পাত্তাই পেল না ওয়েস্ট ইন্ডিজ

প্রকাশ : ১৫ জুন ২০১৯, ০০:০০

সাহিদ রহমান অরিন

ম্যাচের বয়স সবে আধঘণ্টা পেরিয়েছে। ব্যাটিংয়ে ত্রিস গেইল। চলছিল অষ্টম ওভার। জোফরা আর্চারের দ্বিতীয় ডেলিভারিটাকে কাভারের ওপর দিয়ে ঠেলে দিয়ে রানের জন্য ছুটেন গেইল ও হোপ। দৌড়ে বলটাকে তাড়া করলেন জেসন রয়। তার নিখুঁত থ্রোতে দুই রান নেওয়ার সাহস দেখাননি দুই ব্যাটসম্যান। কিন্তু থ্রোটা করতে গিয়েই বিপদ ডেকে আনেন রয়। বাম পায়ে হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে তৎক্ষণাৎ মাঠ ছাড়তে হয় ইংলিশ ওপেনারকে। পরে ড্রেসিং রুম থেকে জানানো হয়, ফিল্ডিংয়ে আর নামতে পারবেন না রয়।

ফিল্ডিংয়ে ইংলিশদের দুর্দশার গল্প এখানেই শেষ নয়। ৪০তম ওভারে পিঠের পুরোনো চোটটা হঠাৎ মাথাচাড়া দিয়ে ওঠায় মাঠ ছাড়তে বাধ্য হন অধিনায়ক ওয়িন মরগানও। ইংরেজভক্তদের মনে ভয়ের শুরু তখন থেকেই। সাউদাম্পটনের এজিয়াস বোলে উপস্থিত ১৭ হাজার দর্শকের মনে তখন একটাই প্রশ্ন, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে নামতে পারবেন তো রয় ও মরগান?

কিন্তু যে দলটা তিনশোকে অভ্যাসে পরিণত করেছে, তাদের সোয়া দুইশোরও কম টার্গেট দিলে কি আর রয়-মরগানকে লাগে? দুই ব্যাটিং স্তম্ভকে দরকার পড়েওনি। উল্টো বোলিং অলরাউন্ডার ক্রিস ওকসকে প্রোমোশন করিয়ে ক্যারিবীয়দের দেওয়া ২১৩ রানের ‘মামুলি’ লক্ষ্যটা ৮ উইকেট আর ১০১ বল অক্ষত রেখেই ছুঁয়ে ফেলেছে ইংল্যান্ড। টানা দুই জয়ে চিরশত্রু অস্ট্রেলিয়াকে সরিয়ে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে স্বাগতিকরা।

এদিন হোল্ডার বাহিনীর সর্বনাশের গল্প লেখেন জো রুট। বল হাতে ২ উইকেট শিকারের পর ব্যাট হাতে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ষোড়শ শতক তুলে নিয়েছেন তিনি। ভক্তদের ‘সাময়িক’ ভয়কে জয়ে রূপদান করে ১০০ রানে অপরাজিত থাকেন রুট। প্রত্যাশিতভাবে ম্যাচসেরার পুরস্কারটাও লুফে নেন ইংল্যান্ডের টেস্ট অধিনায়ক।

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ওয়েস্ট ইন্ডিজ : ২১২ অলআউট, ৪৪.৪ ওভার; পুরান ৬৩, হেটমায়ার ৩৯; উড ১৮/৩, আর্চার ৩০/৩

ইংল্যান্ড : ২১৩/২, ৩৩.১ ওভার; রুট ১০০*, বেয়ারস্টো ৪৫; গ্যাব্রিয়েল ৪৯/২; ফল : ইংল্যান্ড ৮ উইকেটে জয়ী; ম্যাচসেরা : জো রুট (ইংল্যান্ড)

 

"