বড় স্বপ্ন নিয়ে মাঠে ফিরছেন তাসকিন

প্রকাশ : ১০ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বিপিএল আসরে সিলেট সিক্সার্সের হয়ে নিজের সেরা ফর্মে ছিলেন পেসার তাসকিন আহমেদ। টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই ক্রিকেট-বল কথা বলছিল তাসকিনের হয়ে। একটা সময় পর্যন্ত এবারের টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি হয়ে যান ডানহাতি পেসার। দুর্দান্ত ফর্মের স্বীকৃতি হিসেবে নিউজিল্যান্ডগামী বাংলাদেশ দলেও ডাকা হয় তাকে। কিন্তু এরপরই দুর্ভাগ্যের শুরু। সিলেটের হয়ে ফিল্ডিং করতে গিয়ে বড় ধরনের ইনজুরিতে পড়েন তাসকিন। ছিটকে যান নিউজিল্যান্ড সফরের দল থেকে। শুধু তাই নয়, ইনজুরির কারণে এখনো মাঠের বাইরে রয়েছেন তিনি।

সেই চোটের পর বোলিং শুরু করেছেন মাত্র ছয় দিন হলো। পুরো রানআপে বোলিং করেছেন কেবল তিন সেশন। কিন্তু বিশ্বকাপ দল ঘোষণার সময় যে এগিয়ে আসছে! নিজেকে ফিট প্রমাণে মরিয়া তাসকিন আহমেদ তাই খেলতে নামছেন ম্যাচে। কাল ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচ দিয়ে এই ফাস্ট বোলার ফিরছেন মাঠে।

চোট নিয়ে বাইরে ছিলেন বলে প্রিমিয়ার লিগে কোনো দলে ছিলেন না। শেষ পর্যন্ত তার ঠিকানা হয়েছে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। এখন পর্যন্ত পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থাকা দলটির হয়ে মিরপুরে উত্তরা স্পোর্টিংয়ের বিপক্ষে খেলবেন তাসকিন।

গত ১ ফেব্রুয়ারি বিপিএলে সিলেট সিক্সার্সের হয়ে ম্যাচে চোট পাওয়ার পর এটিই হতে যাচ্ছে তাসকিনের প্রথম ম্যাচ। কাল একাডেমি মাঠে বোলিং অনুশীলনের পর নিজেই গণমাধ্যমকে জানালেন ফেরার খবর। বিশ্বকাপ দল ঘোষণার সময় এগিয়ে আসছে। তাড়নাটা যে সেই কারণেই, তা লুকালেন না।

‘এটাই আমার স্বপ্ন (বিশ্বকাপ খেলা)। এটার জন্যই এত কষ্ট করছি। আল্লাহর কাছে শুকরিয়া যে খেলার অনুমতি পেয়েছি। আল্লাহ চাইলে কালকে খেলতে নামব। সবার কাছে দোয়া চাচ্ছি যেন সুস্থ থাকতে পারি, ভালো খেলতে পারি।’

‘ফুল রানআপে তিনটি সেশন বোলিং করেছি। কোনো সমস্যা হয়নি। তবে প্রায় আড়াই মাস পর খেলতে নামব, একটু (অস্বস্তি থাকতে পারে)। ফিটনেস নিয়ে আমি আত্মবিশ্বাসী। ভালো অবস্থায় আছি।’ বিশ্বকাপ দলে থাকার জন্য তাড়াহুড়ো করছেন কি না, এই প্রশ্ন উঠা অস্বাভাবিক নয়। তবে তাসকিন ঝুঁকির কিছু দেখছেন না।

‘আমার মনে হয়েছে, ম্যাচ খেলার মতো অবস্থায় চলে এসেছি। আর অনুশীলনে তো সবটুকু দিয়েই বোলিং করছি। ভেবে দেখলাম, এই বোলিংটাই ম্যাচে করি। এই তো।’ বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশিস চৌধুরী গণমাধ্যমকে বললেন, তিনিও মনে করছেন না, খুব তাড়াহুড়ো হচ্ছে তাসকিনের।

‘দেখুন, এমনিতেই আমাদের টার্গেট ছিল ১৩ থেকে ১৪ এপ্রিলের দিকে তাকে ম্যাচ খেলানো। তার তিন থেকে চার দিন আগে নামছে। দুই মাসের একটি রিহ্যাব প্রোগ্রামে এটুকু আগে নামা খুব তাড়া নয়। আর এসব ক্ষেত্রে আমরা ক্রিকেটার কী মনে করছে, সেটিকে গুরুত্ব দেই। সে নিজে যথেষ্ট ভালো অনুভব করছে। সব মিলিয়েই আমরা খেলার অনুমতি দিয়েছি।’

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণা করা হতে পারে ১৮ এপ্রিল। তার আগে ঢাকা লিগে তিনটি ম্যাচ পেতে পারেন তাসকিন। সম্ভাবনা-শঙ্কার দোলাচল যথেষ্টই নাড়িয়ে দিচ্ছে তাকে।

‘চাপ তো আছেই। সব সময় অনুভব করি। ভালো না করলে সুযোগ পাব না। ফিট না থাকলে সুযোগ পাব না। তবে এবার একটু বেশি চাপ, কারণ বিশ্বকাপ তো আমার স্বপ্নের। এটা বড় আসর। ফিট না হলে সুযোগ মিলবে না।’

ঢাকা লিগের গত ম্যাচে আবাহনীর হয়ে চোট পাওয়া মেহেদী হাসান মিরাজের জন্যও আছে সুখবর। দেবাশিস চৌধুরী জানালেন, মিরাজের আঙুলের এক্সরে’তে তেমন কিছু ধরা পড়েনি। ব্যথা যদিও একটু আছে আঙুলে, সময়ে যা ঠিক হয়ে যাবে। তবে এই অফস্পিনিং অলরাউন্ডারকে পেয়ে বসেছে জ্বর। কাল আবাহনীর ম্যাচে তাই অনিশ্চিত তিনি।

 

"