু আজকের ম্যাচেই নয়; শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেও তিনি থাকবেন ড্রেসিংরুমে। স্ক্যান করে জানা গেছে, তার হ্যামস্ট্রিং ইনজুরিটা মন্দ নয়। তবে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তাকে দলে ফেরানোর কথা ভাবছে দল। ১৪ জুন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ম্যাচে চোট পেয়েছিলেন রয়। তবে ওয়িন মরগানের অবস্থা মোটামুটি স্থির। তাকে ২৪ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণ রেখেছে টিম ম্যানেজমেন্ট। আজ টসের আগে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথাই ভাবছে ইংল্যান্ড। প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান হলেও এই ম্যাচটি অন্য সব ম্যাচের মতোই ইংল্যান্ডের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু মাঠে নামার আগে ইয়ন মরগান এবং জেসন রয়ের অনুপস্থিতির কথা টিম ম্যানেজমেন্টকে ভাবতেই হচ্ছে, যা তাদের জন্য চাপ হয়ে যেতে পারে।

বিশ্বকাপে শুধু পাকিস্তানের কাছে হারলেও ইংল্যান্ড রয়েছে নিজস্ব কক্ষপথেই। তবে আয়োজক দলটির দুশ্চিন্তা বাড়াচ্ছে দলের দুই অপরিহার্য সদস্যের ইনজুরি। এ অবস্থায় কঠিন খবর হচ্ছে সহ-অধিনায়ক জস বাটলারও কিন্তু ইনজুরির কারণে বাংলাদেশের বিপক্ষে উইকেটের পেছনে দায়িত্ব পালন করতে পারেননি। এখন শতভাগ ফিট জানিয়েছেন নিজেই। বাটলার বলেছেন, ‘অবশ্যই আমরা এগিয়ে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছি। দলের ১৫ জন সদস্যই সমান যোগ্যতা রাখে। যে কারণে একাদশ বাছাইয়ে আমাদের বেশ সমস্যায় পড়তে হয়।’ বাটলার আরো বলেছেন, ‘একই সঙ্গে উইকেটরক্ষক ও অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করা কোনো সমস্যা নয়। দেশকে নেতৃত্ব দেওয়া অবশ্যই সম্মানের, আর সে কাজটি ভালোভাবেই করতে চাই।’ তার ভাষ্য, ‘আমরা মরগানের অধীনে দীর্ঘদিন খেলেছি। আমি মনে করি সে একজন দুর্দান্ত অধিনায়ক। সহ-অধিনায়ক হিসেবে তার কাছ থেকে কিছুটা হলেও শেখার চেষ্টা করি। ম্যাচ সম্পর্কে তার সঙ্গে আমার অনেক কথা হয়। আমাদের চিন্তাধারার মধ্যে বেশ মিল রয়েছে। তিনি দলে না থাকাটা আমাদের দলের জন্য মন্দ খবর। সে ক্ষেত্রে দলের প্রয়োজনে আমি নেতৃত্ব দিতে প্রস্তুত।’ অবশ্য এর আগেও জস বাটলার ইংল্যান্ডকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। এই ম্যাচে পরপর ৪ ম্যাচ হারা আফগানিস্তান খেলবে অল-আউট ক্রিকেট। যেন তাদের জয়-পরাজয়ে কিচ্ছু এসে যায় না। ফলে আগ্রাসী হয়ে উঠতে পারে দলটি। আফগানিস্তানের বোলিং সেটআপটা মন্দ নয়। কিন্তু ব্যাটিংটা হচ্ছে না। আফগান অধিনায়ক গুলবাদিন নাইব হারের বৃত্ত থেকে বেরিয়ে আসার জন্য জানবাজি রেখে লড়াই করবেন। বলেছেন, ‘আমরা একটা নতুন দল, অভিজ্ঞতা কম। তাই অনেক গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে আমরা চাপ সামলাতে পারিনি।’

 

"