এমিরেটসে রোমাঞ্চকর ড্র

প্রকাশ : ০৫ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের চলতি মৌসুমে যেন পয়েন্ট না খোয়ানোর প্রতিজ্ঞা নিয়েই মাঠে নামছে ক্লাবগুলো। পয়েন্ট টেবিলের শেষ পাঁচ দলের তালিকার দিকে তাকালেই তা স্পষ্ট বুঝা যাবে। ১১ ম্যাচ শেষে ২৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে থাকা লিভারপুলের সঙ্গে পাঁচে থাকা আর্সেনালের ব্যবধান মাত্র চার পয়েন্টের। পরশু অবশ্য ব্যবধানটা অল্প বাড়িয়ে নেওয়ার সুযোগ ছিল লিভারপুলের সামনে। তাও আর্সেনালের ঘরের মাঠ এমিরেটস স্টেডিয়ামে। কিন্তু নতুন কোচ উনাই এমেরির অধীনে নিজেদের নতুনভাবে খুঁজে পেয়েছে গানাররা। অলরেডদের বিপক্ষে পিছিয়ে পড়েও ১-১ গোলের সমতা নিয়ে মাঠ ছেড়েছে তারা। এ নিয়ে সব প্রতিযোগিতা মিলে টানা ১৩ ম্যাচ অপরাজিত আছে আর্সেনাল।

অন্যদিকে ২০০৭-০৮ মৌসুমের পর এই প্রথম টানা ১১ ম্যাচ অপরাজিত আছে লিভারপুল। আর্সেনাল অবশ্য দুই ম্যাচে হেরেছে। এ ছাড়া লিভারপুলের বিপক্ষে নিজেদের গত সাত ম্যাচের একটিতেও জয় পায়নি তারা। তিন ড্রয়ের সঙ্গে চারটিতে হারের স্বাদ পেতে হয়েছে তাদের। পরশু অবশ্য প্রথমে এগিয়ে যেতে পারত লিভারপুল। ১৮তম মিনিটে সাদিও মানের গোলটি অফসাইডের কারণে বাতিল করে দেন ম্যাচ রেফারি। কিন্তু টিভির রিপ্লেতে দেখা যায় পরিষ্কার অনসাইডে ছিলেন মানে। পরে গোলটি নিয়েই ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে যত কথা হয়েছে। লিভারপুল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপ বলেন, ‘আমি মনে করি এটা গোল ছিল। এটা গোল দেওয়া উচিত ছিল। সে (মানে) বলটির পেছনে দৌড়ে গিয়েছিল কারণ সে অফসাইড ছিল তা মনে করেনি। পরে রেফারি বাঁশি বাজায়।’

অবশ্য প্রথমার্ধে গোল না পেলেও দ্বিতীয়ার্ধে ঠিকই লিভারপুল এগিয়ে যায় জেমস মিলনারের গোলে। ৬১ মিনিটে প্রতিপক্ষের গোলরক্ষক বার্নাড লেনোকে পরাস্ত করেন ইংলিশ মিডফিল্ডার। নিজেদের মাঠে গোল হজমের পরপরই জ্বলে উঠে আর্সেনাল। শেষ পর্যন্ত ৮২ মিনিটে অ্যালেক্স ইয়োবি থ্রু থেকে গানারদের সমতায় ফেরান আলেক্সান্দ্রে লাকাজাত্তে। মৌসুমে ফরাসি ফরওয়ার্ডের এটি ষষ্ঠ গোল।

তবে এমন উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে হার এড়াতে পারায় স্বস্তি ও আক্ষেপ দুই ছিল কোচ এমেরির কণ্ঠে। ম্যাচ শেষে স্প্যানিশ কোচ বলেন, ‘আমরা জিততে চেয়েছিলাম, আমাদের পারফরম্যান্সও ভালো ছিল। আমি ৫০% শতাংশ আনন্দিত কারণ আমরা জয় চেয়েছি। ম্যাচে আমাদের যথেষ্ট ভারসাম্য ও গতি ছিল। ৯০ মিনিট পর্যন্ত আমরা লড়াই করেছি। আমাদের আরেকটু বেশি প্রাপ্য ছিল।’

নিশ্চিত গোল না পাওয়ায় কিছুটা হতাশ দেখা গেছে কোচ ক্লপকে। সঙ্গে স্বভাবসুলভ ভঙ্গিতে আর্সেনাল কোচকে কিছুটা ব্যঙ্গও করেছেন তিনি, ‘এক পয়েন্ট ভালো ফল। উনাই এমেরিও একই কথা বলবেন, কিন্তু আমাদের পরিষ্কার সম্ভাবনা ছিল জয়ের।’

 

"