বিজেএমসিকে হারাল আরামবাগ

জীবন-চিজোবার গোলে আবাহনীর জয়

প্রকাশ : ০৯ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

প্রথমার্ধেই দলকে এগিয়ে নিলেন নাবীব নেওয়াজ জীবন। সানডে চিজোবার গোলেও রাখলেন অবদান। দুই ফরওয়ার্ডের নৈপুণ্যে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে চট্টগ্রাম আবাহনীকে হারাল আবাহনী লিমিটেড।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে কাল ২-০ গোলে জিতেছে আবাহনী। ১১ ম্যাচে ২৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। ১০ ম্যাচে ২৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে বসুন্ধরা কিংস।

শুরুর ১০ মিনিটে আক্রমণ, পাল্টা আক্রমণে ম্যাচ দারুণ জমে উঠে। তৃতীয় মিনিটে গোলরক্ষকের দৃঢ়তায় এগিয়ে যেতে পারেনি আবাহনী। ডি-বক্সের ঠিক বাইরে থেকে জীবনের নেওয়া শট শেষ মুহূর্তে ঝাঁপিয়ে পড়ে কর্নারের বিনিময়ে ফেরান মোহাম্মদ নেহাল। এরপর কর্নারে গোলমুখ থেকে মাসিহ সাইঘানির হেডও আটকান তিনি।

ষষ্ঠ মিনিটে গোলরক্ষক শহীদুল আলম সোহেলের দৃঢ়তায় গোল পায়নি চট্টগ্রামের দলটি। বাঁ দিক দিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে গাম্বিয়ার ফরওয়ার্ড মোমোদু বাহর কাছের পোস্টে নেওয়া শট ফেরান তিনি।

দশম মিনিটের গোছাল আক্রমণ থেকে এগিয়ে যায় আবাহনী। হাইতির ফরওয়ার্ড কেরভেন্স ফিলস বেলফোর্টের পাস ধরে মিনহুয়েক কো বাড়ান গোলমুখে থাকা জীবনের উদ্দেশ্যে। বৃষ্টিভেজা মাঠে সøাইড করে জাল খুঁজে নেন এই ফরওয়ার্ড। লিগে জীবনের গোল হলো ৭টি।

১৯তম মিনিটের গোলে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নেয় আবাহনী। ডান দিক দিয়ে আক্রমণে উঠা জীবনের ক্রসে হেডে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন নাইজেরিয়ান ফরওয়ার্ড চিজোবা।

৩৯তম মিনিটে হঠাৎ করেই ঝড়ো বাতাস ও বৃষ্টি শুরু হলে খেলা বন্ধ করে দেন রেফারি। প্রায় ৪০ মিনিট পর শুরু হয় খেলা। শেষ দিকে শাহেদ হোসেনের শট আবাহনীর টুটুল হোসেন বাদশার হাতে লাগলে পেনাল্টির জোরালো আবেদন করে চট্টগ্রামের দলটি। কিন্তু রেফারির সাড়া মেলেনি।

দ্বিতীয়ার্ধে ৬৮তম মিনিটে আবাহনীর রুবেল মিয়ার শট দূরের পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায়। বাকিটা সময় নির্বিঘেœ পার করে লিগে নবম জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে মারিও লেমোসের দল।

এদিন ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে পল এমিল ও রবিউল হাসানের গোলে বিজেএমসিকে ২-১ ব্যবধানে হারায় আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ। শেষ দিকে বিজেএমসির ব্যবধান কমানো গোলটি পেনাল্টি থেকে করেন স্যামসন ইলিয়াসু। ১১ ম্যাচে ছয় জয় ও এক ড্রয়ে ১৯ পয়েন্ট আরামবাগের। সপ্তম হারের স্বাদ পাওয়া বিজেএমসি ৩ পয়েন্ট নিয়ে তলানিতে রয়েছে।

"