জেদ্দায় আজ ফুটবল যুদ্ধ

প্রকাশ : ১৬ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

‘ব্রাজিল আর্জেন্টিনার মধ্যে আমার কিসের প্রীতি ম্যাচ?’ মন্তব্যটা খোদ ব্রাজিল কোচ টিটের। ব্রাজিল যখন আর্জেন্টিনার বিপক্ষে মাঠে নামে তখন তা আর প্রীতি ম্যাচ থাকে না। কারণ দুই ল্যাটিন চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর লড়াইটা যে ঐতিহাসিক। যেখানে ছিটে-ফোঁটাও ছাড় দিতে রাজি নন কেউ। আজ রাত ১২টায় তেমন আরেকটি ধ্রুপদী লড়াইয়ে সৌদি আরবের জেদ্দায় আর্জেন্টিনার মুখোমুখি হবে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল।

প্রীতি ম্যাচ খেলার জন্য বর্তমানে সৌদি সফরে আছে বিশ্বফুটবল পরাশক্তির এই দুই দল। আগস্টে দুই দল যুক্তরাষ্ট্র সফর করলেও মুখোমুখি হয়নি। তবে এবার সেই অপেক্ষাটা ঘুচেছে। ফুটবলপ্রেমীরা আজ তাকিয়ে থাকবে জেদ্দার দিকে। ধ্রুপদী যুদ্ধের আগেই আবহটা ছড়িয়ে পড়েছে দুই দলের ‘সাপে-নেউলে’ সমর্থকদের মধ্যে।

বিশ্ব ফুটবলের শত বছর কেটে গেছে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার তর্ক নিয়ে। সেরা হওয়ার তর্ক কখনো কখনো আলোচনা ছেড়ে গড়িয়েছে হাতাহাতি-মারামারির পর্যায়ে। প্রতি বিশ্বকাপে সেই তর্ক আবার চড়ে সপ্তম স্বর্গ পর্যন্ত। বাংলাদেশ তো বটে, দুই দলের সমর্থক ছড়িয়ে আছে পুরো বিশ্বে। যেখান বিশ্বকাপের আগেই আলোচনা শুরু হয়ে যায়, শিরোপাটা আর্জেন্টিনাতে যাচ্ছে নাকি ব্রাজিলে। সবাই প্রত্যাশা করে বসে থাকে, এবার বোধহয় ফাইনালে সাক্ষাৎ হচ্ছে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার। কিন্তু ১৯৯০ সালের পর বিশ্বকাপে আর দেখা হয়নি দুই দলের। সেই ম্যাচে ডিয়েগো ম্যারাডোনা নৈপুণ্যে ১-০ গোলে জিতেছিল আর্জেন্টিনা।

তবে দীর্ঘদিন ধরে ল্যাটিন দুই জায়ান্ট শক্তির বিচারে পিছিয়ে পড়েছে ইউরোপ থেকে। যেখানে ২০০২ সালের পর আর কোনো সাফল্য নেই ব্রাজিলের। আর অন্যদিকে আর্জেন্টিনা শেষবার বিশ্বকাপ জিতেছিল ১৯৮৬ সালে। মাঝে ১৯৯০ ও ২০১৪ সালে খুব কাছে গিয়েও ব্যর্থতা ঘুচাতে পারেনি লা আলবিসেলেস্তেরা। গত রাশিয়া বিশ্বকাপটা তো নিজেদের স্মৃতি থেকে মুছে ফেলতে পারলেই যেন স্বস্তি ফিরে দুই শিবিরে। অথচ ফেভারিট হিসেবে রাশিয়া গিয়েছিল দুই দল। কিন্তু কোচ হোর্হে সাম্পাওলির অধীনে আর্জেন্টিনা ঘরে ফিরে শেষ ষোলো থেকে। আর কোচ টিটে শিরোপার আশা জোগালেও বিদায় নেয় কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে। টিটে নিজের চাকরিটা বাঁচাতে পারলেও বরখাস্ত হয়েছেন সাম্পাওলি।

দুই দলের শেষ দেখাটা হয়েছে গত বছর ৯ জুন। প্রীতি ম্যাচটি ১-০ গোলে জিতেছিল আর্জেন্টিনা। আজ তাই গত হারের প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য মাঠে নামবে সেলেকাওরা। তবে সৌদি আরব সফরে দুই দলই শানিয়ে রেখেছে অস্ত্রগুলো। নিজেদের শেষ ম্যাচে ইরাকের বিপক্ষে ৪-০ গোলের জয় পেয়েছে তারুণ্য নির্ভর আর্জেন্টিনা। অন্যদিকে নেইমার-গ্যাব্রিয়েল জেসুস নির্ভর ব্রাজিল স্বাগতিক সৌদিকে হারিয়েছে ২-০ গোলে।

তবে আজকের আগুনে লড়াইয়ের আগে আর্জেন্টিনার ভারপ্রাপ্ত কোচ লিওনেল স্কালোনিকে দল সাজাতে হবে লিওনেল মেসিকে ছাড়া। বিশ্বকাপের পরপরই দলের প্রধান অস্ত্র সাময়িক অবসর নিয়েছেন জাতীয় দল থেকে। ব্রাজিলের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে অবশ্য স্কালোনি মেসিকে ফেরানোর আভাস দিয়েছিলেন। কিন্তু বার্সেলোনা ফরওয়ার্ড অনড় রয়েছেন তার সিদ্ধান্তে। ইরাকের বিপক্ষে তরুণ দল নিয়েও বড় জয় পেয়েছে দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। আজকে হয়তো মূল একাদশে পরিবর্তন আনতে পারেন। তরুণদের পাশাপাশি দেখা যেতে পারে মাউরো ইকার্দি-পাওলো দিবালা-অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়াদের। অবশ্য জাতীয় দলে প্রায় নতুনই বলা যায় ইকার্দি ও দিবালাকে।

অন্যদিকে ব্রাজিল আছে বেশ স্বাচ্ছন্দ্যে। সেলেকাওদের প্রাণভোমরা নেইমার আছেন দারুণ ছন্দে। পিএসজির জার্সিতে দুই সপ্তাহ আগে চ্যাম্পিয়নস লিগের

ম্যাচে হ্যাটট্রিক করেছেন তিনি। এ ছাড়া গোল খরা কাটিয়ে ফর্মে ফিরেছেন ম্যানসিটি তারকা জেসুস।

 

"