এক স্লিপ

প্রকাশ : ০৯ জুন ২০১৯, ০০:০০

অনলাইন ডেস্ক

সন্দেহ

উইকেটে রানের বন্যা বইবে কথা ছিল এমন। কিন্তু বিশ্বকাপে ২০০ থেকে ২৫০ রান করতেও ঘাম ছুটছিল এই কয়েক দিন। তবে গতকাল সেই রানের খড়া কেটেছে। ইংলিশরা রানে ভরিয়ে দিয়েছেন কার্ডিফ। ব্যাটসম্যানদের রীতিমতো চাপে থাকতে হচ্ছিল রানের জন্য। পাকিস্তান প্রথম ম্যাচে ১০৫ রানে অলআউট। শ্রীলঙ্কা কার্ডিফে ১৩৬ রানে শেষ। তবে ১০ ম্যাচ পরও আইসিসি পিচ নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিল না। বরং তারা সব ক্রেডিট দিয়েছেন বোলারদের। তারা বলেছিল সামনের ম্যাচে রান দেখা যাবে। অবশেষে হয়েছে তাই। ইংল্যান্ড তুলেছে ৩৮৬ রান। বিশ্বকাপের আগে বাজনা বাজছিল, এবার টার্গেট ৫০০ রানও অতিক্রম করবে। ভারত অবশ্য প্রথম ম্যাচের পর বলেছে, বিশ্বকাপে এমন অদ্ভুত উইকেট হবে তারা দুঃস্বপ্নেও ভাবেননি। তবে আগের পিচে এই কার্ডিফেই শ্রীলঙ্কা তুলেছিল ২০১। বৃষ্টি বিঘিœত ম্যাচে আফগানিস্তান ১৫২ রানেই গুটিয়ে যায়।

টোটকা

বুমরাকে বধ করার টোটকা দিয়েছে পিটারসন। ভারতের অপ্রতিরোধ্য যশপ্রিত বুমরাকে অনেকেই বিশ্বকাপের বাজি মানছেন। ভারত শিরোপা পেতে পারে ওই বুমরাকে ঢাল বানিয়ে। তার গতি, সুইংয়ের সঙ্গে বাউন্সের মিশলে সামলানো কঠিন। দক্ষিণ আফ্রিকায় জন্ম নেওয়া ইংল্যান্ডের ক্রিকেটার পিটারসেন বুমরাকে সামলানোর উপায় বাতলে দিয়েছেন। তবে তা শুধু ডান-হাতি ব্যাটসম্যানদের জন্য। বলেছেন, ‘ডান-হাতি ব্যাটসম্যানদের জন্য একটি ছোট উপদেশ। বুমরার বিপক্ষে অফস্টাম্প গার্ড নিয়ে খেলো। চেষ্টা করো সোজা অথবা স্কয়ার লেগ ফিল্ডারের মধ্যে রান বের করার। অফস্টাম্পে একটি বলও খেলো না। তা হলেই বুমরা যাদু শেষ।’ প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১০ ওভার বল করে ৩৫ রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়ে বুমরা কেন স্পেশাল তা বুঝিয়ে দিয়েছেন। ৫০ ওয়ানডেতে উইকেট সংখ্যা ৮৭।

"