হেরাথকে ছাপিয়ে ফোক্‌স

প্রকাশ : ০৭ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

একজনের শুরু, অন্যজনের শেষ। রঙ্গনা হেরাথের বিদায়ী টেস্ট। বেন ফোক্সের অভিষেক টেস্ট। মঞ্চটা প্রস্তুত করা হয়েছে এই দুজনের জন্যই। যেখানে দ্যুতি ছড়ালেন ফোক্স। অভিষেক টেস্টেই জাগিয়েছেন শতকের সম্ভাবনা। অন্যদিকে, বিদায়ী টেস্টের শুরুর দিনে হেরাথ থাকলেন নিজের ছায়া হয়ে। ৭৮ রান খরচায় লঙ্কান কিংবদন্তি নিলেন মাত্র এক উইকেট।

ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্টেই দলকে বিপর্যয় থেকে টেনে তুললেন ফোক্স। এক পর্যায়ে ১০৩ রানে পাঁচ উইকেট হারিয়েছিল ইংল্যান্ড। সেখান থেকে দলকে কক্ষপথে ফিরিয়েছেন ফোক্স। তার ৮৭ রানের হার না মানা ইনিংসের ওপর দাঁড়িয়ে দলীয় সংগ্রহ ৩০০ ছাড়িয়েছে ইংল্যান্ড। গত টেস্টের প্রথম দিন শেষে সাত উইকেটে ৩২১ রান করেছে ইংলিশরা।

১৯ বছরের ক্যারিয়ারে শেষ টেস্ট খেলতে নামা হেরাথকে ‘গার্ড অব অনার’ দিয়ে শুরু হয়েছিল টেস্ট। ইংল্যান্ড ক্রিকেটেও এটি ছিল নতুন একটি শুরুর মতো। এক যুগ অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে থাকা অ্যালেস্টার কুকের অবসরের পর এটা তাদের প্রথম টেস্ট। ১২৩ টেস্টের অভিজ্ঞ স্টুয়ার্ট ব্রড একাদশের বাইরে তিন স্পিনার নিয়ে খেলায়। লঙ্কানদের শুরুটা হয় দুর্দান্ত। কুকের জায়গায় সুযোগ পাওয়া ওপেনার ররি বার্নস অভিষেক ইনিংসে করেছেন ৯ রান। তাকে ফেরানোর পরের বলে মইন আলিকেও ফেরান লাকমল।

আরেক ওপেনার কিটন জেনিংস দলকে এগিয়ে নেন জো রুটের সঙ্গে মিলে। তৃতীয় উইকেটে ৬২ রানের জুটি গড়েন দুজন। ৩৫ রানে রুটকে বোল্ড করে জুটি ভাঙেন হেরাথ। গলে দ্বিতীয় বোলার হিসেবে স্পর্শ করেন শততম উইকেট। আরেক পাশে জ্বলে ওঠেন দিলরুয়ান পেরেরা। ৪৬ রানে জেনিংসকে থামান এই অফ স্পিনার। সাত রানে ফিরিয়ে দেন বেন স্টোক্সকেও।

১০৩ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে তখন ধুঁকছে ইংল্যান্ড। পরে ষষ্ঠ উইকেটে জস বাটলার-ফোকস জুটি ৬৪ রানের। বাটলারের ইনিংস ৩৮ রানে থামান পেরেরা। সপ্তম উইকেট জুটিতে আসে ৮৮ রান। ৩ ছক্কায় ৪৮ রান করা কারানকে ফিফটির আগে ফিরিয়ে দেন আকিলা ধনাঞ্জয়া। শ্রীলঙ্কার যন্ত্রণা তাতে শেষ হয়নি। অষ্টম উইকেটে আদিল রশিদের সঙ্গে ফোকস গড়েন ৫৪ রানের জুটি। ৪টি চার ও ২টি ছক্কায় ৩৫ রান করা রশিদকে আউট করেন পেরেরা। দিন শেষ করেছেন ১৮৪ বলে ৮৭ রানে। চার ছিল কেবল ৬টি।

 

"