ক্রোয়েশিয়ার জালে স্পেনের গোল উৎসব

প্রকাশ : ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

রাশিয়া বিশ্বকাপে নিজেদের সামর্থ্য নিয়ে অনাস্থায় ছিল না স্পেন। কিন্তু স্বাগতিক রাশিয়ার বিপক্ষে অঘটনের শিকার হয়ে ২০১০ বিশ্বকাপজয়ীদের ফিরতে হয়েছে দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে। তার অবশ্য কারণও আছে। টুর্নামেন্ট শুরুর দুই দিন আগে লা রোজাদের হারাতে হয় কোচ হুলেন লোপেতেগিকে। ধাক্কাটা এমন ছিল যে, বিশ্বকাপের পরপরই জাতীয় দলকে বিদায় বলে দেন ডেভিড সিলভা। আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা অবশ্য ঘোষণাটা আগেই দিয়ে দিয়েছিলেন। রাশিয়া ব্যর্থতার পর স্প্যানিশদের ডাগআউটে এসেছেন সাবেক বার্সেলোনা কোচ লুইস এনরিকে। সার্জিও রামোস, ইস্কো, মার্কো আসানসিওরা খুঁজছিলেন জাতীয় দলের জার্সিতে নিজেদের প্রমাণ করার সুযোগ। অবশেষে সেই প্রমাণটা তারা দিয়েছেন বিশ্বকাপের ফাইনালিস্ট ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে। ইউরোপের নতুন আসর উয়েফা নেশনস লিগের গ্রুপ পর্বের ম্যাচে ক্রোয়াটদের ৬-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে স্পেন।

বিশ্বকাপে প্রায় একক নৈপুণ্যে ক্রোয়েশিয়াকে ফাইনালে তুলেছেন লুকা মডরিচ। কিন্তু পরশু নিজের সেরাটা তিনি ঢেলে দিতে পারেননি ক্লাব সতীর্থ রামোস ও আসানসিওদের বিপক্ষে। কোচ জøাতকো দালিচ হয়তো স্বপ্নেও ভাবেননি এত বড় হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হবে। ক্রোয়াটদের সবচেয়ে বেশি ভুগিয়েছেন স্পেনের তরুণ ফরওয়ার্ড আসানসিও। এক গোল করার পাশাপাশি তিনটি গোলে সহায়তা করেছেন এই রিয়াল তারকা।

প্রথমার্ধের ২৪ মিনিটে সাউল নিগুয়েজের গোলে শুরু। এরপর গোল উৎসবে যোগ দেয় স্প্যানিশরা। ৩৩ মিনিটে আসানসিও গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ করে তারা। ২ মিনিট পর লভরে কালিনিচের আত্মঘাতী গোলে পিছিয়ে পড়ে বিরতিতে যায় ক্রোয়াটরা। দ্বিতীয়ার্ধে আরো বেশি ভয়ঙ্কর হয়ে উঠে স্পেন। ৪৯ মিনিটে রদ্রিগো, ৫৭ মিনিটে রামোস ও ৭০ মিনিটে ইস্কোর গোলে পর লজ্জা নিয়ে মাঠ ছাড়ে দালিচের শিষ্যরা। স্পেনের দায়িত্ব নেওয়ার পর টানা দুই ম্যাচে জয় পেয়েছেন এনরিকে। এমন জয়ে শিষ্যদের কৃতিত্ব দিতে গিয়ে তিনি সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘ক্রোয়েশিয়ার মতো দলের বিপক্ষে জয় পাওয়া কঠিন। তারা স্কোর করতে সক্ষম কিন্তু আমরা তাদের চেয়ে উচ্চতর দল।’

 

ফলাফল

স্পেন ৬-০ ক্রোয়েশিয়া

আইসল্যান্ড ০-৩ বেলজিয়াম

হাঙ্গেরি ২-১ গ্রিস

"