সুন্দর সমাপ্তির আশা

প্রকাশ : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

শেষলগ্নে আসা বছরটা ভালোই কেটেছে বাংলাদেশের। দুটো ম্যাচ বাদ দিলে পুরো বছরটাতেই টাইগারদের পারফরম্যান্স ছিল দারুণ। যে দুই ম্যাচে দল হেরেছে সেখানেও লাল-সবুজ জার্সিধারীরা দুর্দান্ত খেলেছিল। যদিও ভাগ্য পাশে না থাকায় হারতে হয়েছে ম্যাচ দুটিতে। ম্যাচ দুটির একটি এশিয়া কাপের ফাইনাল, অন্যটি নিদাহাস ট্রফির ফাইনাল। দুই ম্যাচেই বাংলাদেশ হেরেছে ভারতের কাছে। তাও আবার শেষ বলে।

এ বছর ১৭টি ওয়ানডে ম্যাচের ১১টিতেই জিতেছে বাংলাদেশ। হার ছয়টিতে। এ বছর আর তিনটি একদিনের ম্যাচ খেলবে টাইগাররা। যার প্রথমটা আজ মাশরাফিরা খেলবেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে। তিন ম্যাচ সিরিজের শুরুটা জয় দিয়েই চান টাইগার অধিনায়ক। বলেছেন, ‘প্রথম ম্যাচটা আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের ম্যাচটা জিততে হবে।’

ক্যারিবীয়দের সিরিজ হারিয়ে বছরটা ভালো ভালোয় শেষ করতে মরিয়া বাংলাদেশ। কাল সিরিজপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে টাইগার কাপ্তান বলেছেন, ‘এই বছরে আমাদের জয়ের হার অনেক ভালো। দুইটা ফাইনাল বাদ দিলে আমরা ভালো করেছি। অবশ্যই একটা ফাইনাল জিততে পারলে ভালো হতো, বিশেষ করে এশিয়া কাপেরটা। অবশ্যই ভালোভাবে শেষ করতে পারলে খুব ভালো হবে। বিশেষ করে সামনের বছরের শুরু থেকে অনেক চ্যালেঞ্জ আছে। শেষটা ভালো করলে এই বছর খুব ভালো যাবে।’

ইনজুরির কারণে সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল সবশেষ ওয়ানডে সিরিজে দলে ছিলেন না। তাদের অনুপস্থিতিতেই জিম্বাবুয়েকে ধবলধোলাই করেছেন মাশরাফিরা। সাকিব-তামিম দলে ফেরায় প্রশান্তির বাতাস বইছে বাংলাদেশের ড্রেসিংরুমে। কাল অধিনায়ক মাশরাফি বলেছেন, ‘সাকিব-তামিম দলে থাকা আমাদের জন্য বড় সুবিধা। প্রস্তুতি ম্যাচে তামিম দারুণ খেলেছে। এটা তামিমের জন্যও স্বস্তি, আমাদের জন্যও। তবে একইসঙ্গে বলব যে ইনজুরি থেকে আসা এবং এসে পারফর্ম করা কিন্তু সময়ের ব্যাপার। প্রস্তুতি ম্যাচে তামিম সেঞ্চুরি করেছে বলে প্রত্যাশা করতে পারেন না যে পরের ম্যাচে নেমেও অসাধারণ ইনিংস খেলবে। এর চেয়ে ভালো খেলতে পারে, খারাপও করতে পারে।’

মাশরাফি আরো বলেছেন, ‘চোট থেকে ফিরলে কিন্তু বেশ কিছু দিন লাগে মানিয়ে নিতে। দুই-আড়াই মাস বাইরে ছিল তামিম। সাকিব দুটি টেস্ট ম্যাচ খেলে কিছুটা মানিয়ে নিয়েছে। তামিমের হয়তো কিছুটা সময় লাগতে পারে। কিন্তু ওরা দুইজন থাকা আমাদের জন্য, প্রত্যেক খেলোয়াড়ের জন্য স্বস্তিদায়ক ব্যাপার।’

"