কাল নারী এককের ফাইনাল

সেরেনার সামনে রূপকথার নওমি

প্রকাশ : ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

মাতৃত্বের স্বাদ নেওয়ার পর প্রথমবারের মতো সেরেনা উইলিয়ামসকে হাতছানি দিচ্ছে গ্ল্যান্ড সø্যাম শিরোপা। পরশু ইউএস ওপেনের ফাইনালে উঠে গেছেন মার্কিন সেনসেশন। আগামীকাল ফ্লাশিং মিডোর ফাইনালে সেরেনার প্রতিপক্ষ আসরের চমক জাপানের নাওমি ওসাকা। গত বৃহস্পতিবার লাটভিয়ান টেনিসকন্যা অ্যানেস্টাসিজা সেভাসতোভাকে সরাসরি সেটে উড়িয়ে দিয়ে ফাইনালে উঠেছেন সেরেনা। সরাসরি সেটের জয় দিয়ে স্বপ্নের মঞ্চে জায়গা করে নিয়েছেন নওমি-ও। অন্য সেমিফাইনালে স্বাগতিক টেনিস তারকা ম্যাডিসন কেইসকে ৬-২, ৬-৪ গেমে হারিয়েছেন তিনি। তাতেই ইতিহাস হয়ে গেল জাপানের। দেশের ইতিহাসে প্রথম নারী হিসেবে কোনো গ্র্যান্ড সø্যামের ফাইনাল খেলবেন নওমি।

অবশ্য নওমির জন্য এটা রূপকথার ফাইনাল হলেও সেরেনার জন্য কালকের লড়াইটা হবে ক্যারিয়ারের ২৪তম ফাইনাল। সেভাসতোভাকে বিদায় করার পর ভীষণ উচ্ছ্বাসিত হয়ে সেরেনা বলেছেন, ‘এটা সত্যি অবিশ্বাস্য। এক বছর আগে আমার মেয়ে অলেম্পিয়া হওয়ার পর আমি হাসপাতালে কম-বেশি লড়াই করছিলাম। আবারও এই কোর্টে খেলতে পেরে আমি সবার কাছে কৃতজ্ঞ।’ মা হওয়ার পর মৌলিক টুর্নামেন্টে এটা ৩৬ বছর বয়সী সেরেনার প্রথম ফাইনাল। এই রথযাত্রায় বড় বোন ভেনাস উইলিয়ামসকে বিদায় করেছেন তিনি। কোয়ার্টার ফাইনালে বাধা হয়ে দাঁড়ানো কার্নোলিনা প্লিসকোভাকেও উড়িয়ে দিয়েছেন সেরেনা। ঘরের কোর্টে দাপুটে এই পারফরম্যান্সেই বুঝিয়ে দিচ্ছেন মার্কিন কৃষ্ণকলি ফুরিয়ে যাননি তিনি। টেনিস বিশ্বও সেরেনা ‘শো’।

অবশ্য নিজেদের উঠোনে আয়োজিত টুর্নামেন্টে ফেভারিট হিসেবেই সেমিফাইনালে উঠেছিলেন সেরেনা। সেমিতে সেভাসতোভাকে ৬-৩ ও ৬-০ গেমে হারিয়ে জায়গা করে নেন ফাইনালে। তবে এখানেই থামতে নারাজ সেরেনা। যেতে চান বহু দূর, ‘মাত্র শুরু। আমি আরো সামনে এগোতে চাই। আমি বসন্তের মুরগি নই। আমার সামনে উজ্জল ভবিষ্যৎ রয়েছে।’

টেনিসকে আরো অনেক কিছু দেওয়ার বাকি আছে বলে দাবি করলেন সেরেনা। প্রতিশ্রুতি দিলেন আরো একটি ট্রফি জয়ের, ‘আমি কঠোর অনুশীলন করছি। ফাইনালে খেলার যথেষ্ট অভিজ্ঞতা আছে আমার। আমি জানি কীভাবে ভলি খেলতে হয়। ফাইনালে আমি এমন কিছু করতে চাই যা আমার অনুকূলে থাকবে।’

"