আয়াক্সের বিপক্ষে খেলবেন রোনালদো?

প্রকাশ : ২৮ মার্চ ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

দীর্ঘ নয় মাস পর জাতীয় দলে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর প্রত্যাবর্তনটা সুখের হয়নি। তার ফেরার ম্যাচে ইউক্রেনের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে পর্তুগাল। মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা হয়ে এসেছে রোনালদোর ইনজুরি, যা শুধু পর্তুগাল নয়, দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াল জুভেন্টাসের জন্যও। কারণ সামনেই যে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনাল।

রোনালদো কি আর এসব কথা জানেন না? তার দেশ ইউরোর বর্তমান চ্যাম্পিয়ন, কিন্তু এই পর্তুগালই যদি আগামী বছর ইউরোর মূল পর্বেই খেলতে না পারে, সেটা কিছুটা তো লজ্জাজনক ব্যাপার হবে তার জন্যও। ওদিকে চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে যদি খেলতে না পারেন, আর তাতে যদি জুভেন্টাস বাদ পড়ে যায়, সেটা মেনে নেওয়াও তো কঠিন। তুরিনের বুড়িরা তো তাকে কিনেছেই চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতার লক্ষ্য নিয়ে। নইলে সিরি’এ লিগ জিততে কি আর জুভেন্টাসের রোনালদোকে লাগে! ওখানে তো তারা রোনালদো আসার আগেই টানা সাত বছর ধরে চ্যাম্পিয়ন!

পর্তুগাল ও জুভেন্টাসÑ দুই দলেরই শঙ্কাটা জানেন বলেই বোধ হয় ম্যাচ শেষে রোনালদো আশ্বস্ত করেছেন দুই পক্ষকেই। চোটটাকে খুব বেশি পাত্তা না দিয়ে বলেছেন, ‘ফুটবলে এমন হতেই পারে। বৃষ্টি নামলে তো আপনাকে ভিজতে হবেই। আমি নিরুদ্বেগই আছি। আমি তো আমার শরীরটাকে চিনি, দুই সপ্তাহের মধ্যে আমি ঠিক হয়ে যাব।’

দুই সপ্তাহ! তাহলে জুভেন্টাস খুব নিশ্চিন্ত থাকে কী করে! আয়াক্সের মাঠে চ্যাম্পিয়নস লিগ কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগ ১০ এপ্রিল, ফিরতি লেগ এর ছয় দিন পর। তার মানে মাঝে আসলে সপ্তাহ দু-একের মতোই সময় পাচ্ছেন রোনালদো, একটু বেশি সময় লাগলেই কিন্তু প্রথম লেগে না-ও খেলা হতে পারে তার।

জুভেন্টাস অবশ্য সমর্থকদের দুশ্চিন্তা দূর করার চেষ্টা করেছে সাধ্যমতো। ক্লাব কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো পর্তুগালে পরীক্ষা করেছে। সেখানে তার ডান ঊরুতে হালকা চোট দেখা গেছে। পরিস্থিত সব সময় নজরে রাখা হবে এবং মাঠে ফেরার জন্য কী করতে হবে, সেটা বোঝার জন্য নতুন করে পরীক্ষা করা হবে।’

"