‘ভুটান বিপর্যয়’ আর চায় না বাংলাদেশ

প্রকাশ : ২৫ মে ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

কাতার বিশ্বকাপের প্রাক বাছাই পর্বে বাংলাদেশের সামনে লাওস। আসছে ৬ জুন ভিয়েনতিয়েনে স্বাগতিকদের বিপক্ষে অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলবে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। ফিরতি ম্যাচ ঢাকায় ১১ জুন। তার আগে থাইল্যান্ডে ১০ দিনের ক্যাম্পে অংশ নেবে দল। সে লক্ষ্যে গতকাল বিকালে ব্যাংককের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছেন জামাল ভূঁইয়া-মামুনুল ইসলামরা। তবে এবার আর ‘ভুটান বিপর্যয়’ চান না ফুটবলাররা।

থাইল্যান্ডে প্রস্তুতি ক্যাম্পের মাঝে থাই লিগের দুটি ক্লাবের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। ২৮ মে এয়ার ফোর্স ইউনাইটেড ফুটবল ক্লাব আর ১ জুন ব্যাংকক প্লাস পাথুম ইউনাইটেডের মুখোমুখি হবেন জেমি ডের শিষ্যরা। দুটি ক্লাবই গেল মৌসুমে থাই লিগ-১ থেকে নেমে গেছে থাই লিগ-২ তে।

৩ জুন লাওসের উদ্দেশে রওনা দেবে লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। তার আগেই ফিটনেস কোচ সিমন্স জেন্স মেল্টবাই ও সহকারী কোচ স্টুয়ার্ট পল ওয়াটকিস থাইল্যান্ডে দলের সঙ্গে যুক্ত হবেন। এদিকে, ম্যানচেস্টার সিটির সাবেক তারকা গোলরক্ষক রবার্ট অ্যান্ড্রু মিমসকে গোলরক্ষক কোচ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে বাফুফে। লাওস ম্যাচ পর্যন্তই দলের সঙ্গে যুক্ত থাকবেন তিনি।

আপাতত দেশীয় ফুটবলভক্তদের পুরো মনোযোগ এখন কাতার বিশ্বকাপের প্রাক বাছাই পর্বে। চূড়ান্ত বাছাই পর্বে খেলার আশা টিকে থাকবে লাওসকে হারালেই। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকা লাওস (১৮৪) ঘরের মাঠে বড় পরীক্ষাই নেবে বাংলাদেশের (১৮৮)। তবে এই চাপের মধ্য দিয়েই খেলতে হবে লাল-সবুজ জার্সিধারীদের।

আশার বাণী হলো গত দুই বছরে একটা ম্যাচও জিততে পারেনি লাওস। ২০১৮ ও ২০১৯ সাল মিলিয়ে ১০ ম্যাচ খেলেছে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দলটি। কিন্তু জয়টা অধরাই রয়ে গেছে তাদের। গত বছর বাংলাদেশের সঙ্গে দুইবারের সাক্ষাতে ঘরের মাটিতে ২-২ ব্যবধানে ড্র আর বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপে ১-০ ব্যবধানে হেরেছিল লাওস। ওই দুই ম্যাচের ফল বাড়তি আত্মবিশ্বাস যোগাবে লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের। অন্যদিকে, এই দুই বছরে লাওস ছাড়াও কম্বোডিয়া ও ভুটানকে হারিয়েছে বাংলাদেশ। গত বছর অনূর্ধ্ব-২৩ এশিয়ান গেমসে ইতিহাস গড়ে নকআউট পর্বেও পা রেখেছিলেন জামাল ভূঁইয়ারা।

তবে ভয়ের কারণও আছে। গতবার ভুটানের কাছে হেরেই আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে পৌনে দুই বছরের জন্য নির্বাসনে যেতে হয়েছিল বাংলাদেশ জাতীয় দলকে। এবার তার পুনরাবৃত্তি চান না ফুটবলাররা। দেশ ছাড়ার আগে অধিনায়ক জামাল গণমাধ্যমকে বলেন, ‘ভুটানের কাছে হেরে অনেক দিন খেলার বাইরে ছিল জাতীয় দল। তবে সেবার আমি দলে ছিলাম না। এবার এমনটা চাই না। বিশ্বকাপের মূল বাছাই পর্বে যেতে চাই। আমরা আত্মবিশ্বাসী।’

 

"