ফাইনালে ভারত-মালদ্বীপ

প্রকাশ | ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

মালদ্বীপ কোচ পিটার সেগার্টের চাকরিটা নিয়ে এবার বোধহয় গুঞ্জনটা থামবে। ভাগ্যগুণে সেমিফাইনালে উঠে আসা দলটি গত দুই ম্যাচে একটিও গোল করতে পারেনি। উল্টো ভারতের বিপক্ষে হজম করেছে দুই গোল। আর তাতেই প্রশ্ন দেখা দেয় সেগার্টের চাকরি নিয়ে। এছাড়া দলে অভিজ্ঞদের বদলে তরুণদের বেশি সুযোগ দেওয়াতেও সমালোচনার মুখে পড়তে হয় জার্মান কোচকে। এসব ঝামেলার মাঝে শেষ চারে নেপালের বিপক্ষে মাঠে আগের সংবাদ সম্মেলনে মালদ্বীপ সাংবাদিকদের তিনি জানান, চাকরিতে বহাল তবিয়তে থাকার কথা। তার জন্য অবশ্য মাঠে জবাব দেওয়া ছাড়া কোনো বিকল্প ছিল না সেগার্টের হাতে। শেষ পর্যন্ত তা করতে পেরেছে তার দল। কাল বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে ইব্রাহিম ওয়াহিদ হাসানের জোড়া গোলে নেপালকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নিশ্চিত করেছে মালদ্বীপ।

স্বাগতিক বাংলাদেশকে হারিয়ে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করা নেপালকে কাল ৯ মিনিটে চুপ করে দেন আকরাম আবদুল হাদী। এরপর গোলশোধে মরিয়া হিমালয়ের দেশটিকে ম্যাচের শেষ মুহূর্তে জোড়া ধাক্কা দেন ইব্রাহিম। এই নিয়ে চারবার সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের সেমি থেকে বাদ পড়ল নেপাল। আর পঞ্চমবারের মতো ফাইনালে উঠেছে মালদ্বীপ।

কাল বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের আরেক ম্যাচে মানভির সিংয়ের জোড়া গোলে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানকে ৩-১ গোলে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে ভারত। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের আসরের শিরোপাটা বলতে গেলে নিজেদের সম্পত্তি বানিয়ে ফেলেছে তারা। সর্বোচ্চ ৭টি শিরোপার পাশাপাশি এই নিয়ে ১১বার ফাইনাল খেলবে ভারত। এবারের আসরে ভারত তাদের অনূর্ধ্ব-২৩ দল পাঠিয়েছিল বাংলাদেশে। কিন্তু তাতেও কেউ থামাতে পারেনি তাদের জয়যাত্রা। কালকে অবশ্য প্রথমার্ধ পর্যন্ত ভারতের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ম্যাচে ছিল পাকিস্তানিরা। তবে দ্বিতীয়ার্ধে পাকদের কোনো সুযোগ না দিয়ে ৪৮ মিনিটে মানভির সিংয়ের গোলে এগিয়ে যায় ভারত। ৬৯ মিনিটে ব্যবধানটা দ্বিগুণ করেন মানভির। ৮৪ মিনিটে ভারত পুনরায় এগিয়ে যাওয়ার পর একই মিনিটে একটি গোল শোধ করেন পাকিস্তানের মুহাম্মাদ আলী। ১৫ সেপ্টেম্বর ফাইনালে ভারত মুখোমুখি হবে মালদ্বীপের বিপক্ষে। গত আসরের চ্যাম্পিয়নরা চাইবে এবারো শিরোপা ধরে রাখতে।

"