সুপার ফোরের সূচি চূড়ান্ত

এসিসির নাটকে ক্ষুব্ধ মাশরাফি

প্রকাশ : ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক, দুবাই থেকে

প্রথম দুই ম্যাচেই হেরেছে শ্রীলঙ্কা ও হংকং। যা দুটো দলকেই ছিটকে দিয়েছে এশিয়া কাপের মঞ্চ থেকে। তাদের বিদায় সুপার ফোর নিশ্চিত করে দিয়েছে বাংলাদেশ, আফগানিস্তান, ভারত ও পাকিস্তানের। তাতেই গুরুত্ব হারিয়েছে দুই গ্রুপের শেষ দুটি ম্যাচ। সেটাকে আরো মূল্যহীন করে তুলল এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল (এসিসি)। গ্রুপ নির্ধারণী দুই ম্যাচের আগেই পরের রাউন্ডের ফিকশ্চার করে ফেলেছে সংস্থার কর্তাব্যক্তিরা! ক্রিকেটপ্রেমীদের বিস্ময় আকাশ ছোঁয়াটাই স্বাভাবিক।

অথচ সুপার ফোরের ম্যাচের ফিকশ্চার দাঁড়ানো ছিল গ্রুপের পয়েন্ট টেবিলের ওপর। কিন্তু নিয়মের তোয়াক্কা না করে আচমকাই জরুরি সভা করে সুপার ফোরের সূচি নির্ধারণ করে দিয়েছে এসিসি। যেখানে বাংলাদেশ ‘বি’ ২ অর্থাৎ গ্রুপ রানার্সআপ। আজ আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয় পেলেও জিতলেও ‘বি’ ১ কিংবা গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই।

তাই দুই দিনে দুটি ম্যাচ খেলতে হচ্ছে বাংলাদেশকে। আজ আবু ধাবিতে আফগানিস্তানের বিপক্ষে আনুষ্ঠানিকতার ম্যাচ টাইগারদের। এই ম্যাচের ধকল কাটিয়ে ওঠারও সময় পাচ্ছে না টাইগাররা। কালই যে ভারতের মুখোমুখি হতে হচ্ছে মাশরাফি অ্যান্ড কোংকে। তাই সুপার ফোরের প্রথম ম্যাচকেই সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে বাংলাদেশ।

পরিবর্তিত সূচিতে সবচেয়ে বেশি লাভবান হয়েছে বিশেষ একটি দল- ভারত। সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বাংলাদেশ। কমবেশি ভোগান্তি আছে পাকিস্তান, আফগানিস্তানেরও। তিনটি দলকেই খেলতে হবে দুবাই ও আবু ধাবি ঘুরে ঘুরে। যেখানে ভারতকে খেলতে হচ্ছে শুধু দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামেই। তাতে করে ভ্রমণক্লান্তির কোনো ঝামেলা হচ্ছে না রোহিত-ধোনিদের। তা ছাড়া প্রতি ম্যাচের আগে অন্তত একদিন সময়ও পাচ্ছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

সেখানে ১২ ঘণ্টার ব্যবধানে বাংলাদেশ খেলবে দু-দুটি ম্যাচ। আরব দেশের তীব্র দাবদাহ, ভ্রমণক্লান্তি এবং সংক্ষিপ্ত সূচি সবমিলিয়ে কঠিন পরীক্ষাই দিতে হয়েছে টাইগারদের। এসিসির এমন নাটকীয় সূচি পরিবর্তনে ক্ষুব্ধ বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। কাল হতাশ কণ্ঠে গণমাধ্যমকে তিনি বলেছেন, ‘সূচি বদল নিয়ে চিন্তা করার সুযোগই পাইনি। এটা অবশ্যই হতাশার। আমাদের পরিকল্পনা ছিল যে, শ্রীলঙ্কাকে প্রথম ম্যাচে হারাতে পারলে আমরা হয়তো গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পথে এগিয়ে যাব; ‘এ’ গ্রুপ রানার্সআপ দলের সঙ্গে সুপার ফোরের ম্যাচ খেলব। কিন্তু আজ (বুধবার) সকাল থেকে জানতে পারছি আফগানিস্তান ম্যাচে জিতি বা হারি আমরা ‘বি ২’ হয়ে গেছি।’

এসিসির এমন কান্ডে স্বাভাবিকভাবেই বিস্মিত হয়েছেন মাশরাফি। এই ম্যাচের মানদন্ড তার কাছে শুধুই একটা আন্তর্জাতিক ম্যাচের। এর বেশি কিছু নয়। বাংলাদেশ দলপতি বলেছেন, ‘আফগানিস্তানের সঙ্গে ম্যাচটি এখন শুধু আন্তর্জাতিক ম্যাচের মূল্য আছে। কিন্তু গ্রুপ ম্যাচ বা যাই বলুন না কেন, টুর্নামেন্টের একটা নিয়ম থাকে। আমরা সেই নিয়মের বাইরে চলে যাচ্ছি। এটা খুব হতাশার।’

 

সুপার ফোরের পরিবর্তিত সূচি

 

তারিখ মুখোমুখি ভেন্যু

২১ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ-ভারত দুবাই

২১ সেপ্টেম্বর পাকিস্তান-আফগানিস্তান আবু ধাবি

২৩ সেপ্টেম্বর ভারত-পাকিস্তান দুবাই

২৩ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ-আফগানিস্তান আবু ধাবি

২৫ সেপ্টেম্বর ভারত-আফগানিস্তান দুবাই

২৬ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ-পাকিস্তান আবু ধাবি

২৮ সেপ্টেম্বর ফাইনাল দুবাই

* সব ম্যাচ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় ৫.৩০ টা।

"