বাংলাদেশের প্রস্তুতি পর্ব শুরু

প্রকাশ : ১৬ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

টেস্ট এবং ওয়ানডে সিরিজ খেলতে আজ ঢাকায় আসছে সফরকারী জিম্বাবুয়ে। হোম ম্যাচ সিরিজকে সামনে রেখে কাল থেকে অনুশীলনে নেমে পড়েছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। টাইগারদের কন্ডিশনিং ক্যাম্প শুরু হলো স্কিল ট্রেনিং দিয়ে। সচারচর ফিটনেস অনুশীলন দিয়েই বাংলাদেশের প্রস্তুতিপর্ব শুরু হয়ে থাকে।

স্কিল অনুশীলনটাও হলো একটু গতানুগতিক ধারার বাইরে। দুই-এক রান নেওয়ার অনুশীলন চলল বেশ কিছুক্ষণ। এই পর্বে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েছেন ব্যাটসম্যানরা। দেওয়ারই কথা, এবারে এশিয়া কাপ ক্রিকেটে দুই-এক রান নিতে দিয়ে বেশ ভুগতে হয়েছিল টাইগারদের। ভুল বোঝাবুঝিতে বেশ কয়েকটা রানআউটও তো হয়েছে।

সিঙ্গেল বের করতে না পারা, চাপ কাটিয়ে শটের বিলাসিতা করতে গিয়ে উইকেট দিয়ে আসা বাংলাদেশ দলের জন্য নতুন কিছু নয়। এবারই প্রথম সেই দুর্বলতা কাটাতে বিশেষ অনুশীলন করেছে বাংলাদেশ দল। কাল দুপুরের পরই হলো ফিটনেস অনুশীলন। যেটা দিয়ে প্রস্তুতিপর্ব শুরু হওয়ার কথা ছিল।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের জন্য সম্প্রতি দল ঘোষণা করেছে নির্বাচক প্যানেল। ইনজুরির কারণে ঘোষিত দলে ঠাঁই হয়নি সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালের। ইনজুরিতে ভুগছেন দলের অভিজ্ঞ আরো কয়েকজন ক্রিকেটার। বাংলাদেশ দলে যে নতুন মুখ আসছে সেটা একপ্রকার অনুমিতই ছিল। নির্বাচকদের সেই চমকের নাম ফজলে মাহমুদ রাব্বি।

প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ৩০ বছর বয়সী ক্রিকেটার হিসেবে জাতীয় দলে ডাক পেয়েছেন তিনি। ঘরোয়া ক্রিকেটে ১৫ বছর খেলার পুরস্কারটা যে রাব্বি এভাবে পাবেন সেটা ছিল অনেকের কল্পনারও বাইরে। স্বাভাবিকভাবেই কালকের প্রথম অনুশীলনে সবার নজর ছিল তার দিকেই।

কাল অনুশীলনের পর গণমাধ্যমের কাছে ছোটখাটো বিষয়গুলোর ওপর গুরুত্ব দিলেন রাব্বি। বলেছেন, ‘সিঙ্গেল বের করা নিয়ে, স্ট্রাইকর রোটেশন নিয়ে কাজ করেছি আমরা। নতুন নতুন কিছু জিনিস আছে, ছোট ছোট বিষয়Ñ এসব নিয়েই কাজ করেছি। দ্রুত সবকিছু বদলে ফেলা সম্ভব নয়। কিন্তু ছোটখাটো কিছু বিষয় আছে যেগুলোয় পরিবর্তন আনলে খেলা ভালো হয় আমরা সেদিকেই মনোযোগ দিচ্ছি।’

কাল প্রথমবারের মতো জাতীয় দলের ড্রেসিংরুমে প্রবেশ করেছেন ৩০ বছর বয়সী ব্যাটসম্যান। জাতীয় দলের হয়ে প্রথম অনুশীলন, নতুন একটা অধ্যায়ের সূচনা। সবমিলিয়ে স্বপ্নের ঘোরের মধ্যেই আছেন রাব্বি। সবকিছুই উপভোগ করছেন রাব্বি, ‘আমার কাছে ওরকম (চাপ) কিছু মনে হচ্ছে না। সবকিছু উপভোগ করছি। (ড্রেসিংরুম) একদম ভালো সবকিছু। সবাই সবার কাজ নিয়ে খুব চিন্তা করে। কার কোনটা দায়িত্ব, সবাই খুব ভালো জানে। আমি দেখেছি, শেখার চেষ্টা করছি। তারা একেকজন কতটা সিরিয়াস, এটা আমাকে খুবই অনুপ্রাণিত করছে।’

প্রসঙ্গত, আগামী রোববার থেকে শুরু হচ্ছে জিম্বাবুয়ে-বাংলাদেশের তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ।

 

"