সমালোচনার মুখে নেইমার-এমবাপ্পে

প্রকাশ : ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্বে লিভারপুলের মাঠ অ্যানফিল্ডে ৩-২ গোলে হেরেছে পিএসজি। শেষদিকে গোল হজমের আগ পর্যন্ত স্বাগতিকদের বিপক্ষে ভালো লড়াই করেছে ফরাসি জায়ান্টরা। কিন্তু নিজেদের মাঠে সমর্থকদের সামনে পেয়ে দুর্দান্ত খেলে লিভারপুল। তবু কিলিয়ান এমবাপ্পে, নেইমার কিংবা এডিনসন কাভানিদের সমালোচনা চলছেই। দলের রক্ষণকাজে এ তিনজনের একদমই মনোযোগ না দেওয়া, বাকিদের কাছে রক্ষণের দায়িত্ব দিয়ে বসে থাকাটা ভালোভাবে নিচ্ছেন না কেউ। আর সমালোচনায় সবচেয়ে এগিয়ে আছেন ব্যালন ডি’ অর জয়ী জ্যঁ পিয়েরে পাপিন।

ফ্রেঞ্চ লিগে দাপটের সঙ্গে খেলছে পিএসজি। কিন্তু চ্যাম্পিয়নস লিগ এলেই সে দাপট হারিয়ে যাচ্ছে। গত মৌসুমে গ্রুপ পর্বে তবু দাপুটে শুরু হয়েছিল। এবার দেখতে হয়েছে প্রথম ম্যাচেই হার। শুধু লিভারপুলের কাছে হার বলে কথা নয়। ফুটবল ইতিহাসের সবচেয়ে দামি আক্রমণভাগ গত মৌসুমেও কঠিন ম্যাচগুলোতে প্রত্যাশিত ফল এনে দিতে পারেনি। রিয়ালের বিপক্ষে ঘরে-বাইরে দুই ম্যাচেই হেরেছে পিএসজি। বায়ার্ন মিউনিখের মাঠেও হেরেছে তারা। অথচ চ্যাম্পিয়নস লিগে সাফল্য পেতেই টাকা খরচ করেছে পিএসজি। পাপিন তাই দোষ দেখছেন আক্রমণের তিনজনের, ‘পিএসজির হয়ে ওরা নায়ক নয় বরং এক একটা অহংকারী তারকা। তুমি যেই হও না কেন, দলের হয়ে কাজ তোমাকে করতে হবে। ফ্রান্সে আমরা ধরেই নেই ওদের সামলানো সম্ভব না। লিভারপুল যদি ওদের একত্রে খেলাতে পারে, তবে আমরা এখানে পারি না কেন? নেইমার যখন বার্সেলোনায় খেলত তখন তো দলের রক্ষণে ঠিকই সাহায্য করত।’

এসি মিলানের হয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ী এই সাবেক ফরওয়ার্ডের দাবি, নেইমার-এমবাপ্পেদের মানসিকতাতেই সমস্যা, ‘ওদের দক্ষতা আছে, সেটা সব সময় থাকবে। এটা খেলোয়াড়দের ডিএনএতেই থাকেই। সেখানে কোনো সমস্যা নেই। কিন্তু ওদের এক হয়ে খেলতে হবে। ওদের এই ক্ষমতা দিয়ে চারপাশের সবাইকে সুবিধা করে দিতে হবে। দলের সেরা তারকা কে, এটা মাথায় আনা চলবে না। ক্লাবের লক্ষ্য হলো চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতা। কিন্তু খেলোয়াড়দের মাথায় যদি সে চিন্তা না থাকে, তবে ওরা জীবনেও সেটা পারবে না।’

"