জন্মভূমির বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে আবেগহীন আর্চার!

প্রকাশ : ১২ জুন ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জের বার্বাডোজে জন্ম জোফরা আর্চারের। ক্যারিবীয় অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে তিনটি ম্যাচও খেলেছেন। সময়ের বিবর্তনে সেই আর্চার এখন ইংল্যান্ডের প্রধান পেস অস্ত্র। বিশ্বকাপে শুক্রবার ইংল্যান্ড বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ লড়াই। এই ম্যাচ দিয়েই প্রথমবার জন্মভূমির বিপক্ষে খেলতে নামবেন আর্চার। অথচ ম্যাচটা নিয়ে বিন্দুমাত্র আবেগ নেই ২৪ বছর বয়সি ফাস্ট বোলারের। উল্টো জানিয়েছেন, শুক্রবারের মহারণটা তার কাছে আর পাঁচটা সাধারণ ম্যাচের মতো!

এ বছরের গোড়ায় ইংল্যান্ডের হয়ে খেলার জন্য মনোনীত হন আর্চার। বাবা ব্রিটিশ নাগরিক হওয়াতে ইংল্যান্ডের হয়ে খেলার ক্ষেত্রে অর্পিত শর্তসমূহ শিথিল করে ইসিবি। শনিবার কার্ডিফে বাংলাদেশের বিপক্ষে তিন উইকেট নেন ২৯ রানে। ইংল্যান্ড যে ম্যাচ জেতে অনায়াসে। শুক্রবার ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচেও আর্চারকে ঘিরে ইংলিশদের তাই যাবতীয় প্রত্যাশা। ম্যাচ নিয়ে তরুণ পেসার বলেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচ আমার কাছে আলাদা হবে কেন? বাংলাদেশ ম্যাচের মতোই। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সবাইকে ভালো মতো জানি। ওদের অনূর্ধ্ব-১৯ দলে এখনকার অনেকের সঙ্গে খেলেছি। তাই ওদের বিপক্ষে খেলতে নামাটা আমার কাছে মজার অভিজ্ঞতা হবে।’

বাংলাদেশের বিপক্ষে সৌম্য সরকারকে বোল্ড করা আর্চারের বলটা স্টাম্পে লেগে সোজা বাউন্ডারির বাইরে গিয়ে পড়ে, যা দেখে বিস্মিত ক্রিকেটবিশ্ব। নিয়মিত তিনি ঘণ্টায় ১৫০ কিলোমিটার বেগে বল করেন। যে কারণে অনেকে তার সঙ্গে বিশ্বসেরা পেসারদের তুলনা করছেন। সৌম্যকে আউট করা বল নিয়ে জোফরার ভাষ্য, ‘ব্যাপারটায় নিজেও অবাক হয়েছি। এ ধরনের যে হতে পারে, সেটা প্রথম দেখলাম। আগে একবার দেখেছিলাম একটা বল ব্যাটসম্যানের হেলমেটে লেগে ছয় হতে। কিন্তু এ রকম অভিজ্ঞতা প্রথম। ঘটনাচক্রে সেই বোলার যে আমি, নিজে তা ভেবে বেশ অবাক হয়েছি।’

শুধু আর্চার নন। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে শতক হাঁকানো টাইগার অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানও বলেছেন, ‘মনে হয় না, এই বিশ্বকাপে ওর থেকে জোরে বোলিং অন্য কেউ করছে।’ ইংল্যান্ড দলে আর্চারের সঙ্গে মার্ক উডের বন্ধুত্বসুলভ লড়াইয়ের কথা অনেকে টেনে এনেছেন। আর্চার বিষয়টা নিয়ে মজা করে বলেছেন, ‘আমার বলের গতি উডির (মার্ক উড) থেকে একটু হলেও বেশি।’

 

"