আজ মাশরাফির ‘ডাবল সেঞ্চুরি’

প্রকাশ : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বাংলাদেশের ক্রিকেটের বদলে যাওয়ার রূপকার মাশরাফি বিন মর্তুজা। তার দুর্দান্ত নেতৃত্বের ওপর দাঁড়িয়ে একদিনের ক্রিকেটে টাইগাররা হয়ে উঠেছে পরাশক্তি, উঠেছে র‌্যাঙ্কিংয়ের সাত নাম্বারে উঠেছে বাংলাদেশ। যে জিয়ন কাঠির ছোঁয়া বদলে গেছে দেশের ক্রিকেট সেই মাশরাফি দাঁড়িয়ে আছেন অনন্য একটা অর্জনের সামনে।

আজ প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ওয়ানডে ক্রিকেটে ২০০ ম্যাচ খেলার কীর্তি গড়বেন টাইগার কাপ্তান। ঘাত-প্রতিঘাতের ক্রিকেট ক্যারিয়ারের এমন একটা পর্যায়ে এসেও উচ্ছ্বাসে গাঁ ভাসাচ্ছেন না মাশরাফি। তার পা মাটিতে। বরাবরের মতো এবারও ব্যক্তিগত অর্জন ছাপিয়ে দলের সাফল্যের দিকেই চোখ তার।

দেড় দশক আগে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিল মাশরাফির। ২০০১ সালের ২৩ নভেম্বর চট্টগ্রামে অভিষিক্ত ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’র ক্যারিয়ার যে এতটা দীর্ঘায়িত হবে সেটা ছিল অনেকেরই কল্পনার বাইরে। তবে আত্মবিশ্বাস ছিল মাশরাফি। অদম্য সাহসিকতার জোরেই এই পর্যন্ত আসতে পেরেছেন বাংলাদেশের নতুন দিনের কান্ডারী।

তার ক্রিকেট অধ্যায়টা শেষ হয়ে যেতে পারত ২০১১ সালেই। চোটের আগ্রাসনে ক্যারিয়ার বিপর্যয়ের শঙ্কায় পড়েছিলেন মাশরাফি। এ ছাড়া বিভিন্ন সময়ে মাশরাফির ইনজুরি ভক্তদের বুক কাঁপিয়ে দিয়েছিল। সব ঝড়-ঝাপ্টা সামলে এখনো টিকে আছেন ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’ স্বপ্ন দেখাচ্ছেন বিশ্বকাপ জয়ের।

১৫ বছরের ক্রিকেট অধ্যায়ে বহুবার ইনজুরিতে পড়েছেন মাশরাফি। কয়েকবার শায়িত হয়েছেন শল্যবিদের ছুরির নিচে। এ ছাড়া বিভিন্ন সময়ে ব্যথানাশক ইনজেকশন নিয়ে বাংলাদেশকে দিয়েছেন নিজের সবটুকু

নিংড়ে। সেই মাশরাফিই আজ প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ওয়ানডেতে ম্যাচ সংখ্যায় ডাবল সেঞ্চুরি করবেন। মিরপুরে মাশরাফির ‘বিশেষ’ ম্যাচে টাইগারদের প্রতিপক্ষ সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

এমন একটা অর্জনের হাতছানির পরও রোমাঞ্চিত নিন তিনি। ব্যক্তিগত অর্জন ছাপিয়ে দলের জয় নিয়েই ভাবছেন মাশরাফি। কাল সিরিজ পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেছেন, ‘(২০০তম ওয়ানডের কথা) আমার আসলে খেয়াল ছিল না। আমি আগেও বলেছি, এগুলো আমাকে স্পর্শ করে না। আমার কাছে এত গুরুত্বপূর্ণও নয়। গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে কালকের (আজকের) ম্যাচটা জেতা। এদিক থেকে ভালো লাগছে যে, ওয়ানডেতে অন্তত ২০০ ম্যাচ হচ্ছে। একটা সময় অবশ্যই ভালো লাগবে, যখন মানুষ বলবে, ‘তুমি বাংলাদেশের হয়ে ২০০টা ম্যাচ খেলেছো।’ এটা অবশ্যই একটা অর্জন। ওই জায়গা থেকে অবশ্যই ভালো লাগবে। কিন্তু কালকের ম্যাচেও ওপরে আর কিছু নেই। এটা চিন্তা করে খেলার সুযোগ নেই। ম্যাচটা গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের জিততে হবে।’

মাশরাফির প্রায় বছর পর ক্যারিয়ার শুরু করেও তার খুব কাছাকাছি আছেন মুশফিকুর রহিম। ওয়ানডেতে ম্যাচ সংখ্যার দ্বিশতক থেকে মাত্র পাঁচ ম্যাচ দূরে আছেন তিনি। ১৯০-এর ঘরে আছেন আরো একজন। তিনি সাকিব আল হাসান। আজ ১৯৩তম ম্যাচ খেলতে নামবেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। এই ত্রয়ীর পেছনে আছেন যথাক্রমে তামিম ইকবাল (১৮৩), মোহাম্মদ আশরাফুল (১৭৫) এবং মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (১৬৫)।

অথচ এরা সবাই মাশরাফির চেয়ে যোজন যোজন দূরে থাকতেন। যদি চোট বাধা হয়ে না দাঁড়াত। ফর্মটাও মাঝে মাঝে ভুগিয়েছে তাকে। এই দুইয়ে মিলে অভিষেকের পর থেকে বাংলাদেশের ১১১টি মিস করেছেন মাশরাফি। এখনো শতভাগ ফিট নন তিনি। ইনজুরির সঙ্গে ক্যারিয়ারজুড়ে লড়াই করা বাংলাদেশ অধিনায়ক সর্বশেষ চোট পেয়েছে গেল সেপ্টেম্বরে। তিনি আশাবাদী ক্যারিবীয়দের সঙ্গে ঠিকঠাক সিরিজটা খেলতে পারবেন। মাশরাফি বলেছেন, ‘আমি চেষ্টা করছি শতভাগ ফিট হওয়ার। জিম্বাবুয়ে সিরিজে যেটা হয়েছিল, এশিয়া কাপ থেকে কিছু ইনজুরি বয়ে এনেছিলাম। এখন অনুশীলন করছি, আশা করছি ঠিক থাকার কথা।’

 

ওয়ানডে মাশরাফির বোলিং পরিসংখ্যান

 

ম্যাচ ইকো. উইকেট সেরা ৫ উই. ৪ উই.

১৯৯ ৪.৮২ ২৫২ ৬/২৬ ১ ৭

 

ওয়ানডে মাশরাফির ব্যাটিং পরিসংখ্যান

 

ম্যাচ ইনিংস রান গড় সর্বোচ্চ ৫০ ১০০

১৯৯ ১৪৭ ১৭২২ ১৪ ৫১* ১ -

 

 

কার বিপক্ষে কত ম্যাচ

দল ম্যাচ

জিম্বাবুয়ে ৪২

অস্ট্রেলিয়া ১৫

ইংল্যান্ড ১৩

ভারত ১৯

নিউজিল্যান্ড ১৭

পাকিস্তান ১৮

দক্ষিণ আফ্রিকা ১১

শ্রীলঙ্কা ২২

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১২

বারমুডা ১

কানাডা ২

আয়ারল্যান্ড ৭

নেদারল্যান্ডস ১

স্কটল্যান্ড ৩

আফ্রিকা একাদশ ২

আরব আমিরাত ১

আফগানিস্তান ৬

কেনিয়া ৭

"