পয়েন্ট হারাল শেখ রাসেল

চট্টগ্রাম আবাহনীর রোমাঞ্চকর জয়

প্রকাশ : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক
ama ami

চলতি আসরের প্রিমিয়ার লিগে জয় দিয়ে শুরু করলেও হঠাৎ পথ হারিয়ে ফেলে চট্টগ্রাম আবাহনী। কাল পাঁচ গোলের রোমাঞ্চ ছড়ানো ম্যাচে ব্রাদার্স ইউনিয়নকে হারিয়ে আবার জয়ের পথে ফিরেছে বন্দর নগরীর দলটি।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে কাল ব্রাদার্স ইউনিয়নকে ৩-২ গোলে হারায় চট্টগ্রাম আবাহনী। পাঁচ ম্যাচে দুটি করে জয় ও ড্রয়ে ৮ পয়েন্ট তাদের।

ম্যাচের একাদশ মিনিটে আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যায় চট্টগ্রাম আবাহনী। কৌশিক বড়–য়ার কর্নার বিপদমুক্ত করতে গিয়ে নিজেদের জালে বল জড়িয়ে দেন ব্রাদার্সের ডিফেন্ডার শফিকুল ইসলাম।

৩৩তম মিনিটে সতীর্থের ফ্রি-কিকে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড লিওনার্দো লিমার হেড জালের দিকে ছিল; শেষ মুহূর্তে মানাফ রাব্বী আরেকটা টোকা দিলে সমতায় ফেরে ব্রাদার্স।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে তিন বিদেশির মিলিত প্রচেষ্টায় ফের এগিয়ে যায় চট্টগ্রামের দলটি। ডেনিয়েল আরমাহর লম্বা করে বাড়ানো বল আওয়ালা মাগালান হেড করার পর পেয়ে যান মোমোদু বাহ; নিখুঁত শটে লক্ষ্যভেদ করেন গাম্বিয়ার এই ফরোয়ার্ড।

৫৬তম মিনিটে ব্যবধান আরো বাড়িয়ে নেয় চট্টগ্রাম আবাহনী। শাহেদ হোসেনকে বল বাড়িয়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েছিলেন মাগালান। শাহেদের ফিরতি ক্রস গোলরক্ষক ফেরালেও পুরোপুরি বিপদমুক্ত করতে পারেননি; সুযোগ কাজে লাগান সামনে থাকা কৌশিক।

৬৪তম মিনিটে সফল স্পট কিকে স্কোরলাইন ৩-২ করেন ব্রাদার্সের ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড লিমা। ডি-বক্সের মধ্যে মুফতা লাওয়ালের হাতে বল লাগলে পেনাল্টির বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি।

৭৪তম মিনিটে বাহর জোরালো শট ক্রসবারে লেগে ফিরে আসে। তারপরও দুই ড্র ও এক হারের পর জয়ে ফিরে চট্টগ্রাম আবাহনী।

দিনের আরেক ম্যাচে ময়মনসিংহের শহীদ রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র ১-১ গোলে ড্র করেছেন সাইফ স্পোর্টিংয়ে সঙ্গে।

টানা তিন জয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়ে নামা শেখ রাসেল এগিয়ে গেলেও জাল অক্ষত রাখতে পারেনি। আত্মঘাতী গোলে শেষ পর্যন্ত সাইফ স্পোর্টিংয়ের সঙ্গে পয়েন্ট ভাগাভাগি করেছে তারা।

প্রথমার্ধে দুই দলের কেউ প্রতিপক্ষ গোলরক্ষককে তেমন কোনো পরীক্ষা নিতে পারেনি। বল পায়ে রাখার দিকেই মনোযোগী ছিল তারা। তবে দ্বিতীয়ার্ধে দুই দল আক্রমণে উঠতে থাকে।

৪৮তম মিনিটে ডি-বক্সে ঢুকে তালগোল পাকিয়ে শট নিতে পারেননি শেখ রাসেলের নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড রাফায়েল ওডোইন। দুই মিনিট পর বিপলু আহমেদের শট গোলরক্ষক ফিস্ট করে ফেরালে দলটিকে আবার হতাশ হতে হয়।

৭৯তম মিনিটে এগিয়ে যায় ২০১২-১৩ মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন শেখ রাসেল। আলেক্স রাফায়েল দ্য সিলভার কর্নারে উজবেকিস্তানেরর ফরওয়ার্ড আজিজভ আলিশের হেডে বল জাল খুঁজে পায়।

৮৪তম মিনিটে সমতায় ফেরে সাইফ স্পোর্টিং। দেইনের আন্দ্রেস করদোবার পাস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে পার্কের বাড়ানো ক্রস বিপদমুক্ত করতে গিয়ে নিজেদের জালেই জড়িয়ে দেন ইয়াসিন খান।

চার ম্যাচে ১০ পয়েন্ট শেখ রাসেলের। তাদের চেয়ে এক ম্যাচে বেশি খেলা সাইফ স্পোর্টিংয়ের পয়েন্টও ১০।

 

"