মেসি আগুনে পুড়ল লিওঁ

লিভারপুলের বৃত্তপূরণ

প্রকাশ : ১৫ মার্চ ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

ইংলিশ তিন ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, টটেনহাম হটস্পার ও ম্যানচেস্টার সিটি আগেই কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট কেটেছিল। বাকি ছিল লিভারপুল। পরশু সাদিও মানের আগুনঝরা পারফরম্যান্সে বায়ার্ন মিউনিখকে ৩-১ গোলে উড়িয়ে দিয়ে শেষ আটে উঠল অল রেডরাও। এবারের আসরে কোয়ার্টার ফাইনালে চারটি দলই হয়ে গেল ইংল্যান্ডের ক্লাব। লিভারপুলের উৎসবের রাতে নকআউট পর্বের প্রথম গণ্ডি পাড়ি দিয়েছে ফেভারিট বার্সেলোনাও। মেসির ডাবলস নৈপুণ্যে অলিম্পিক লিওঁকে ৫-১ গোলে গুঁড়িয়ে দিয়েছে কাতালান ক্লাবটি।

তবে শেষ ষোলোর শেষ দিনের সব আকর্ষণ ছিল অ্যালিয়েঞ্জ এরিনায়। যেখানে ২৬ মিনিটে লিভারপুলকে এগিয়ে নেন মানে। করেন দারুণ এক গোল। ৩৯ মিনিটে লিভারপুলের চতুর্থ ফুটবলার হিসেবে চ্যাম্পিয়নস লিগে আত্মঘাতী গোল করেন জোয়েল ম্যাতিপ। ৬৯ মিনিটে ফের এগিয়ে যায় লিভারপুল। ১৫ মিনিট পর মোহাম্মদ সালাহর দুর্দান্ত ক্রসে মাথা ছুঁয়ে ব্যবধান ৩-১ করেন মানে।

মঙ্গলবার রাতে হ্যাটট্রিক করে একাই অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে উড়িয়ে দিয়েছিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। পরের দিনই ঝলসে উঠলেন মেসি। দুটি গোল করেছেন; সতীর্থ জিরার্ড পিকে ও উসমান ডেম্বেলেকে দিয়ে করিয়েছেন আরো দুটি।

ন্যু ক্যাম্পে ফ্রান্সের ক্লাবটিকে পেয়ে ছেলেখেলা করল বার্সেলোনা। ১৭ মিনিটে পেনাল্টি থেকে পানেনকা শটে গোল করেন মেসি। ৩১ মিনিটে লুইস সুয়ারেজের পাস থেকে ব্যবধান বাড়ান কুতিনহো। দ্বিতীয়ার্ধে লিওঁর লুকাস ২-১ করেন। ৭৮ মিনিটে মেসি-ম্যাজিক শুরু। বাঁ-পায়ের এক ঝটকায় মাটি ধরান লিওঁর দুই ডিফেন্ডারকে। তারপর ডান পায়ের শটে গোল করেন বার্সেলোনার ১০ নম্বর জার্সিধারী। বার্সার চতুর্থ গোলটির পেছনেও রয়েছে মেসির ডান পা। পেছন থেকে উঠে এসেছিলেন ডিফেন্ডার পিকে। মেসির ডিফেন্স চেরা পাস থেকে গোল করে যান তিনি। কে বলে, মেসির ডান পা অচল! বার্সেলোনার পঞ্চম গোলটিও ‘এলএম টেনে’র পাস থেকে। বার্সা জাদুকরের কাছ থেকে বল পেয়ে ডেম্বেলে ৫-১ করে যান।

 

ফলাফল

বার্সেলোনা ৫-১ লিওঁ

দুই লেগ মিলে ৫-১ গোলে জিতে শেষ আটে বার্সেলোনা

 

বায়ার্ন ০-৩ লিভারপুল

দুই লেগ মিলে ৪-১ গোলে জিতে কোয়ার্টার ফাইনালে লিভারপুল

 

"