জীবন্ত ফুটবল-ঈশ্বর!

প্রকাশ : ১৪ মার্চ ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

রীতিমতো ঘোষণা দিয়ে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে বাঁচা-মরার লড়াইয়ে হ্যাটট্রিক করেছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। পর্তুগিজ উইঙ্গারের দুর্ধর্ষ হ্যাটট্রিকের সুবাদে খাদের কিনারা থেকে উঠে এসেছে জুভেন্টাস। নিজেদের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো নকআউট পর্বে দুই গোল হজম করেও রূপকথার প্রত্যাবর্তন করেছে তুরিনের বুড়িরা। তাদের এই রূপকথার জয়ের নায়ক রোনালদো। পরশু ‘সিআর সেভেন’ ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছেন অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকেই। তাতেই জুভেন্টাস পেল কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট।

এ যেন সাজানো এক চিত্রনাট্য! অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের মতো অটুট রক্ষণের একটি দলের বিপক্ষে করলেন তিন গোল। জুভেন্টাস বিদায়ের দরজা থেকে ফিরে এসে চলে গেল কোয়ার্টার ফাইনালে! রোনালদোর এই জাদুর ব্যাখ্যা কি সম্ভব? যেমন অসম্ভব রোনালদোকে কোনো বিশেষণে বিশেষায়িত করা; রিও ফার্ডিন্যান্ড একটাই উপমা খুঁজে পেলেনÑ রোনালদো জীবিত এক ফুটবল-ঈশ্বর। পরশু রাতে বিটি স্পোর্টকে রোনালদোর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড যুগের সতীর্থ বলেছেন, ‘ও জীবিত এক ফুটবল ঈশ্বর। ও যা করছে, এ তো রীতিমতো ছেলেখেলা! চ্যাম্পিয়নস লিগে আপনি যা যা রেকর্ড কল্পনা করতে পারেন, এর সবই ওর দখলে আছে। এমনকি সর্বোচ্চ হ্যাটট্রিকের রেকর্ডটাও এখন মেসির সঙ্গে ভাগাভাগি করে নিল।’

গত বিশ্বকাপে ডিয়েগো সিমিওনের মেসেজের স্ক্রিনশট ফাঁস হয়ে গিয়েছিল। যেখানে রোনালদোর মানসিক দৃঢ়তার প্রশংসা করে মেসির সমালোচনা করেছিলেন অ্যাটলেটিকোর আর্জেন্টাইন কোচ। এই ম্যাচের পর মনের কথাটা খোলাখুলি বলে দিলেন তিনি, ‘ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোই বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়, ও বড় রাতের জন্য এ ধরনের পারফরম্যান্স জমিয়ে রাখে। সম্ভবত আমার দেখা কোনো খেলোয়াড়ের এটাই সেরা পারফরম্যান্স।’

 

"