নিষ্ফলা ম্যাচে রান করে টেস্ট দলে সাদমান

প্রকাশ : ২০ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

প্রস্তুতি ম্যাচের অর্থটা ছিল নিজেদের ঝালিয়ে নেওয়া। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট দলে থাকা ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সৌম্য সরকার-সাদমান ইসলামের ঝালিয়ে নেওয়াটা মন্দ হয়নি। দুজনই খেলেছেন ৭০ পেরোনো ইনিংস। ২৭ রানে অপরাজিত ছিলেন মোহাম্মদ মিঠুন। তাদের দৃঢ় ব্যাটিংয়ে এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বিসিবি একাদশের দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচটা ড্র হয়েছে। ক্যারিবিয়ানরা প্রথম ইনিংসে করেছেন সাত উইকেটে ৩০৩। বিসিবি একাদশ করেছে পাঁচ উইকেটে ২৩২।

দুই দিন আগে উইন্ডিজদের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টের জন্য দল ঘোষণা করেছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচকরা। কাল তাতে যোগ হলেন আরেকজন। কাল প্রস্তুতি ম্যাচে ৭৩ ইনিস খেলে টেস্ট স্কোয়াডে জায়গা পেয়েছেন সাদমান ইসলাম। দীর্ঘদিন ধরেই নির্বাচকদের রাডারে ছিলেন সাদমান। এ বছর জাতীয় লিগের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক এই ২৩ বছর বয়সী ওপেনার।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টের দল ছিল ১৩ সদস্যের। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু জানিয়ে রেখেছিলেন প্রস্তুতি ম্যাচে কেউ ভালো করলে জায়গা পেতে পারেন মূল দলে। সাদমানের ইনিংসটি মাঠে থেকে দেখেছেন বাংলাদেশের হেড কোচ স্টিভ রোডসও।

সাদমান দলে অন্তর্ভুক্ত হওয়ায় প্রতিযোগিতা বাড়ল ওপেনারদের। স্কোয়াডে আগে থেকেই আছেন দুই ওপেনার সৌম্য সরকার ও ইমরুল কায়েস। সম্প্রতি প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে তিন হাজার রান (৩,০২৩) পূর্ণ করা সাদমান ‘এ’ ফরম্যাটে খেলেছেন ৪২টি ম্যাচ। সাতটি সেঞ্চুরির পাশাপাশি রয়েছে ১৬টি ফিফটি। ২৩ বছর বয়সী এই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান এর আগে খেলেছেন ‘এ’ দল, অনূর্ধ্ব-১৯ এবং বিভিন্ন বয়সভিক্তিক দলের হয়ে।

কাল এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেস সামলে সেঞ্চুরির পথে হাঁটছিলেন সাদমান। তবে থিতু হয়েই ৭৩ রানের ইনিংসটাকে আর টানতে পারেনি রানআউট হওয়ায়। টেস্ট দলের আরেক ওপেনার সৌম্য সরকারের সঙ্গে গড়েন ১২৬ রানের ওপেনিং জুটি। লাঞ্চ বিরতির পর সৌম্য মারকুটে ব্যাটিং করলেও সাদমান ধৈর্য নিয়ে পড়ে থাকেন ২২ গজে। তার ১৬৯ বলের ইনিংসে ছিল ১০টি চার ও একটি ছয়ের মার।

প্রস্তুতি ম্যাচে ফল যে আসবে না তা অনুমিতই ছিল। তবে এই ম্যাচে খেলাটা কাজ দিবে বলে মনে করেন মিঠুন। কাল সংবাদ সম্মেলনে এসে এই ব্যাটসম্যান বলেন, ‘ওদের বোলারদের খেলেছি, একটা ধারণা তো হয়েছেই। এতটুকুই আমাকে পরের ম্যাচে সহায়তা করবে। টেস্টে আমাকে শূন্য থেকে শুরু করতে হবে। প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে একটা সুবিধা হয়েছে, ওদের বোলারদের আগেই খেলতে পারলাম।’

তবে এই প্রস্তুতি ম্যাচে একটি জায়গায় নিজেদের এগিয়ে রেখেছেন মিঠুন, ‘ওরা আমাদের স্পিন খেলেছে। আমাদের ব্যাটসম্যানরাও কিন্তু ওদের ভালো মোকাবিলা করেছে। ওদের তুলনায় আমাদের শুরুটা অনেক ভালো হয়েছে। যদি টপ অর্ডারের কথা বলেন, তাহলে আমি বলব আমাদের শুরুটা ভালো ছিল।’

ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে দুই টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্ট অনুষ্ঠিত হবে ২২ নভেম্বর, চট্টগ্রামে।

"