সেমিতে নাদালের প্রতিপক্ষ ফেদেরারের ঘাতক

প্রকাশ : ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক
ama ami

অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে রজার ফেদেরারের হারটা যারা ‘দুর্ঘটনা’ হিসেবে নিয়েছিলেন, তারা এবার নড়েচড়ে বসতে পারেন। শেষ ষোলোতে সুইস তারকাকে হারিয়ে বিশ্বকে চমকে দিয়েছিল স্টেফানোস সিৎসিফাস। গ্রিসের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে কোনো গ্র্যান্ডসøামে কোয়ার্টার ফাইনালে রেখেছিলেন এই ২০ বছর বয়সি সেনসেশন। কাল আরেকটি নতুন রেকর্ড গড়েছেন সিৎসিফাস। ৩ ঘণ্টা ১৫ মিনিটের লড়াইয়ে রবার্তো বাতিস্তাকে ৭-৫, ৪-৬, ৬-৪ ও ৭-৬ (৭-২) গেমে হারিয়ে প্রথম গ্রিক হিসেবে শেষ চারে উঠেছেন এই ১৪ নম্বর বাছাই।

শুধু তা-ই নয়, নোভাক জকোভিচের পর সবচেয়ে কম বয়সি সেমিতে উঠেছেন সিৎসিফাস। এই মাইলফলক গড়া দিনে তার বয়স ছিল ২০ বছর ১৬৮ দিন। ২০০৭ সালে সবচেয়ে কম বয়সি হিসেবে শেষ চারে পৌঁছেছিলেন নোভাক। সেমিতে তার প্রতিপক্ষ হতে পারে ২০০৯ সালের অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জয়ী স্পেনিয়ার্ড রাফায়েল নাদাল। কাল কোয়ার্টার ফাইনালে এই ৩২ বছর বয়সী তারকা ৬-৩, ৬-৪ ও ৬-২ গেমে হারিয়েছেন সদ্য ২১ বছরে পা দেওয়া আমেরিকার ফ্রান্সেস টায়াফোয়িেেক।

মুক্তিযুগে ১৭টি গ্র্যান্ডসøাম জিতেছেন দ্বিতীয় বাছাই নাদাল। মেলবোর্নের এই কোর্টেই ২০০৯ সালে শিরোপা উৎসব করেছিলেন তিনি।

টেনিসের রজার ফেদেরারকে হারিয়েই ‘বিস্ময় বালক’ খেতাব পেয়ে গিয়েছিলেন সিৎসিফাস। তবে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন যে স্বপ্নের মতো কাটছে, তা ম্যাচ শেষে জানালেন তিনি, ‘সবকিছু রূপকথার মতো মনে হচ্ছে। আমি মনে হয় স্বপ্নের মধ্যে বাস করছি।’

মেয়েদের এককে ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো শেষ চার নিশ্চিত করেছেন পেত্রা কিভিতোভা। এই ২৮ বছর বয়সি চেক সেনসেশন ৬-১ ও ৬-৪ গেমে হারিয়েছে অ্যাশলেফ বার্টিকে। সেমিতে তার প্রতিপক্ষ ড্যানিয়েল্লে কলিনস। জয়ের পর কান্নায় ভেঙে পড়েন কিভিতোভা। আনন্দ-অশ্রু চোখ নিয়ে বলেন, ‘সবকিছু ছাপিয়ে সেমিতে ওঠা আমার জন্য সহজ ছিল না। এটা আমার ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় জন্ম।’

"