বড় হারে শুরু মাশরাফিদের

প্রকাশ : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

দেশের মাটিতে একদিনও অনুশীলনের সময় পায়নি বাংলাদেশ। রাগবির দেশে সফরে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচেও পুরো দল নিয়ে খেলতে পারেননি টাইগাররা। বিরূপ কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে যতটুকু সময় দরকার ছিল সেটা যে বাংলাদেশ পায়নি এতেই তা পরিষ্কার। এমন কঠিন অবস্থার মধ্য দিয়ে শুরু হলো মাশরাফিদের নিউজিল্যান্ড মিশন। স্বাভাবিকভাবেই এত প্রতিকূলতার মধ্যে ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে সুবিধা করতে পারলেন না লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।

কাল নেপিয়ারে নিউজিল্যান্ডের কাছে ¯্রফে নিঃশর্ত আত্মসমর্পণ করেছে বাংলাদেশ। ব্যাটিং উইকেটে মার্টিন গাপটিলের তান্ডবের পর মাশরাফিরা হেরেছেন ৮ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে। বাংলাদেশের ছুড়ে দেওয়া ২৩৩ রানের লক্ষ্যমাত্রাকে বড্ড মামুলি বানিয়ে ইনিংসের ৩৩ বল হাতে রেখেই সহজ জয় তুলে নেন ব্ল্যাক ক্যাপসরা। ১১৭ রানের হার না মানা বিধ্বংসী ইনিংস খেলার সুবাদে ম্যাচ সেরা হয়েছেন কিউই ওপেনার। আগামী শনিবার ক্রাইস্টচার্চে তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে অনুষ্ঠিত হবে।

বাংলাদেশকে অল্পতে গুটিয়ে দেওয়ার পর নিউজিল্যান্ড কোনো ঝুঁকি নেয়নি। পরিস্থিতি বুঝেই ব্যাট করেছেন তারা। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা রান করার জন্য যেখানে সংগ্রাম করেছেন সেখানে গাপটিল অনায়াসেই সেটা করে দেখিয়েছেন। ১১৬ বলের ইনিংসে আটটি চার ও চারটি ছক্কায় অজেয় ছিলেন তিনি। চার বছর পর আবারও বাংলাদেশের বিরুদ্ধে শতক পেলেন তিনি।

গাপটিলের দিনে সতীর্থ ব্যাটসম্যানরা শুধু তাকে সঙ্গ দিয়ে গেছেন। হেনরি নিকোলসের সঙ্গে ১০৩ রানের উদ্বোধনী জুটির পর কেন উইলিয়ামসনের সঙ্গে ৩৪ রানের যুগলবন্দি। মেহেদি হাসান মিরাজ নিকোলসকে (৫৩) আর মাহমুদউল্লাহ উইলিয়ামসনকে (১১) ফিরিয়ে দিলেও জয়ের জন্য ভাবতে হয়নি স্বাগতিকদের। রস টেলরের সঙ্গে অবিচ্ছিন্ন তৃতীয় উইকেটে ৯৬ রানের জুটিতে ম্যাচটা শেষ করে দেন গাপটিল।

অবশ্য বাংলাদেশ যে দলীয় সংগ্রহ দুশ’ ছাড়িয়েছে এটাই সবচেয়ে ইতিবাচক। শুরুতেই যে ভয়াবহ বিপর্যয় নেমে এসেছিল টাইগার শিবিরে। ৯৪ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল বাংলাদেশ। পরে মোহাম্মদ মিঠুন (৬২) আর সাইফুদ্দিনের (৪১) অষ্টম উইকেটে ৮৪ রানের জুটির ওপর দাঁড়িয়ে মান বাঁচানো সংগ্রহ তুলেছেন টাইগাররা।

কিন্তু বোলাররা জাদুকরী কিছু করতে পারেননি গাপটিলদের সামনে। কারণ ব্যাটিং স্বর্গে পুঁজিটা যে বড্ড কম হয়ে গেছে। আগামী শনিবার দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ফেরার ম্যাচের আগে বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফির ভাবনায় এখন শুধুই ব্যাটিং বিভাগ। কাল ম্যাচ শেষে তিনি বলেছেন, ‘ক্রাইস্টচার্চে জিতে সমতা ফেরাতে আমাদের সবচেয়ে বেশি কাজ করতে হবে ব্যাটিং নিয়ে। শুরুতে আমরা এত উইকেট হারিয়ে ফেলতে পারি না। বোলিংয়েও আমাদের উন্নতি করতে হবে। পরের ম্যাচে সমতায় ফিরতে চেষ্টা করব আমরা।’

"