বিশ্বাস ছিল রাজশাহীর

পুনরাবৃত্তি চান মাশরাফি

প্রকাশ : ১৪ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

মাঝখানে একদিনের ব্যবধান। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ঢাকা পর্বের শেষ দুটি ম্যাচেই নাটকীয়ভাবে হেরে গেল রংপুর রাইডার্স। আশ্চর্যজনকভাবে দুটো ম্যাচেই ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা হেরেছে শেষ ওভারে, আরেকটু ছোট করে বললে শেষ বলে। ঢাকা ডায়নামাইটসের কাছে ২ রানে হারের পর কাল রাজশাহী কিংসের কাছে ৫ রানে হেরে গেছে রংপুর। মিরাজদের ১৩৫ রানে বেঁধে ফেলার পর নির্ধারিত ওভারে ৬ উইকেটে ১৩০ রান তুলতে সক্ষম হন মাশরাফিরা।

শেষ ওভারে ৯ রানের সহজ হিসাবটাই মেলাতে পারেননি রংপুরের দুই ব্যাটসম্যান রাইলি রুশো ও ফরহাদ রেজা। হারের দায়টা ফরহাদের একটু বেশিই। মুস্তাফিজের দুর্দান্ত ৪ বলের একটিতেও ব্যাট ছোঁয়াতে পারেননি ফরহাদ। কাটার মাস্টারে জাদুকরি ওভারে মাত্র ২ রান নিতে পেরেছে রংপুর। শেষ বলে রুশো ছক্কা মারতে পারলে ম্যাচটা সুপার ওভার পর্যন্ত নিয়ে যেতে পারত।

সেটা হয়নি। জয়ের বদলে পঞ্চম ম্যাচে এসে টুর্নামেন্টের তৃতীয় হারের স্বাদ পেল রংপুর রাইডার্স। তাতে করে শিরোপা ধরে রাখার অভিযান কিছুটা হলেও কঠিন হয়ে উঠল চ্যাম্পিয়নদের জন্য। কথাটা মেনে নিয়েছেন দলটির অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। কাল ম্যাচ হারের পর সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেছেন, ‘অবশ্যই কঠিন (শেষ চারে যাওয়া)। বিশেষ করে ব্যাক টু ম্যাচ এভাবে হারলে। দুটো ম্যাচই আমাদের জেতা উচিত ছিল। এভাবে হারলে ঘুরে দাঁড়ানো কঠিন হয়ে যায়। তবে আমার মনে হয় একটা ম্যাচ জিতলে আমরা ফিরে আসতে পারি।’

ফিরে আসার জন্য বিপিএলের গত মৌসুমকে অনুপ্রেরণা হিসেবে দেখছেন মাশরাফি। বিপিএলের পঞ্চম আসরে প্রথম ৬ ম্যাচের ৩টিতেই হেরেছিল রংপুর। সেই আসরের পুনরাবৃত্তি করা যে সহজ হবে না সেটা মানছেন মাশরাফি, ‘শেষ মৌসুমে আমরা ৬ ম্যাচের ৩টিতে জিতেছি। তবে কাজটা অবশ্যই কঠিন। শেষ আসরেও আমাদের এভাবেই খেলতে হয়েছে। এই অবস্থায় আমাদের মানসিকভাবে খুব শক্তিশালী হতে হবে। যেকোনো পরিস্থিতিতে মানিয়ে নেওয়ার শক্তি থাকতে হবে। পাশাপাশি শারীরিকভাবে ফিট থাকাটাও দরকার। এখন থেকে ফেরার শর্টকাট কোনো উপায় নেই। আমাদের শতভাগ ক্রিকেট খেলতে হবে।’

৫৯ বলে ৬৫ রান দরকার ছিল রংপুর রাইডার্সের। তাদের হাতে ছিল ৮টি উইকেট। সঙ্গে দুই ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ হাফিজ ও রাইলি রুশোর উইকেটে থাকা। সবমিলিয়ে রংপুরের সহজেই জেতার কথা ছিল। সেখান থেকে দুর্দান্ত বোলিং কী দারুণভাবেই না ফিরে এলো রাজশাহী কিংস। এজন্য দলটির তরুণ অধিনায়ক মেহেদী হাসানের মিরাজকে কৃতিত্ব দিতেই হবে।

ম্যাচ শেষে মিরাজ জানালেন জয়ের আত্মবিশ্বাস ছিল তাদের। প্রথমবারের মতো অধিনায়ক মাশরাফিকে হারিয়েছেন মিরাজ। নাটকীয় জয়ের ম্যাচে এটা তার জন্য অনেক বড় একটা প্রাপ্তি। মিরাজ বলেন, ‘আমাদের আত্মবিশ্বাস ছিল যে ফিরে আসতে পারব। অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট খেলার তিন বছর পর অধিনায়কত্ব করছি। শুরুতে একটু সমস্যা হয়েছে; আস্তে আস্তে আমার মাথা খুলছে। বড় ভাই মাশরাফিকে হারিয়েছি ভালো লাগছে। রংপুর চ্যাম্পিয়ন দল। ওদের হারাতে পারলে সব দলেরই ভালো লাগে। অন্যরকম অনুভূতি কাজ করে। আমাদের দলের প্রত্যেকেই তরুণ। তরুণরা ভালো করতে পারলে জয় সহজ হয়ে যাবে।’

"