বিদায়ী মঞ্চে রঙিন কুক

প্রকাশ : ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

কাল লন্ডন টেস্টে শুরুর গল্পটা আরেকবার মনে করিয়ে দিলেন ইংলিশ ব্যাটসম্যান অ্যালিস্টার কুক। ২০০৬ সালে ভারত সফরের আগে হাঁটুর চোটে পড়েন অধিনায়ক মাইকেল ভন। অন্যদিকে মানসিক চাপে নির্বাসনে চলে যান মার্কাস ট্রেসকোথিক। দুই নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে ইংল্যান্ড তখন নতুন ব্যাটসম্যান খুঁজছিল। যে কিনা ক্রিজে পড়ে থাকার পাশাপাশি সচল রাখবে রানের চাকা। সে যাত্রায় ইংল্যান্ড পেয়ে যায় ঘরোয়া ক্রিকেট ও বয়সভিত্তিক দলে দুর্দান্ত পারফর্ম করা ২১ বছর বয়সী অ্যালিস্টার কুককে। ১ মার্চ এন্ড্রুু স্ট্রসের সঙ্গে ভারতের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে ব্যাটিংয়ে নামলেন কুকি। অভিষেকেই ক্রিকেট বিশ্ব দেখল সদ্য কৈশোর পেরোনো এক বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যানের অপূর্ব কীর্তি।

অভিষেক টেস্টের প্রথম ইনিংসে কুক যখন প্যাভিলিয়নে ফিরছেন তখন নামের পাশে জ্বলজ্বল করছে ৬০ রান। দ্বিতীয় ইনিংসে সবাইকে অবাক করে দিয়ে তুলে নিলেন ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি। সেদিন নটআউট ১০৪ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলা কুক টেস্ট ক্রিকেটকে শাসন করেছেন এক যুগ। কিন্তু ভারতের বিপক্ষে চতুর্থ টেস্টে জয়ের পরপরই অবসর নেওয়ার কথাটা জানিয়ে দেন ৩৩ বছর বয়সী ব্যাটসম্যান।

ভারতের বিপক্ষে চার টেস্টে ব্যাট হাতে তেমন কিছু করতে না পারাটা নিশ্চয় যন্ত্রণা দিচ্ছিল কুকিকে। কিন্তু ‘ক্রিকেট গড’ তার প্রিয় পুত্রের শেষটা রাঙিয়ে দিলেন দারুণভাবে। যেখান থেকে শুরু করেছেন এবার সেখানেই ফিরেছেন কুক। প্রথম টেস্টের মতো শেষ টেস্টের দুই ইনিংসে পেয়েছেন অর্ধশতক ও শতক। যে কীর্তি এর আগে করেছেন মাত্র চারজন। প্রথম ও বিদায়ী টেস্টে সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি রেগিনাল ডাফ (১৯০২-১৯০৫)। পরে এই কীর্তিতে ভাগ বসান বিল প্রন্সফোর্ড (১৯২৪-১৯৩৪), গ্রেগ চ্যাপেল (১৯৭০-১৯৮৪) ও মোহামম্মদ আজহারউদ্দিন (১৯৮৪-২০০০)। একটা জায়গায় অবশ্য সবাইকে ছাড়িয়ে গেছেন কুক। একই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে এর আগে কেউ অভিষেক ও বিদায়ী টেস্টে কেউ সেঞ্চুরি পায়নি। সঙ্গে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে পেয়েছেন সর্বোচ্চ ১৩টি সেঞ্চুরি। বাঁহাতি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সর্বোচ্চ রানও তার।

কালকের সেঞ্চুরিতে টেস্ট ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকদের মধ্যে পঞ্চম স্থানে উঠে এসেছেন কুক। ৪৫.৩৫ গড়ে ১২,৪৭২ রান নিয়ে তিনি ষষ্ঠ স্থানে ঠেলে দিয়েছেন কুমার সাঙ্গাকারাকে। ১৬১ টেস্টে ২৯১ ইনিংসে ৫৭টি হাফ সেঞ্চুরির পাশাপাশি করেছেন ৩৩টি সেঞ্চুরি করেছেন কুকি।

শেষ টেস্টে ভারতের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে কুক করেছিলেন ৭১ রান। কাল শেষবারের জন্য ব্যাট হাতে রিশভ প্যান্টের বলে আউট হওয়ার আগে করেছেন ১৪৭ রান। তার চমৎকার ব্যাটিংয়ের ওপর ভর করে (এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত) চতুর্থ দিনে ইংল্যান্ড ৬ উইকেট হারিয়ে করেছে ৩৬১ রান। সেঞ্চুরি পেয়েছেন জো রুটও। ইংলিশ অধিনায়ক করেছেন ১২৫ রান।

এর আগে ইংল্যান্ড সিরিজের পঞ্চম টেস্টের প্রথম ইনিংস শেষ করেছিল ৩৩২ রানে। জবাবে রবীন্দ্র জাদেজার ব্যাটিং দৃঢ়তায় সব উইকেট হারিয়ে ভারতের সংগ্রহ দাঁড়ায় ২৯২ রান। ৪০ রানে এগিয়ে থেকে তৃতীয় দিন শুরু করা ইংল্যান্ড ভারতের সামনে দাঁড় করিয়েছে ৪০১ রানের বিশাল পাহাড়। ব্যাটিংয়ে আছেন স্যাম কারেন ও বেন স্টোক্স। ৬টি উইকেটের ২টি করে ভাগাভাগি করে নিয়েছেন সামি, বিহারী ও জাদেজা।

 

একনজরে টেস্ট ক্যরিয়ার

ম্যাচ : ১৬১

ইনিংস : ২৯১

রান : ১২,৪৭২

গড় : ৪৫.৩৫

সর্বোচ্চ রান : ২৯৪

(ভারতের বিপক্ষে-২০১১)

ফিফটি : ৫৭

সেঞ্চুরি : ৩৩

চার : ১৪৪৫

ছক্কা : ১১

ক্যাচ : ১৭৩

অভিষেক : মার্চ ২০০৬

ভারতে বিপক্ষে।

 

"