পাইবাস বরখাস্ত

উইন্ডিজের কোচ রেইফার

প্রকাশ : ১৩ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

সিদ্ধান্তটা এক সপ্তাহ আগেই নিয়ে রেখেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড (সিডব্লিউআই)। সব বিকল্প ঠিকমতো ভেবেচিন্তে তারপরেই সেটা বাস্তবায়ন করল তারা। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের কয়েক সপ্তাহ বাকি থাকতে কোচের পদ থেকে সরিয়ে দিল রিচার্ড পাইবাসকে।

পরিবর্তনের ডাক দিয়ে গত মাসে সিডব্লিউআইয়ের নতুন প্রধান হয়েছেন রিকি স্কেরিত্ত। কথামতো কাজও শুরু করে দিয়েছেন। প্রথম পরিবর্তনটা আনলেন পাইবাসকে সরিয়ে দিয়ে। ক্যারিবীয়দের সঙ্গে দুই মেয়াদে কাজ করে একাধিক বিতর্কের জন্ম দেওয়া ইংলিশ কোচ সরে যাওয়ায় দলে ফেরার পথটা সুগম হবে উপেক্ষিত ক্রিকেটারদের জন্য।

পাইবাসের স্থলে আপদকালীন কোচ করা হয়েছে ক্যারিবিয়ান সাবেক অধিনায়ক ফ্লয়েড রেইফারকে। আপদকালীন প্রধান নির্বাচকের পদে বসানো হয়েছে রবার্ট হেইন্সকে। পাইবাসের সঙ্গে প্রধান নির্বাচকের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে কোর্টনি ব্রাউনকেও। সদ্য বিদায়ী প্রধান ডেভিড ক্যামেরন আমলের নির্বাচকদের সবাইকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

পরশু বিবৃতিতে পাইবাসকে বরখাস্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে সিডব্লিউআই। আর রেইফার ও হেইন্সকে যার যার পদে বসিয়ে রীতিমতো উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন নতুন বোর্ড প্রধান স্কেরিত্ত, ‘দল নির্বাচনের ক্ষেত্রে আমরা ঠিক যে ধরনের দর্শন মেনে চলি হেইন্স তার সঙ্গে ভালোভাবেই মানিয়ে যায় বলে আমার বিশ্বাস। রেইফারও একই বিশ্বাসে বিশ্বাসী। এবার আমাদের ক্রিকেটারদের সঙ্গে বল প্রয়োগ করা থামবে বলে আমার মনে হয়।’

আগামী জুলাই পর্যন্ত দায়িত্ব দিয়ে চলতি বছরের শুরুতে রিচার্ড পাইবাসকে কোচের পদে বসায় সিডব্লিউআই। কিন্তু বোর্ডের এ সিদ্ধান্তে খুশি হতে পারেননি বর্তমান থেকে শুরু করে সাবেক অনেক ক্রিকেটারই। অতীতে ক্রিকেট পরিচালকের দায়িত্ব নিয়ে ক্রিস গেইল, ড্যারেন স্যামি, ডোয়াইন ব্রাভো, কাইরন পোলার্ডদের মতো ক্রিকেটারদের দল ছাড়া করেছিলেন এ ইংলিশ কোচ। জাতীয় দলে খেলতে হলে খেলতে হবে ঘরোয়া ক্রিকেট-বিতর্কিত এই সিদ্ধান্তটি ছিল পাইবাস মস্তিষ্কপ্রসূত।

 

"