মেসুত ওজিল-মিস তুর্কি বিয়ের পিঁড়িতে

প্রকাশ : ১০ জুন ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

বিয়ে সম্পন্ন করেছেন জার্মান জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক মিডফিল্ডার এবং আর্সেনালের তারকা ফুটবলার মেসুত ওজিল। শুক্রবার সাবেক মিস তুর্কি অ্যামিনে গালসের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন। অনুষ্ঠানে নামিদামি অতিথিরা আমন্ত্রিত ছিলেন। আমন্ত্রিত ছিলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়িপ এরদোয়ান। তার সঙ্গে ছিলেন স্ত্রী ও ফার্স্টলেডি এমিনি এরদোয়ান। তুরস্কের ইস্তাম্বুলে বসফরাস নদীর তীরে একটি বিলাসবহুল হোটেলে ওজিল-গালসের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছে।

২০১৪ সালে মিস তুর্কি খেতাব জয়ী অ্যামিনে গালস একজন অভিনেত্রীও। ২৫ বছর বয়সী সুইডিশ বংশোদ্ভূত মডেল তুরস্কের টেলিভিশন সিরিজে অভিনয় করে ইতোমধ্যেই ব্যাপক সুনাম কুড়িয়েছেন। বেশ কয়েক দিন ধরেই ওজিলের সঙ্গে তার সম্পর্ক। প্রায় সময়ই ডেটিংয়ে দেখা গেছে তাদের।

ওজিল-গালস দম্পতির মধ্যে দারুণ একটি মিল আছে। ওজিলের জন্ম জার্মানিতে। খেলেছেন জার্মান জাতীয় ফুটবল দলের হয়ে। কিন্তু ওজিল তুর্কি বংশোদ্ভূত। গালসের ব্যাপারটিও তাই। জন্ম সুইডেনে। কিন্তু তার শেকড় তুরস্কে।

২০১৭ সালের মার্চে বাগদান হয়েছিল ওজিল-গালসের। ওই সময় গালসের হাতের আঙুলে আংটিও দেখা গেছে। এরপর বিভিন্ন সময় তাদের একসঙ্গে সময় কাটাতে দেখা গেছে। ওজিল-গালসের বিয়েতে এরদোয়ানকে প্রধান অতিথি হিসেবে নিমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। যদিও জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মেরকেলের চিফ অব স্টাফ হেল্গ ব্রাউন অসন্তুষ্টি জানিয়ে বলেছেন, ‘একবার এরদোয়ানের সঙ্গে ছবি তুলে সমালোচিত হওয়ার পর ফের ওজিলের এই কাজ আরো সমালোচনার সৃষ্টি করবে।’

এই এরদোয়ানের জন্যই অকালে জাতীয় দল থেকে অবসর নিতে হয় ওজিলকে। ঘটনার সূত্রপাত ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে। গেল বছর বিশ্বকাপের আগে তুরস্কের রাষ্ট্রপতির সঙ্গে ছবি তুলেছিলেন ওজিল ও তার জার্মান সতীর্থ ইলকাই গুন্ডোগান, যা পছন্দ হয়নি জার্মান সমর্থকদের। পড়েছিলেন বিস্তর সমালোচনার মুখে। ওজিল ও গুন্ডোগান তুরস্কের বংশোদ্ভূত হওয়ায় তাদের বিপক্ষে জার্মানির প্রতি ভালোবাসা নেইÑ এমন অভিযোগ তুলেছিলেন সমর্থকরা। এরপর রাশিয়া বিশ্বকাপের প্রথম পর্ব থেকেই জার্মানি বিদায় নিলে ‘অসম্মান ও স্বজাতিকতা’ অভিযোগ তুলে জাতীয় দল থেকে অবসরের ঘোষণা দেন ওজিল। সূত্র : গোলডটকম

 

"